Pages

Categories

Search

আজ- রবিবার ১৮ নভেম্বর ২০১৮

শ্রীপুরে নির্মাণাধীন ভবন ধসে নিহত ১, আহত- ৯

জানুয়ারি, ৫, ২০১৮
গাজীপুর, শীর্ষ সংবাদ
No Comment

মঞ্জুর হোসেন মিলন : গাজীপুরের শ্রীপুরে একটি নির্মাণাধীন ভবনের একাংশ ধসে এক শ্রমিক নিহত এবং অন্তত ৯ শ্রমিক আহত হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে শ্রীপুর উপজেলার ফাওগান নিশ্চিতপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতের ব্যাক্তির নাম আব্দুল্লাহ (২৫)। তার বাড়ি দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট এলাকায়। তিনি লেবারদের কেয়ারটেকার ছিলেন বলে জানিয়েছেন গাজীপুর ফায়র সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক মো: আক্তারুজ্জামান।  এঘটনায় জেলা প্রশাসন ৬ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।
হতাহতরা সবাই নির্মাণ শ্রমিক বলে জানা গেছে। আহতদের মধ্যে ৫ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হলেন দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট এলাকার আজিজুল হকের ছেলে মাইদুল ইসলাম (২২), একই এলাকার তমিজ উদ্দিনের ছেলে মন্টু মিয়া (২০), জামালপুরের শহর আলীর ছেলে ইকবাল (১৬), ফাওগান এলাকার রওশন আলীর ছেলে রহিম বাদশার (১৭) ও একই এলাকার সামশুল হকের ছেলে মেহেদুল (২৫)।
ফায়ার সার্ভিস জয়দেবপুর স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. জাকির হোসেন ও স্থানীয়রা জানান, ওই এলাকায় একটি নির্মাণাধীণ ভবনের দ্বিতলের ছাদের ঢালাইর কাজ চলছিল। এতে ৫০ জন শ্রমিক কাজ করছিলেন। দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে হঠাৎ ওই ভবনের ছাদের একাংশ ধসে নীচে পড়ে। পরে পুরো সাটারিং ভেঙ্গে পরে যায়। এ সময় স্থানীয়রা ৫/৬ জনকে উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠায় এবং ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌছে উদ্ধার কাজ শুরু করে। এসময় নির্মাণ সামগ্রীর নীচে চাপা পড়া অবস্থায় নিহত এক শ্রমিক আব্দুল্লাহর লাশ এবং দুই জনকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করে। আহতদের গাজীপুর শহীদতাজ উদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সহ বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
জয়দেবপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশন অফিসার মো. জাকির হোসেন জানান, উদ্ধার কাজ চলছে। আরো কেউ আটকা পড়ে আছে কি-না তা খুঁজে দেখা হচ্ছে।
গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, আহতাবস্থায় এ হাসপাতালে ৫ জনকে আনা হয়। তাদের মধ্যে মন্টু, ইকবাল ও মেহেদুলকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। বাকি দু‘ জনকে এ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি শ্রমিক মাইদুল ইসলাম জানান, দ্বোতলার ছাদ ঢালাইয়ের কাজ চলছিল। প্রায় ৫০ জন শ্রমিক কাজ করছিলেন। তিনি ভাইভেটর মেশিন চালাচ্ছিলেন। দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে হঠাৎ ছাদের একাংশ ধসে পড়ে।