Pages

Categories

Search

আজ- বৃহস্পতিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বিতর্কে দেশ সেরা লালমনির হাটের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কালীগঞ্জ কে ই্উ পি স্কুল

1-1
রাহেবুল ইসলাম টিটুল, লালমনিহাট প্রতিনিধি: কালীগঞ্জ করিম উদ্দিন পাবলিক পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়কে সংক্ষেপে কে ইউ পি স্কুল বলা হয়। লালমনিরহাট জেলার এ স্কুলটিতে বিতর্ক চর্চা যেন এখন নিয়মিত আবশ্যিক কাজে পরিনত হয়েছে। এ স্কুলের বিতর্ক চর্চার ইতিহাস অনেক পুরাতন হলেও নিবিড় ভাবে চর্চা শুরু হয় ২০১০ সাল থেকে।
২০১০ সালে ব্র্যাক-পেইস প্রোগ্রামের আওতায় কে ইউ পি স্কুলের একটি দল সহকারী শিক্ষক বদলুল আলম যাদুর নেতৃত্বে রংপুর বি.এল.সি’তে মেন্টরিং ট্রেনিং নেয়ার জন্য যায়। ৩০ জনের একটি শিক্ষার্থী কাফেলা রংপুর বি.এল.সি’তে পৌঁছা আর কে,ইউ,পি স্কুলরে স্বপ্নপুরণের বাতায়নগুলো একে একে যনে খুলে যেতে লাগল। শিক্ষার্থীদের মেন্টরিং ট্রেনিংটি না গ্রহণ করে উপলব্ধি করার জো নেই যে সেটি কত গুরুত্বপূর্ণ ও ইনফরমেটিভ ছিল। ট্রেনিং গ্রহণ করার পর তাদের পাল্টে গেল ধারণা। একাই বড় হওয়ার বাসনাকে বাদ দিতে শুরু করল, হিংসুটে মনোভাবে পোকা ধরল, সবাই যেন সবার পরিপুরকের ভুমিকায় অবতীর্ণ হতে লাগল। “আমরা সবাই রাজা আমাদের এই রাজার রাজত্বে” এমন গান তাদের কন্ঠে ভাসতে শুরু করল। ধিতাং ধিতাং বোলে ৬ দিনের প্রশিক্ষণ কেটে গেল। সবচেয়ে মজার বিষয় ছিল সৃজনশীল লেখা ও দেয়াল পত্রিকা নির্মাণ ও বিতর্কের চর্চা শিক্ষার্থীদের সবচেয়ে বড় উপকার হয়েছে বিতর্ক প্রতিযোগিতার অনুশীলন করা। ২০১২ সালে ব্র্যাক-পেইস প্রোগ্রামের ‘বিতর্ক বিকাশ’ এক অনন্য সুযোগ এনে দেয়। এই প্রোগ্রামের মাধ্যমে কালীগঞ্জ কে.ইউ.পি স্কুলরে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সোমা, সম্রাট, হ্যাপী, রুমা, তুহিন ও তিথিদের একটি দল প্রথম বছরেই জাতীয় চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় গৌরব অর্জন করে। শুধু প্রথমবারের পর পুনরায় ২০১৩ সালে সোমা, রুমা, রাব্বীর, টুম্পা ও সঞ্চয় এর একটি দল জাতীয়ভাবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। ধারাবাহিকভাবে চলতে থাকে জয় রথ। ২০১৪ সালে প্রথম আলো ও পেপসোডেন্ট এর আয়োজনে জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিভাগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে জাতীয় পর্যায়ে কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত অংশগ্রহণ এই টিম। এবার দল চ্যাম্পিয়ন না হলেও বারোয়ারী বিতর্কে জান্নাতুল নাঈম সোমা জাতীয়ভাবে সেরাদের সেরা হওয়ার গৌরব অর্জন করে। অর্থাৎ ২০১৪ সালেই বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র, রংপুর অঞ্চলের আয়োজনে বিতর্ক প্রতিযোগীতায় কে,ইউ,পি স্কুল চ্যাম্পিয়ন হয় এবং শ্রেষ্ঠ বক্তাদের মধ্যে বারোয়ারী বিতর্ক হলে সেখানেও আলীরাজ আনছারী চ্যাম্পিয়ন হয়। জাতীয় পর্যায়ে বাংলাদেশ শিশু একাডেমীর আয়োজন ২০১৩ সালে উপস্থিত বিতর্কে কে ইউ পি স্কুলের দল জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণ করে। ২০১৩ সালে ইসলামিক ফাঊন্ডেশন আয়োজিত তাৎক্ষণিক বক্তৃতায় জাতীয় ভাবে শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয় শাহনেওয়াজ সম্রাট। শুধু দলগতভাবে নয় একক অর্জনেও সেরা শিক্ষার্থীরা। ২০১৫ সালে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী আয়োজিত একক বক্তৃতায় আমীর সোহেল রাব্বী জাঁতীয় ভাবে স্বর্ণ পদক লাভ করে। আমীর সোহেল রাব্বী উক্ত প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয়েছিল। ২০১৬ সালের শুরুতেই আফিয়া জাহিন রোদসী জাঁতীয় শিক্ষা সপ্তাহ উপলক্ষে একক বিতর্কে” জাঁতীয় ভাবে অংশগ্রহণ করে তাঁরা বিভাগীয় পর্যায়ে সেরাদের তালিকায় থাকে। গত ৬ ও ৭ মে, ২০১৬ তারিখে জাঁতীয় মানবাধিকার কমিশন, বিডিএফ ও ইউনিসেফ আয়োজিত জাঁতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় রংপুর অঞ্চল চ্যাম্পিয়ন হয় । জাতীয়ভাবে উক্ত আয়োজনে তাঁরা প্রথম রানার আপ। ‘সমকাল বিজ্ঞান বিষয়ক বিতর্ক ২০১৬’ এ তাঁরা রংপুর জেলা চ্যাম্পিয়ন হয় । তাঁদের বির্তক বাসনা অদম্য। দেশের প্রান্তিক অঞ্চলে প্রতিষ্ঠানটি অবস্থিত হলেও বির্তক কর্মে প্রতিষ্ঠানের নাম ছড়িয়েছে সারা দেশে।