Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় কালীগঞ্জে স্ত্রী খুন, শ্বামী গ্রেফতার

গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট:  কালীগঞ্জে পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় শনিবার এক কারখানার কর্মীকে তার শ্বামী খুন করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় পুলিশ নিহতের শ্বামী মাহফুজ হোসেনকে (৩০) গ্রেফতার করেছে। নিহতের নাম মুক্তা বেগমকে (২৮)। আরএফএল কারখানার কর্মী গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার বালীগাঁও গ্রামের মিলন মিয়ার মেয়ে।

এলাকাবাসি ও নিহতের শ্বজনরা জানায়, নারায়ণগঞ্জ জেলার রুপগঞ্জ উপজেলার বীর হাটাব গ্রামের আনোয়ার মিয়ার ছেলে মো. মাহফুজ হোসেন (৩০) প্রায় এক যুগ আগে ভালবেসে কালীগঞ্জের মুক্তা বেগমকে (২৮) বিয়ে করে। তাদের এক মেয়ে সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকে স্ত্রী সন্তানকে নিয়ে মাহফুজ তার শ্বশুর বাড়ীতে বসবাস করে আসছে। গত তিন বছর ধরে মাহফুজ পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। এর জের ধরে শ্বামী স্ত্রীর মাঝে দাম্পত্য কলহ চলে আসছিল। শুক্রবার দিবাগত রাতেও উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়।

নিহতের বড় ভাই আল আমিন জানায়, শ্বামীর পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় শুক্রবার দিবাগত রাতে মুক্তা ও মাহফুজের  মাঝে ঝগড়া বিবাদ হয়। একপর্যায়ে শনিবার ভোরে মাহফুজ তার স্ত্রীকে মারধোর ও নির্যাতন করে হত্যা করে। পরে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে নিহতের লাশ ঘরের আড়ের সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে প্রচার করে। স্থানীয়রা মুক্তাকে উদ্ধার করে উপজেলা শ্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এঘটনায় পুলিশ নিহতের শ্বামীকে গ্রেফতার করেছে।

এব্যাপারে কালীগঞ্জ থানার এসআই ফরিদ উদ্দিন জানান, লাশের উভয় হাত, বাম পা, ডান পাঁজর ও পিঠে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর জেলার শহীদ তাজউদ্দিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এব্যাপারে নিহতের বড় ভাই মো. আল আমিন বাদি হয়ে কালীগঞ্জ থানায় অভিযোগ দাখিল করেছেন।