Pages

Categories

Search

আজ- বৃহস্পতিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

শ্রীপুরে শ্বামীর সহায়তায় স্ত্রীকে গনধর্ষণ : গ্রেপ্তার ২

অগাষ্ট ৫, ২০১৫
আইন- আদালত, নারী অঙ্গন, শ্রীপুর
No Comment

rape420-sm20140108182230-300x165[1]
বশির আহমদ কাজল, শ্রীপুর প্রতিনিধি ঃ
গাজীপুরের শ্রীপুরে শ্বামীর সহযোগিতায় এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ৩ আগস্ট সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের সাইটালিয়া বনে এ ঘটনা ঘটে। ৪ আগস্ট মঙ্গলবার রাতে ধর্ষিতা তার শ্বামী জীবনকে প্রধান করে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে শ্রীপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ ঘটনায় আফাজ উদ্দিনের ছেলে অভিযুক্ত রুবেলকে এলাকাবাসী পুলিশে সোপর্দ করেছে। পরে পুলিশ তমিজ উদ্দিনের ছেলে ফারুককে গ্রেপ্তার করে।

অভিযুক্ত অন্যরা হল-মৃত গিয়াস উদ্দিনের ছেলে কামরুল, মৃত মনসুর আলীর ছেলে নাজিম উদ্দিন এবং মৃত আলিম উদ্দিনের ছেলে আফাজ উদ্দিন। অভিযুক্তদের সকলের বাড়ি সাইটালিয়া গ্রামে।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ জানান, নির্যাতিতার শ্বামী জীবন ঘটনার রাতে ভাড়া করা দুই নারী ও একজন বন্ধুসহ একটি সিএনজি যোগে সাইটালিয়া বনের দিকে যাওয়ার খবর পান। ওই খবরে স্ত্রীও আরেকটি অটো রি·াযোগে শ্বামীর সন্ধানে পেছনে ছুটে চলেন। সাইটালিয়া বনের ভেতরে তার শ্বামীকে দুই নারীসহ হাতেনাতে ধরে ফেলেন। সেখানে ধর্ষিতা এবং তার শ্বামীর মধ্যে হাতাহাতি ও কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে শ্বামী জীবন তার স্ত্রীকে সামলানোর জন্য বন্ধুকে পরামর্শ দেন। এসময় ওই বন্ধু স্ত্রীকে শ্বামীর সামনেই শারীরিক নির্যাতন করেন। এক পর্যায়ে শ্বামী জীবন ভাড়া করা নারীসহ পালিয়ে যান।

পরে স্ত্রীর ভাড়া করা অটোরিক্সাচালক রুবেল এবং শ্বামীর অপর ৫ সহযোগী নির্যাতিতাকে বনের মধ্যেই ধর্ষণ ও শারীরিক নির্যাতন করে ফেলে রেখে যায়। স্থানীয়দের সহায়তায় ধর্ষিতা রাতেই বাড়ি ফিরে যান। মঙ্গলবার সকালে ধর্ষিতা এলাকাবাসীর কাছে পুরো ঘটনা খুলে বলেন। এসময় এলাকাবাসী রুবেলকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন।

ওসি জানান, এ ব্যাপারে মঙ্গলবার রাত ১০টায় ধর্ষিতা শ্রীপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। এতে তার শ্বামী জীবনকে প্রধান করে ৬জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। বুধবার ধর্ষিতা মেডিকেল পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।