Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

১৯৭১ সালে গাজীপুরে প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ যোদ্ধাদের মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দাবী

ডিসেম্বর ৩১, ২০১৭
গাজীপুর, মুক্তিযুদ্ধ, শীর্ষ সংবাদ
No Comment

গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট : জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৭১সালের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষনের পর ১৯মার্চ পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে গাজীপুরে প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধে অংশ নেয়া যোদ্ধারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতির দাবী জানিয়েছেন। একই সাথে ১৯মার্চকে সশস্ত্র প্রতিরোধ দিবসের স্বীকৃতিরও দাবী জানিয়েছেন। ৩১ডিসেম্বর রোববার সকালে গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীরের মাধ্যমে তৎকালীন ২৬ জন সশস্ত্র প্রতিরোধ যোদ্ধা প্রধানমন্ত্রীর নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেন।


জেলা প্রশাসন সুত্রে জানা যায়, ১৯৭১সালের ‘‘১৯মার্চকে সশস্ত্র প্রতিরোধ দিবস’’ ঘোষণা ও মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতির দাবীতে বিজয়ের মাসের শেষদিন আজ(গতকাল) রোববার সকালে তৎকালীন প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধে অংশ নেয়া সাহসী যোদ্ধারা জেলা প্রশাসকের কাছে স্বারকলিপি দিয়েছেন। সশস্ত্র প্রতিরোধ যোদ্ধা ও গাজীপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের প্রচার সম্পাদক মো: ওলিউল্লাহ হাওলাদার জানান, আমরা অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরীর কর্মচারী ছিলাম। ১৯মার্চ অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরীর সার্কুলার মার্কেটে মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহনের জন্য ট্রেনিংরত অবস্থায় শুনতে পাই ভাওয়াল রাজবাড়ীস্থ সেকেন্ড বেঙ্গল রেজিমেন্টের বাঙ্গালী সৈনিকদের নিরাস্ত্র করার জন্য ব্রিগেডিয়ার জাহানজেবের নের্তৃত্বে বেলুস রেজিমেন্টের সৈন্যরা আসছে। সেইদিন জয়দেবপুর রেল গেইটে পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে গাজীপুরে প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধ সংঘটিত হয়েছে, আমরাও সেই দিন অংশ নিয়েছি, অনেকে আহত হয়েছেন-পঙ্গু হয়েছেন। স্বাধীনতার ৪৬ বছর পরও আমরা মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পাইনি। প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধে গাজীপুরবাসী সাহসী ভূমিকা রেখেছেন- ১৯মার্চকে সশস্ত্র প্রতিরোধ দিবসের স্বীকৃতিরও দাবী জানাই।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর দাবীর সাথে একমত হয়ে জানান, স্মারকলিপিটি দ্রুত প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠিয়ে দিব।