Pages

Categories

Search

আজ- শুক্রবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ভালুকায় কর্মস্থলে যাওয়ার পথে বাস উল্টে ২ শ্রমিক নিহত, সড়ক অবরোধ


মোঃ রফিকুল ইসলাম রফিক, বিশেষ প্রতিনিধি : কর্মস্থলে যাওয়ার পথে স্টাফ বাস উল্টে মিলের ২শ্রমিক নিহত ও কমপক্ষে ৩০জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার সকাল আনুমানিক ৭টার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে উপজেলার কাঠালী নাইবের বাজার এলাকায়।

স্থানীয় সুত্র জানায়, ঘটনার সময় একটি বাসে করে উপজেলার হবিরবাড়ী জামিরদিয়া এলাকায় ক্রাউন ওয়্যারস লিঃ এর শ্রমিকরা কর্মস্থলে যাচ্ছিল। এ সময় উল্লেখিত স্থানে পৌঁছুলে বাসের চালক বাসটি টার্ন নিতে গিয়ে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ফেললে রাস্তার মধ্যেই বাসটি উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই রিপন(৩৫) ও ভালুকা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে কামরুল ইসলাম(২৫) মারা যায়। নিহত রিপন(৩৫) বিক্রমপুর জেলার লৌহগঞ্জ উপজেলার কলমা গ্রামের আঃ বারেকের পুত্র। সে ভালুকায় শশুরবাড়ীর সুবাদে পৌর শহরের ১নং ওয়ার্ড ভান্ডাব এলাকায় বসবাস করে ওই মিলে চাকুরী করতো বলে জানা গেছে।

আহতদের অধিকাংশই নারী শ্রমিক।গুরুতর আহতাবস্থায় কামরুল ইসলাম(২৫)কে ভালুকা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে। নিহত কামরুল(২৫) ভালুকা পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড মুচারভিটা এলাকার আছর আলীর পুত্র। দুর্ঘটনায় আহতদের ভালুকা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয় অন্যান্যরা হলো জেসমিন(৩৩),নাজমা(২৩),মনি(২৫),মর্জিনা(২২),শাহানাজ((৫০),শাহ আলম(২০),রহিমা(৩০), সাদিয়া(২০), শিল্পী আক্তার(২৫),আয়েশা আক্তার(২৬), তুষার(২৩),শাহনাজ(২৮), জেসমিন(২৮), হোসনা(২৬), সাদ্দাম হোসেন(২৭),রায়হান(২৮), পারভেজ(৩০),সাকিব(১৮),আকলিমা(২৭), লাভলী(২৬),জীবন হাফসা(২৫),শহিদুল(২৭), মালেক(৩০)।আহতদের মধ্যে জেসমিন(৩৩), মনি(২৫), শাহনাজ(৫০), শাহ আলম(২০), আয়েশা আক্তার(২৬), সাকিব(১৮) ও শহিদুল(২৭) কে মুমুর্ষ অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ভালুকা মডেল থানা পুলিশ,হাইওয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে ছুটে যায় এবং স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় হতাহতদের উদ্ধার করে। পুলিশ নিহতদের লাশ ও দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে।

এদিকে দুর্ঘটনায় ক্রাউন ওয়্যারস লিঃ দু’শ্রমিক নিহত হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে জামিরদিয়া মাষ্টারবাড়ী এলাকায় মিল শ্রমিকরা বিক্ষুব্ধ হয়ে মহাসড়কে নেমে আসে এবং মহাসড়ক অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে মিল কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের ছুটি ঘোষনা করেন। অবরোধে মহাসড়কের উভয় পার্শ্বে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়। প্রায় এক ঘন্টা অবারোধ চলার পর পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে শ্রমিকদের সাথে কথা বলে অবরোধ প্রত্যাহার করায় এবং যান চলাচল স্বাভাবিক করে।