Pages

Categories

Search

আজ- বৃহস্পতিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

শ্রীপুরে তুলির আঁচড়ে সেজেছে প্রতিমা

সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৭
উৎসব, শ্রীপুর
No Comment

শ্রীপুর প্রতিনিধি : হিন্দু ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার বাকি আর মাত্র দু’দিন। আর এ অল্প সময়ের মধ্যে মন্ডপে মন্ডপে চলছে শেষ সময়ের ব্যস্ততা। ঢাকে কাঠি পরার প্রস্তুতি চলছে। চারদিকে দুর্গাপূজার গন্ধ ছুটছে। মঙ্গলবার থেকে কাঁসার ঘন্টা, ঢাক-ঢোল, শাঁখ আর উলুধ্বনিতে মুখর হয়ে উঠবে শ্রীপুরের পূজামন্ডপগুলো। দূর্গাদেবীর আগমনী বার্তায় উৎসবের আমেজ এখন হিন্দু স¤প্রদায়ের ঘরে ঘরে। দেবীকে বরণ করতে শেষ মুহুর্তে ব্যস্ত সময় পার করছেন স্থানীয় পূজা কমিটির আয়োজকেরা।

ইতিমধ্যে, মন্ডপের প্রতিমা শিল্পীরা প্রতিমায় মাটি লাগানোর কাজ শেষ করেছেন। এখন তুলির আঁচড়ে প্রতিমার সৌন্দর্য বাড়ানোর কাজে ভীষণ ব্যস্ত কারিগররা। আরেকটু নিপুণ করে দেবীকে সাজাতে সাধ্যমত মতো চেষ্টা করছে শিল্পীরা। দেবীকে সাজাতে শিল্পীদের মাঝেও উৎসাহের কোন কমতি নেই। দেবীকে সাজাতে কোন কার্পণ্য করছেন না পূজা মন্ডপের আয়োজকরা।

শিশু, কিশোর, কিশোরী, নারী, বৃদ্ধরা লাল পাড়ের সাদা শাড়ি কিনে প্রস্তুত। হিন্দুধর্মালম্বীদের মহোৎসব দুর্গাপূজার যে আর মাত্র কয়েক দিন বাকি। রংবেরংয়ের আলোকসজ্জা, দৃষ্টিনন্দন গেট, প্রাকৃতিক নানা উপাদানে সাজছে শ্রীপুর উপজেলা প্রায় অর্ধশতাধিক পূজামন্ডপগুলো। কোথাও ফুঁটে উঠেছে হারানো শৈশব, কোথাও বিলুপ্তপ্রায় লোকশিল্প, কোথাও আবার জীব বৈচিত্র্য রক্ষার আবেদন করা হয়েছে বাহারি মন্ডপসজ্জায়। মন্ডপ সাজাতে আয়োজকদের মধ্যে প্রতিযোগিতাও লক্ষ্য করা গেছে। উপজেলার রাজাবাড়ি ও বরমী ইউনিয়নে সবচেয়ে বেশি মন্ডপ তৈরী করা হয়েছে।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের শ্রীপুর উপজেলা শাখার সভাপতি শ্রী কাজল কর বলেন বাস্তবায়ন কমিটির সাধারণ সম্পাদক বলেন, উৎসাহ্ উদ্দীপনার মাধ্যমে শারদীয় দুর্গাপূজা উৎযাপনের উপজেলার একটি পৌর ও আটটি ইউনিয়নে মোট ৫০টি মন্ডপ তৈরী করা হয়েছে। প্রতিটি মন্ডপে প্রতিমা নির্মাণ ও আলোকসজ্জার কাজ শেষ হয়েছে। এখন শুধুই দেবীকে বরণ করার অপেক্ষা চলছে।

শ্রীপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জালাল আহমেদ বলেন, সরকারী ভাবে প্রতিটি পূজামন্ডপে ৫’শ কেজি করে চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান বলেন, শ্রীপুর পৌরসভার মধ্যে ছয়টি মন্ডপ তৈরী হয়েছে। পৌরসভার পক্ষ থেকে মন্ডপগুলোতে প্রায় লাখ টাকার অনুদান দেয়া হয়েছে।

এব্যাপারে শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান বলেন, শারদীয় দুর্গোৎসবে আইনশৃঙ্খলা নির্বিঘœ রাখতে প্রতিটি মন্ডপে দুইজন পুলিশ, সাতজন আনসার সদস্য ও ১৫জন করে স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি দুর্গাপূজায় টহল পুলিশের নজরদারি থাকবে।