Pages

Categories

Search

আজ- বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮

শ্রীপুরে উচ্ছেদের পর আবারও বসেছে জুয়ার আসর : আয়োজকের দাবী অনুমতি নিয়েই চলছে জুয়া ?


গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট : গাজীপুর জেলা প্রশাসন একাধিকবার ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে অগ্নিসংযোগের পর উচ্ছেদ করলেও সোমবার থেকে বাঘেরবাজার এলাকায় উন্মূক্ত পরিবেশে আবার জুয়ার আসর শুরু হয়েছে।

তবে শীঘ্রই আয়োজকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন গাজীপুর জেলার এনডিসি বি এম কুদরত এ খুদা।

তবে আয়োজকে শফি বলেন, আদালত থেকে অনুমতি নিয়ে এলাকায় ওয়ান টেনসহ কয়েকটি খেলা চালু করেছি। এরজন্য শিল্প মন্ত্রণালয় থেকেও লাইসেন্স নিয়েছি, সরকারকে ট্যাক্স দিচ্ছি।ওই অনুমতিপত্র এবং লাইসেন্স দেখতে চাইলে তিনি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কথা বলেন। ওই হাউজি মাঠের সামনে এ সংক্রান্ত একটি সাইনবোর্ডও টানানো আছে।

এদিকে বিভিন্ন জেলা থেকে ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরসাইকেলে করে সোমবার বিকেল থেকেই গাজীপুর সদর উপজেলার বাঘেরবাজার এলাকায় জুয়ারিদের ভিড় জমাতে দেখা গেছে।

স্থানীয় রাজেন্দ্রপুর এলাকার বাসিন্দা মাহবুবুর রহমান জানান, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক শ্রীপুর উপজেলার কেওয়া এলাকার আব্দুল গফুর গংদের জমিতে জুয়ার আসর বসতে দেয়ার অভিযোগে ৭ সেপ্টেম্বর মালিককে জমি বাজেয়াপ্ত করার নোটিশ দেন। এরপর ১১ সেপ্টেম্বর জেলা প্রশাসক ভারত সফরে যাওয়ার পর আবার গাজীপুর সদর উপজেলার বাঘেরবাজার এলাকার জুয়ার আসরটি শুরু হয়। তখন এলাকায় এ আসরটি শুরুর প্রচার চালিয়ে মাইকিং করেছে আয়োজকরা। জুয়ার মাঠটি চালাচ্ছেন শিরিরচালা এলাকার বাসিন্দা শফিকুল ইসলাম শফি । ওই ফাঁদে পড়ে এলাকার যুব সমাজ বিপথগামী হচ্ছে। চুরি ছিনতাই বেড়ে গেছে। এছাড়া জুয়ার আসরটি স্থানীয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের প্রবেশ পথের পাশে হওয়ায় দেশি-বিদেশী পর্য়টকদের নজরে পড়ছে এবং দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে।

গাজীপুর জেলার এনডিসি বি এম কুদরত এ খুদা বলেন, সম্প্রতি শ্রীপুরে জুয়ার আসর উচ্ছেদ করার পর ফের তা চালু করায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জুয়া খেলার জন্য ব্যবহৃত জমির মালিককে ওই জমি বাজেয়াপ্তের নোটিশ দেয়া হয়। গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীরের নির্দেশে ইতোপূর্বে এ আসরটি একাধিকবার উচ্ছেদ করা হয়েছিল। এছাড়া বেশ কয়েকটি জুয়ার আসরে অগ্নিসংযোগ ও জুয়ারিকে জরিমানা এবং কারাদন্ডও দেয়া হয়েছিল। কিন্তু শুনেছি সোমবার মাইকিং করে আদালতের নির্দেশের অপব্যাখ্যা দিয়ে এবং সরকারি লোগো ব্যবহার করে বাঘেরবাজার এলাকায় আবার জুয়ার আসরটি শুরু হয়েছে।

শীঘ্রই আয়োজকের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে জানিয়ে এনডিসি কুদরত এ খুদা বলেন, হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুয়ায়ি আবদ্ধ পরিবেশে সীমিত পযায়ে কিছু ইনডোর খেলার অনুমতি থাকলেও বাঘের বাজার এলাকায় উন্মুক্ত পরিবেশে অর্থ দিয়ে জুয়ার আসর চালানো হচ্ছে, যা ওই নির্দেশনার পরিপন্থী।