Pages

Categories

Search

আজ- শুক্রবার ১৬ নভেম্বর ২০১৮

শিশু নির্যাতনের কারখানা জোবেদা টেক্সটাইল

জুলাই ২৫, ২০১৬
অনিয়ম, নারায়ণগঞ্জ
No Comment

N-Gonjনারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:
শুধু ১০ বছরের শিশু শ্রমিক সাগর বর্মণই নয়, রূপগঞ্জের জোবায়দা টেক্সটাইল ও স্পিনিং মিলে এ রকম অনেক নির্যাতনের কাহিনী লুকিয়ে আছে। এর আগে শিশু নির্যাতনের ঘটনা নিয়ে শ্রম আদালতে মামলাও আছে ওই কারখানার বিরুদ্ধে। আর সর্বশেষ শিশু সাগরের মৃত্যুর পর বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে এই রকম শিশু নির্যাতনের নানা তথ্য।

শ্রম আইন অনুযায়ী কারখানাগুলোতে ১৮ বছরের নিচে শিশুশ্রম নিষিদ্ধ থাকলেও ওই কারখানাতেই কর্মরত আছে অন্তত ৪০০ শিশু। যাদের বয়স ৮ থেকে ১৫ বছরের মধ্যে। এসব শিশু শ্রমিকের ওপর প্রায়ই কারখানা কর্তৃপক্ষের লোকজন নির্যাতন করতো বলে অভিযোগ রয়েছে।

সূত্র জানায়, নানা অজুহাতে মালিকপক্ষ শিশু শ্রমিকদের প্রায়ই নির্যাতন করতো ওই কারখানায়। মালিকপক্ষ প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পেতো না। তাই একের পর এক শিশু শ্রমিকদের নির্যাতন করে আসছিল। তারই ধারাবাহিকতায় রোববার সাগর বর্মণকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়।

এদিকে সোমবার দুপুরে রূপগঞ্জের তারাব পৌরসভার যাত্রামুড়া এলাকার জোবেদা টেক্সটাইল মিলস থেকে পুলিশ ২৪ জন শিশু শ্রমিককে উদ্ধার করেছে।

উদ্ধার করা শিশু শ্রমিকরা হলো- আব্দুল্যাহ মিয়া (১৪), মিঠুন (১৪), হাসানুর রহমান (১৬), আল-আমিন (১৭), রুবেল মিয়া (১৭), মোঃ হোসেন (১৮), রিপন (১৭) সুমন (১৫), নাজমুল (১৬), শাকিব (১৬), নয়ন (১৫), সফিকুল ইসলাম (১৬), সাফায়েত হোসেন (১৪), বিদুৎ (১৫), বিশ্বফজত রায় (১৫), শরীফ (১৭), তোফায়েল হোসেন (১৬), রানা মিয়া (১৭), আনোয়ার হোসেন (১৫), মো. রানা (১৬), মুন্না মিয়া (১৭), মাহবুব (১৬), মাসুম (১৬), মিলন মিয়া (১৭)। পরে তাদের রূপগঞ্জ থানায় নেয়া হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার ফোরকান শিকদার জানান, শিশুশ্রম একেবারেই নিষিদ্ধ। এই কারখানা থেকে ২৪ জনকে উদ্ধারের পর তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।