Pages

Categories

Search

আজ- সোমবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

৫ স্তরের নিরাপত্তা বলয়ে শুক্রবার থেকে দ্বিতীয় পর্বে টঙ্গীর তুরাগ তীরে বিশ্ব ইজতেমা

জানুয়ারি, ১৪, ২০১৬
আইন- আদালত, টঙ্গী, ধর্ম
No Comment

Ijtema_pic-_22-01-2014_(1)[1]

হাসান মামুন, টঙ্গী (গাজীপুর): কাল শুক্রবার থেকে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুর“। বুধবার থেকে মুসল­ীরা বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে আসতে শুরু করেছে। নিরাপত্তা চাঁদরে ঢাকা বিশ্ব ইজতেমা ময়দান। টঙ্গীর তুরাগ তীরে লাখো মুসল­ীর ঢল। রাজধানীর অদূরে টঙ্গীর তুরাগ তীরে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব আজ শুক্রবার বাদ ফজর আ’ম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে। আগামী রোববার ১৭ জানুয়ারি আখেরী মোনাজাতের মাধ্যমে সমাপ্তি ঘটবে এবছরের ৫১তম বিশ্ব ইজতেমার। এর আগে গত ৮ জানুয়ারি থেকে ১০জানুয়ারি পর্যন্ত ৩দিন ব্যাপী বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শেষ হওয়ার পর মাঝে ৪দিন বিরতি দিয়ে শুক্রবার থেকে ৩দিনব্যাপী দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা শুরু হয়েছে। ‘২০১১ সাল থেকে ইজতেমা ময়দানে স্থান সংকুলান না হওয়ার কারণে গত ৫ বছর ধরে বিশ্ব ইজতেমা দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কাল দ্বিতীয় পর্বের প্রথম দিন শুক্রবার বাদ ফজর তাবলীগের বুজুর্গ মুরুব্বীদের আনুষ্ঠানিক আ’ম বয়ানের মাধ্যমে ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করা হয়।
বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে এবং স্বাগতিক বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে এক সপ্তাহ আগ থেকেই তাবলীগ অনুসারী ধর্মপ্রাণ মুসল্লীরা টঙ্গীতে আসতে শুরু করেছেন। হাজার হাজার মুসল্লী টঙ্গী, গাজীপুর ও ঢাকাসহ বিভিন্ন মসজিদে আশ্রয় নিয়ে দাওয়াতী মেহনতসহ আল্লাহর অশেষ রহমত প্রার্থনায় ইজতেমা ময়দানে ৩দিন ইবাদত বন্দেগীতে মশগুল থাকবেন। এসমস্ত জামাতবন্দী মুসল্লীগণ গতকাল থেকেই বিশ্ব ইজতেমা ময়দানের ১৬৫ একর এলাকা বিস্তৃত চটের তৈরি সুবিশাল ছামিয়ানার নিচে জমায়েত হয়েছেন। কাল বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে দেশের বৃহত্তম জুম্মাহর নামাজ। বৃহত্তম এ জুম্মার নামাজে গাজীপুরসহ আশপাশের জেলা ও প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে লাখ লাখ মুসল­ীও অংশ নিবেন বলে ইজতেমা আয়োজক কমিটি জানান। আজ বাদ মাগরিব আমবয়ানে তাবলীগের ওলামায়ে কেরামগণ নবীর সুন্নত, আকিদা ও দাওয়াতি কাজের উপর গুরুত্বারুপ করেন।
খিত্তাওয়ারি মুসল­ীদের অংশগ্রহণ : বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে দেশের ১৬টি জেলার মুসল­ীরা এবার অংশ নিচ্ছেন। যে সব জেলার মুসল­ীরা দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমায় অংশ নিচ্ছেন সেগুলো হচ্ছে-(১) ঢাকা ১ও৭ নং খিত্তা, (২) ঝিনাইদহ ৮ নং খিত্তা, (৩) জামালপুর ৯ও১১ নং খিত্ত, (৪) ফরিদপুর ১০ নং খিত্ত, (৫) নেত্রকোনা ১২ও১৩ নং খিত্তা. (৬) নরসিংদি ১৪ও১৫ নং খিত্তা, (৭) কুমিল­া ১৬ ও ১৮ নং খিত্তা, (৮) কুড়িগ্রাম ১৭ নং খিত্তা, (৯) রাজশাহী ১৯ও২০ নং খিত্তা, (১০) ফেনী ২১ নং খিত্তা, (১১) ঠাকুরগাও ২২ নং খিত্তা, (১২) সুনামগঞ্জ ২৩ নং খিত্তা, (১৩) বগুড়া ২৪ও২৫ নং খিত্তা (১৪) খুলনা ২৬ও২৭ নং খিত্তা, (১৫) চুয়াডাঙ্গা ২৮ নং খিত্তা, (১৬) পিরোজপুর ২৯ নং খিত্তায় অবস্থান গ্রহণ করবেন বলে জানা গেছে।
এদিকে গতকাল দূর দুরান্তের মুসল­ীরা যানবাহন ভাড়া করে টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা মাঠে আসতে দেখা গেছে। বৃহস্পতিবার ইজতেমা ময়দানে গিয়ে দেখা যায়, লাখ লাখ মুসল­ী ইজতেমা ময়দানে তাদের নিজস্ব খিত্তায় খিত্তায় অবস্থান নিয়েছেন।
৫১তম বিশ্ব ইজতেমাকে সফল করতে সরকারী-বেসরকরী পর্যায়ে বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে ইজতেমায় আগত দেশ বিদেশের মুসল্লীদের সার্বিক নিরাপত্তা, স্বাস্থ্যসেবা, যোগাযোগ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে প্রথম পর্বের ন্যায় দ্বিতীয় পর্বেও ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে গাজীপুর জেলা প্রশাসক মোঃ এস.এম আলম, পুলিশ সুপার হারুন-অর-রশিদ, টঙ্গী থানার অফিসা ইনচার্জ ফিরোজ তালুকদার ও অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম সকল কাজের অগ্রগতি সার্বিক বিষয় তদারকি করছেন।
ইজতেমা ময়দান ঘুরে দেখা গেছে, তাবলীগ জামাতের স্বেচ্ছাসেবকরা প্রথম পর্বের ময়লা আবর্জনা অপসারণ করে দ্বিতীয় পর্বের জন্য ইজতেমা ময়দানকে প্রস্তুত করেছেন। বর্জ্যসহ বিভিন্ন ময়লা আবর্জনার স্থানে বি­চিং পাউডার ছিটিয়ে ইজতেমাস্থলকে দুর্গন্ধমুক্ত করা হয়েছে। ইতিমধ্যে বিভিন্ন জেলার তাবলীগ জামাতের মুসলি­গণ ইজতেমা মাঠে এসে নিজ নিজ জেলাওয়ারি খিত্তায় অবস্থান নিয়েছেন। এ পর্বেও বিদেশী মেহমানদের জন্য নির্মিত তাশকিল কামরার টিনের শামিয়ানার পূর্ব পাশে স্থাপিত মুল মঞ্চ থেকে তাবলীগ জামাতের শীর্ষ স্থানীয় মুরুব্বীগণ আরবি ও উর্দুতে বয়ান করবেন এবং মুসলি­দের সুবিধার্থে তা বাংলা তরজমা করা হবে। এছাড়াও এসব বয়ান ইংরেজী, ফার্সি, উর্দ্দু, মালয় ভাষায় তরজমা করে মুসল­ীদের শোনানো হবে বলে ইজতেমা আয়োজক কমিটির শীর্ষ স্থানীয় মুরুব্বীরা জানা‘।
প্রথম পর্বের ইজতেমায় মুসল্লীদের যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা যেমন বিদ্যমান ছিল যেতমনি দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমায়ও গ্যাস, বিদ্যুত, পানি সংযোগ, মুসলি­দের প্রাথমিক চিকিৎসা সেবাসহ সরকারি- বেসরকারি দপ্তরের বিভিন্ন সেবা কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। ইতিমধ্যে ইজতেমা ময়দানে গাজীপুর জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ও ওয়াসা পানি সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য এসকল দপ্তরের কর্মকর্তারা মাঠে অবস্থান করছেন।
বৃহস্পতিবার বাদ আছর থেকেই ইজতেমায় সমবেত মুসল্লীদের উদ্দেশ্যে তাবলীগ মুরব্বীদের বয়ান শুরু করা হয়েছে। প্রথম পর্বের বিদেশী মুসলি­সহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের অনেক মুসলি­ বিভিন্ন মেয়াদী চিল­ার নিয়ত করে জামাতবন্দি হয়ে ইজতেমা ময়দানেই রয়েছেন। তারা দ্বিতীয় পর্বের আখেরী মোনাজাত শেষ করে তাবলীগের কাজে বিভিন্ন অঞ্চলে বেরিয়ে যাবেন।
মুসল­ীদের সুশৃঙ্খখল অবস্থানের জন্য ইজতেমা ময়দানে চটের তৈরি পুরো প্যান্ডেলকে দ্বিতীয় পর্বে ১৬টি খিত্তায় ভাগ করে বিভিন্ন জেলাওয়ারী মুসল­ীদের অবস্থানের জন্য স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রথম পর্বে অংশগ্রহণকারীজেলা সমূহের মুসলি­রা ২য় পর্বের ইজতেমায় অংশ নিচ্ছেন না।
চিকিৎসা সেবা : চিকিৎসা সেবায় সরকারি চিকিৎসা কেন্দ্র ছাড়াও বেসরকারি ভাবে এবারও প্রথম পর্বের ন্যায় হামর্দদ ল্যাবরেটরিজ, ইবনে সিনা ফার্মাসিউটিক্যাল্স, জনকল্যাণ ফার্মাসিউটিক্যালস, টঙ্গী ঔষধ ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন, বাংলাদেশ মানবাধিকার কাউন্সিলসহ বাংলাদেশ আয়ুর্বেদী হারবাল এসোসিয়েশন, ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বেশ কয়েকটি সংগঠন এবং সরকারি ভাবে গাজীপুর সির্ভিল সার্জন অফিস, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প, র‌্যাব ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প এ পর্বেও চালু থাকবে। এসব মেডিকেল ক্যাম্প থেকে মুসল­ীরা বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।
নিরাপত্তা ব্যবস্থা : প্রথম পর্বের ন্যায় দ্বিতীয় পর্বেও মুসল্লীদের নিরাপত্তা কার্যে র‌্যাব, পুলিশের ওয়াচ টাওয়ারের মাধ্যমে ইজতেমা মাঠ পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এবারও সিসি টিভি ক্যামেরার কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। গাজীপুর জেলা পুলিশ সুপার হারুন-অর-রশিদ ইজতেমা ময়দানে টঙ্গীর শহীদ আহসান উল­াহ মাষ্টার স্টেডিয়ামে স্থাপিত গাজীপুর জেলা পুলিশের সেবা কেন্দ্রে ইজতেমা উপলক্ষে সাংবাদিকদের এক প্রেস ব্রিফিং এ জানান, বিশ্ব ইজতেমার মুসল­ীদের সার্বিক নিরাপত্তাদানে এবারও ৫ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। গাজীপুর জেলা পুলিশসহ র‌্যাব ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খখলা বাহিনীর প্রায় ১২ হাজারের বেশি সদস্য নিরাপত্তাকার্যে নিয়োজিত থাকবে। এছাড়াও সড়ক-মহাসড়কগুলোতে র‌্যাব-পুলিশের চেক পোষ্ট বসানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার। জেলা পুলিশ সুপারের প্রেস ব্রিফিং-এর সময় গাজীপুর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ টঙ্গী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ফিরোজ তালুকদার, অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আমিনুল ইসলামসহ পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
ইজতেমা উপলক্ষে জেলা প্রশাসকের প্রেস ব্রিফিং :
এদিকে গাজীপুর জেলা প্রশাসক বৃহস্পতিবার দুপুরে ইজতেমা উপলক্ষে এক প্রেস ব্রিফিং-এ বলেন, জেলা প্রশাসনের কন্ট্রোল রুম স্থাপন, হোটেল রেঁস্তরায় পঁচা, বাসি খবার বিক্রি রোধকল্পে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা, বিদেশী মেহমানদের আবাসস্থল নির্মাণের টিন সরবরাহ করা, মু­সল্লীদের চলাচল নির্বিঘ্ন করার নিমিত্ত রাস্তা ও ফুটপাত অবৈধ দখল মুক্ত রাখতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কার্যকরি উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ফুটপাতের দোকান-পাট ও হকার উচ্ছেদ ও ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা, ছিনতাই, পকেটমার রোধকল্পে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা, ট্রাফিক ব্যবস্থা সমুন্নত রাখতে ফিটনেস ও কাগজপত্র বিহীন যানবাহনের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে, রাস্কার দু’পার্শ্বের বিলবোর্ড, ব্যানার, পোস্টার অপসারণে ক্র্যাশ প্রোগ্রাম পরিচালনা, ইজতেমা এলাকায় সিনেমা হল বন্ধসহ অশ­ীল পোষ্টার অপসারণ, সুষ্ঠু পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করার জন্য ইজতেমা ময়দানে ১০ ড্রাম কেরোসিন, ৭৫ ড্রাম বি­সিং পাউডার সরবরাহ করা হয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক এস.এম আলম। বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বেও এসব কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।
মুসল্লীদের গাড়ী পার্কিং : এদিকে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমায় মুসল্লীদের বহনকারী গাড়ীসমূহ পার্কিং করার জন্য বিভাগ ও জেলাওয়ারী বেশ কয়েকটি স্থান নির্ধারিত করা হয়েছে। গাড়ী পার্কিং এর জন্য যেসব স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে সেগুলো হলো-উত্তরার ধৌর ব্রীজ সংলগ্ন আশা বিশ্ববিদ্যালয় মাঠ বরিশাল বিভাগ, টঙ্গীর প্রত্যাশা হাউজিং এলাকায় রাজশাহী বিভাগ, ঢাকা উত্তরার ১০নং সেক্টর রংপুর বিভাগ, উত্তরার সোনারগাঁও জনপথ হতে দিয়াবাড়ী খালপাড় ঢাকা বিভাগ, নিকুঞ্জ-১ উত্তরা-৬নং সেক্টর এবং রাজউক কলেজের পাশের খালি জায়গায় ঢাকা মহানগর, উত্তরা ১২নং সেক্টরের শাহ্ মখদুম এভিনিউ সিলেট বিভাগ, উত্তরার গাউছুল আজম এভিনিউ ও গরীবে নেওয়াজ এভিনিউ চট্টগ্রাম বিভাগ, উত্তরার ১৫ ও ১৫৮নং সেক্টরে খুলনা বিভাগের জন্য পার্কিং এর স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে।
ইজতেমায় বিদেশী মেহমান : প্রথম পর্বের ন্যায় দ্বিতীয় পর্বেও বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে প্রায় শতাধিক দেশের বিদেশী মুসল্লী আসবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। এব্যাপারে টঙ্গীর ইজতেমা আয়োজক কমিটির শীর্ষ মুরুব্বীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ইজতেমায় আগত বিদেশী মুসল্লীদের সঠিক সংখ্যা জানাতে না পারলেও বিশ্বের অন্তত শতাধিক দেশের প্রায় ৩০/৩৫ হাজার বিদেশী মেহমান এবারের ইজতেমায় অংশগ্রহণ করবেন বলে জানান।
দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমায়ও বিশেষ ট্রেন ও বাস সার্ভিসঃ ইজতেমা ময়দানে মুসল্লীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমাও বিআরটিসির স্পেশাল বাস সার্ভিস আগামী ১৯ জানুয়ারী পর্যন্ত চলাচল করবে। বিআরটিসির একটি সূত্র জানায়, আজ থেকে ১৯ জানুয়ারী পর্যন্ত চলাচলকারী স্পেশাল বাসের মধ্যে ৩টি বাস বিদেশী মুসল্লীদের জন্য রিজার্ভ থাকবে।
অপরদিকে বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লীদের যাতায়াতে সুবিধার্থে বাংলাদেশ রেলওয়েও এবার বিশেষ ট্রেন সার্ভিস পরিচালনা করবে। এ ছাড়াও সকল আন্ত:নগর, মেইল এক্সপ্রেস ও লোকাল ট্রেনে অতিরিক্ত কোচও সংযোজন করা হয়েছে।