Pages

Categories

Search

আজ- মঙ্গলবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বিলুপ্তির পথে ঐতিহ্যবাহী ঢেঁকি


আহসান হাবিব, পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) সংবাদদাতা : কালের বিবর্তনে জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে হারিয়ে যাচ্ছে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী ঢেঁকি। এখন আর নবান্ন উৎসব, পৌষ পার্বন অনুষ্ঠানে ঢেঁকিতে ধান ও চাল ভাঙ্গার শব্দ শোনা যায় না। এক সময় উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলে প্রতিটি পরিবারেই ধান ভাঙ্গতে ঢেঁকির প্রচলন ছিল। পরিবারের নারীরা ধান, গম, ভুট্টা, চালসহ বিভিন্ন শস্য ভাঙ্গার কাজ ঢেঁকিতেই করত। শব-ই-বরাত, শব-ই- কদর , ঈদ, পূজা, নবান্ন উৎসব পৌষ পার্বনসহ বিশেষ বিশেষ অনুষ্ঠানে পিঠা-পুলি খাওয়ার জন্য অধিকাংশ বাড়িতে ঢেঁকিতে চাল ভাঙ্গার ধুম পরে যেত। গ্রামের বধূদের ধান ভাঙ্গার গান আর ঢেঁকির ছন্দময় শব্দে চারিদিকে হৈ চৈ পরে যেত। দরিদ্র নারীরা চাল কিংবা টাকার বিনিময়ে ঢেঁকিতে আটা ও ধান ভাঙ্গিয়ে দিত । দারিদ্র পরিবারের অনেকেই ঢেঁকিতে চাল ভাঙ্গিয়ে জীবিকা নির্বাহ করত। কিন্তু কালের বিবর্তনে যান্ত্রিকী করণের ফলে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী ঢেঁকি আজ বিলুপ্তির পথে । গ্রামগঞ্জে এখনো দুই একটি বাড়িতে ঢেঁকি দেখা গেলেও ঢেঁকির প্রচলন নেই । হাজিপুর এলাকার প্রবীণ লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, এক সময় এই অঞ্চলে ঢেঁকিতে ধান ভাঙ্গার ব্যাপক প্রচলন ছিল । বিভিন্ন উৎসবে প্রতিটি বাড়িতে জামাই, মেয়ে ও অথিতিদের উপস্থিতিতে বাড়ি ছিল কোলাহল পূর্ণ । গভীর রাতে ঢেঁকিতে ধান ভাঙ্গার শব্দ শোনা যেত। কিন্তু কালের বিবর্তন ও সময়ের চাহিদা অনুযায়ী আধুনিক যন্ত্রপাতির আবির্ভাব হওয়াই ঢেঁকি হারিয়ে গেছে। তার পরও প্রত্যন্ত অঞ্চলে দু একটি বাড়িতে এখনো ঢেঁকি দেখা যায়।