Pages

Categories

Search

আজ- শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

শ্রীপুরে জে.এস.সি পরীক্ষায় শিক্ষকদের প্রতিহিংসামূলক আচরণে ছাত্র-ছাত্রী এবং অভিভাবক আতংকিত

নভেম্বর ১৪, ২০১৬
অনিয়ম, পরীক্ষা, শীর্ষ সংবাদ, শ্রীপুর
No Comment
CREATOR: gd-jpeg v1.0 (using IJG JPEG v62), quality = 90

CREATOR: gd-jpeg v1.0 (using IJG JPEG v62), quality = 90

শ্রীপুর থেকে জামাল উদ্দিন: গাজীপুরের শ্রীপুরে শিক্ষকদের প্রতিহিংসামূলক আচরণের মধ্য চলছে জে.এস.সি পরীক্ষা। সারা দেশের ন্যায় গত ১লা নভেম্বর হইতে শ্রীপুরে ও শুরু হয় জে.এস.সি পরীক্ষা। উপজেলায় মোট ৬টি কেন্দ্রে ৫৮টি বিদ্যালয়ে মোট ৬৯২০জন শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে জে.এস.সি পরীক্ষা। পৌর এলাকার মাওনা বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১০টি বিদ্যালয়ের ১৬৮৪জন শিক্ষার্থী এবং হাজী ছোট কলিম উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১১টি বিদ্যালয়ের ১৫৫৭জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে। এক সময় হাজী ছোট কলিম উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মাওনা বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করত। গত ২০১৫ইং সালে হাজী ছোট কলিম উচ্চ বিদ্যালয় জে.এস.সি কেন্দ্রের অনুমতি পায়। গত ১২ নভেম্বর গণিত পরীক্ষার আগের রাত্রে ৮.৩০মিনিটে উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল আওয়াল কেন্দ্র সচিবদের জানান আগামী কাল গণিত পরীক্ষার দায়িত্বরত শিক্ষক যারা হাজী ছোট কলিম উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে আছেন তারা মাওনা বহুমুখি উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে এবং মাওনা বহুমুখি উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের শিক্ষকগণ হাজী ছোট কলিম উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের দায়িত্ব পালন করবেন। দায়িত্বরত শিক্ষকগণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করে তাদের দায়িত্ব পালন করছেন। অভিভাবকদের সাথে কথা বলে জানা যায় শিক্ষকদের এমন দায়িত্ব পালনের কারণে অভিভাবক এবং শিক্ষার্থীরা আতঙ্কগ্রস্থ। এতে করে তাদের ছেলে-মেয়েদের পরীক্ষার ব্যাঘাত সৃষ্টি হচ্ছে। একটু এদিক সেদিক হলেই শিক্ষকগণ শিক্ষার্থীদের খাতা নিয়ে নিচ্ছে । শিক্ষক রদবদলের কারণ জানতে চাইলে দায়িত্বরত কারো কাছ থেকে তার সঠিক কোন উত্তর পাওয়া যায়নি। অভিভাবক এবং ভিবিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন কারণটা জানা নেই তবে শুনেছি মাওনা বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্রের পক্ষ থেকে হাজী ছোট কলিম উচ্চবিদ্যালয়ে কেন্দ্রের সজন প্রীতির অভিযোগ মৌখিকভাবে করা হলে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা এই সিদ্ধান্ত নেন। হাজী ছোট কলিম উচ্চবিদ্যালয়ের কেন্দ্র সচিব আঃ হান্নান (সজল) মাওনা বহুমুখি উচ্চবিদ্যালয়ের কেন্দ্র সচিব শাহজাহান সিরাজ জানান কারণটা আমাদের জানা নেই। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে আমরা আমাদের দায়িত্ব পালন করছি। উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আতিক জানান স্বচ্ছতার জন্য এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল আওয়াল জানান কোন কেন্দ্রে যাতে কোন শিক্ষক সজন প্রীতির সুযোগ না পায় তার জন্য এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।