Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

শ্রীপুরে শিশু ধর্ষণের অভিযোগ, ধর্ষককে রক্ষা করতে সালিশকারীদের তৎপরতা

সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৭
অপরাধ, আইন- আদালত, ধর্ষণ, শীর্ষ সংবাদ, শ্রীপুর
No Comment

গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট : গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বেকা সাহরা এলাকায় বিয়ে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ১৩ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রতিবেশী ইসলাম উদ্দিনের ছেলে সোহাগ মিয়ার (১৮) বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার সোহাগ বিদেশ চলে যাওয়ার প্রস্তুতির কথা জানিয়েছে স্বজনরা।
ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে মামলা না করে ভিক্টিমদের ক্ষতিপূরণ আদায় করে দেয়ার আশ্বাসের অভিযোগও উঠেছে স্থানীয় ক’শালিশকারীদের বিরুদ্ধে। পরে সোমবার বিকেলে শিশুর মা বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।
শিশুর বড় চাচা জানান, গত শুক্রবার তার ছোট ভাইয়ের বৌভাতের অনুষ্ঠান ছিল। ওই অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার মধ্য রাত থেকে তাদের বাড়িতে রান্না-বান্নার আয়োজনসহ সঙ্গীতানুষ্ঠান চলছিল। শুক্রবার ভোরে রান্নার কাজ সেরে তার ভাতিজি হাত ধুইতে বাড়ির পাশের টিবওয়েলের কাছে যায়। এ সময় ওই যুবক শিশুটিকে মুখ বেঁধে অদূরে নির্জন নির্জনস্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। একর্যায়ে মুখের বাধন খুলে তার ভাতিজি চিৎকার শুরু করে। এসময় চিৎকার শুনে বিয়ে বাড়ির লোকজন এগিয়ে গেলে সোহাগ পালিয়ে যায়।
ঘটনার পর বিষয়টি ধামাচাপা দিতে স্থানীয় দেলোয়ার হোসেনসহ ক’প্রভাবশালী ভিক্টিমের স্বজনদের সঙ্গে গোপন বৈঠক করে জন্য জানায়, বিচার শালিশের প্রয়োজন নেই। এটা তোমাদের মান-সম্মানের বিষয়। পরবর্তীতে তাকে বিয়ের সময় কিছু টাকা আদায় করে দেয়ার আশ্বাস দিয়ে থানায় মামলা দায়ের করতে নিরুৎসাহিত করেন তারা। তার চাচা আরো জানান, ঘটনার পর থেকে সোহাগ পলাতক রয়েছে। মঙ্গলবার সোহাগের বিদেশ চলে যাওয়ার কথা রয়েছে।
শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সৈয়দ আজিজুল হক জানান, সোমবার বিকেলে শিশুটির মা বাদি হয়ে সোহাগের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। ধর্ষককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। শিশুটিকে পুলিশি হেফাজতে নেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে। তবে অপর একটি সূত্রে জানা গেছে সোহাগ বিয়ের আশ্বাস দিয়ে একাধিকবার তার সাথে দৈহিক সম্পর্ক স্থাপন করেছে ওইদিনও তার পূনরাবৃতি করেছে। তবে তাকে বিয়ের কথা বললে সোহাগ নানা তালবাহানা করতে থাকে। মঙ্গলবার সোহাগ বিদেশ চলে যাওয়ার কথা শুনেছি। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।
আপোষ বৈঠককারী দেলোয়ারের সাথে একাধিকবার মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করে বন্ধ পাওয়া গেছে।