Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ভালুকায় ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী মাখন মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন

valukaময়মনসিংহ প্রতিনিধি:

ভালুকা উপজেলার ৬নং ভালুকা ইউনিয়নের আসন্ন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলহাজ্ব আমান উল্ল্যাহ খান মাখন তার বিরুদ্ধে ভালুকা ডট কম নামক একটি অন লাইন নিউজ পোর্টালে নৌকার কান্ডারী হতে চায় রাজাকার পুত্র শীর্ষক রিপোর্ট প্রকাশ করা হয় তার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিছেনে ভালুকা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার নাজিম উদ্দিন ও আলহাজ্ব আমান উল্ল্যাহ খান মাখন।

প্রতিবাদ লিপিতে ভালুকা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ৪ বারের সাবেক কমান্ডার নাজিম উদ্দিন ও আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৬নং ভালুকা ইউনিয়ন থেকে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলহাজ্ব আমান উল্ল্যাহ খান মাখন বলেন, মরহুম আঃ মোতালেব খান তারা মিয়া (তারা চেয়ারম্যান) স্বাধীনতা পূর্ববতী সময়ে ভালুকা থানা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। ৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে ভালুকা উপজেলার ভাওয়ালিয়াবাজু যুদ্ধে আফসার বাহিনীর প্রধান মেজর আফসার উদ্দিনের সাথে তিনি ও তার বড় ছেলে মোজাম্মেল হক খান বালা মাষ্টার (যার গেজেট নং ১৯৩৫, মুক্তিবার্তা নং ০১১৫০৬০৭৮৮) সরাসরি অংশ গ্রহন করেন। আঃ মোতালেব খান তারা মিয়া মুক্তিযুদ্ধের প্রথম দিকে প্রায় ৩/৪ মাস মুক্তিযুদ্ধ করার পর শারিরিক কারনে তিনি যুদ্ধে যেতে না পারলেও তার পরিবারের বড় সন্তান হিসেবে মোজাম্মেল হক খান বালা জীবন বাজি রেখে নয় মাস মুক্তিযুদ্ধ করেন।

স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে মুক্তিযুদ্ধে আফসার বাহিনীর প্রধান মেজর আফসার উদ্দিনের সাথে জাসদ এর রাজনীতির সাথে যুক্ত হন। এক পর্যায়ে মেজর আফসার উদ্দিন ময়মনসিংহ জেলা জাসদের সভাপতি হন এবং আঃ মোতালেব খান তারা মিয়া ভালুকা থানা জাসদের সভাপতি নিযুক্ত হন। আঃ মোতালেব খান তারা মিয়া কখনও রাজাকার ও স্বাধীনতা বিরোধী ছিলেন না। আঃ মোতালেব খান তারা মিয়া মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন।

মুক্তিযুদ্ধ হয়েছে ১৯৭১ সালে অথচ রিপোর্টিতে ১৯৬৮ সালের ঘটনা সামনে এনে একজন মৃত ব্যক্তিকে রাজাকার বানানোর হীন চেষ্টা চালানো হয়েছে, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।

রিপোর্ট প্রকাশের আগে তার (মাখনের) কোন মতামত নেয়া হয়নি এবং আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিপক্ষের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে রিপোর্ট বিশেষ উদ্দেশ্য প্রণোদিত সংবাদটি প্রকাশ করেছেন বলে উল্লেখ করেন।

রিপোর্টটি মানহানিকর ও মিথ্যা উল্লেখ করে এর তীব্র নিন্দা প্রতিবাদ জানিয়ে প্রতিবেদকের শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।

এমএইচ/এইচ এম মোমিন তালুকদার/ময়মনসিংহ প্রতিনিধি