Pages

Categories

Search

আজ- শুক্রবার ১৬ নভেম্বর ২০১৮

ভালুকায় স্কুলে যাওয়ার রাস্তা সংস্কার করেছে ছাত্রীরা

halimonnesa[1] halimonnesa[1]
মোঃ রফিকুল ইসলাম রফিক,বিশেষ প্রতিনিধি : প্রতিদিন বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করতে গিয়ে ছোট-খাট দুর্ঘটনাসহ প্রায়শই বিরম্বনায় পড়তে হয় শিক্ষার্থীদের। ভোগান্তিতে অতিষ্ঠ হয়ে অবশেষে নিজেরাই রাস্তা সংস্কারের কাজে নামে বিদ্যালয়ের স্কাউটদল সাথে যোগ দেয় সাধারন ছাত্রীরা। প্রচন্ড রোদকে উপেক্ষা করে প্রায় ৪/৫শত গজ রাস্তায় ইট-বালি বসিয়ে নিজেরাই সংস্কার করে নেয়। ঘটনাটি ঘটে সোমবার উপজেলা সদর সংলগ্ন ধামশুর হালিমুন্নেছা চৌধুরানী মেমোরিয়েল বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে।
সংশ্লিষ্ঠ সুত্র জানায়,বিদ্যালয়ের সন্নিকটস্ত ভালুকা-মল্লিকবাড়ী সড়কে উপজেলা সদরের ব্রিজ সংলগ্ন এলাকার সংযোগ স্থল থেকে বিদ্যালয়ে যাওয়ার বাইপাস সড়কটি বেহাল অবস্থায় পড়ে আছে দীর্ঘদিন যাবৎ। সংযোগ রাস্তাটি ঢালু প্রকৃতির হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে সড়কটি দিয়ে যাতায়াত করা দুরহ হয়ে পড়ে। প্রায়শই শিক্ষার্থীরা ছোট-খাট দুর্ঘটনার শিকার হয়ে আসছে। রাস্তাটির খানা-খন্দ এতোটাই খারাপ যে এ রাস্তা দিয়ে ছোট যানবাহন চলাচল করাও সম্ভব হয়না। রিক্সা বাইক কিংবা অটোবাইক কোন কিছুই রাস্তা দিয়ে চলাচল না করায় সাধারন জনগন ভোগান্তিতে আছে দীর্ঘদিন ধরেই। এ অবস্থায় সোমবার হালিমুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের গার্লস-ইন-স্কাউট দল নিজেরা কাজ করার জন্য উদ্যোগী হয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকার নিকট মতামত তুলে ধরে। স্কাউট দলের আগ্রহকে ¯^াগত জানিয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা আনোয়ারা নীনা নিজের অর্থায়নে ইট কিনে দেন এবং বিদ্যালয়ের অর্থায়নে এ ট্রাক বালির ব্যাবস্থা করেন। ইট বালি নিয়ে রাস্তা সংস্কারের কাজে নামে স্কাউট দলের ৩২সদস্যের ইউনিট। কাজ দেখে উৎসাহি হয় বিদ্যালয়ের অন্যান্য ছাত্রীরাও। তারাও স্ব প্রনোদিত ভাবে স্কাউট দলের সাথে সড়ক সংস্কারের কাজে যোগ দেয়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা আনোয়ারা নীনা অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষিাকাদের নিয়ে রাস্তায় কাজ মনিটরিং শুরু করেন। বিষয়টি ভালুকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুল আহসান তালুকদার অবগত হয়ে তিনি রাস্তা সংস্কারের জন্য ২ট্রাক বালির ব্যাবস্থা করে দেন এবং স্কাউট দলের এ উদ্যোগের ভুঁয়সী প্রসংশা করেন। এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষিকা আনোয়ারা নীনা বলেন,ছাত্রীদের আসা যাওয়ায় ভোগান্তি আর ছোট খাট দুর্ঘটনা থেকেই রাস্তা সংস্কারের জন্য উদ্যোগী হয় ছাত্রীরা। আমি এবং আমাদের ইউএনও স্যার তাদের এ আগ্রহকে উৎসাহিত করে গতি সঞ্চার করেছি। হালিমুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় স্কাউট দলের এ ব্যাতিক্রমী উদ্যোগ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে প্রশংসনীয় কমেন্টস ও লাইক আসতে থাকে