Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

মনোহরদীর মাদ্রাসা ছাত্র হত্যা মামলার রায় : একজনের ফাঁসি ও সাতজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

মো. ইসমাইল হোসাইন খান, নরসিংদী থেকে :
নরসিংদীর মনোহরদীর মাদ্রাসা ছাত্র মাহফুজ আহমেদ (১৬) হত্যা মামলায় একজনের ফাঁসি ও সাতজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে নরসিংদী জেলা ও দায়রা জজ বেগম ফাতেমা নজিব সকল আসামীদের উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। এছাড়া যাবজ্জীবন সাজা প্রাপ্ত ৭ আসামীকে পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও ২ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়।
মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত আসামী হলেন, মনোহরদী উপজেলার কাহেতেরগাঁও  গ্রামের ফরিদ মিয়া (৫০)।
জাবজ্জীবন সাজা প্রাপ্তরা হলেন, একই এলাকার জাকির হোসেন ওরফে বাবুল (২০), সিয়াম মিয়া ওরফে বাবু (১৬), তৌহিদ মিয়া (১৮), মোস্তফা হোসেন (৪৫), সানাউল্লাহ মিয়া (১৮), দুলাল মিয়া (২৫) ও জয়নাল মিয়া (৩৫)।
মামলার বিবরণ ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১১ সালের ১০ নভেম্বর সন্ধ্যায় মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় মনোহরদী উপজেলার কাহেতের গাঁও গ্রামের সাত্তার মিয়ার ছেলে ও বড়চাপা বহুমুখী ইসলামীয়া আলিম মাদরাসার দশম শ্রেণীর ছাত্র মাহফুজ আহমেদকে উল্লেখিত আসামিরা ঘর থেকে বাইরে ডেকে নিয়ে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে। এ ঘটনায় পরদিন নিহতের বাবা বাদি হয়ে মনোহরদী থানায় ঘাতক ফরিদ মিয়াকে প্রধান আসামি করে আটজনের নাম উল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। আদালত ১৫ জন স্বাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে একজনকে ফাঁসি ও সাতজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেন।
বাদি পক্ষের আইনজীবী ও নরসিংদী জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ন.ম রহুল আমিন দণ্ডাদেশের বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রধান আসামি অনেক দুর্ধর্ষ প্রকৃতির। মাদক ব্যবসায় বাঁধা দেওয়ায় কারাগার থেকে বের হয়ে সে শিক্ষার্থী মাহফুজকে হত্যা করে। মাহফুজ তাঁর মা-বাবার এক মাত্র সন্তান ছিল। আদালতের রায়ে নিহতের পরিবারসহ আমরা সবাই সন্তুষ্ট।