Pages

Categories

Search

আজ- বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮

বদলগাছীতে গভীর নলকুপ বন্ধ রেখে বোরো ধান নষ্ট করার অভিযোগ

এপ্রিল ১৭, ২০১৮
অনিয়ম, কৃষি, নওগাঁ
No Comment

আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধিঃ নওগাঁর বদলগাছীতে ডীপ টিউবওয়েলের পানি বন্ধ রাখায় ১শ বিঘা জমির বোরো ধান পুড়ে নষ্ট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, উপজেলার বালুভরা ইউপির ভরট্র গ্রামের ডীপ টিবউওয়েলের অপারেটর বালুভরা ইউপি মহিলা সদস্য রাজিয়া সুলতানা উক্ত মৌজায় বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বরেন্দ্র) কর্তৃক ডীপ টিবউওয়েল এর অপারেটর হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত হন।

উক্ত ডীপ টিউবওয়েলের আওতায় প্রায় তিনশ বিঘা জমিতে সেচ কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। তিনি কৃষকদের নিকট থেকে ধান রোপনের সময় বিঘা প্রতি একহাজার টাকা করে আদায় করেন। টাকা গ্রহনের রশিদ প্রদানের নিয়ম থাকলেও কোন কৃষককে রশিদ প্রদান করেন নাই। কয়েকদিন আগে থেকে রাজিয়া সুলতানা কৃষকদের নিকট থেকে বিঘা প্রতি অতিরিক্ত তিনশ টাকা করে দাবী করে। সরেজমিনে কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, এদের মধ্যে অধিকাংশ কৃষক টাকা পরিশোধ করলেও তাদের ক্ষেতেও পানি দেয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেন। ১৫-২০ দিন যাবত পানি দেয়া বন্ধ করে দেয়ার ফলে ধান ক্ষেত শুকিয়ে ফাটল ধরেছে এবং ধান গাছ মরে যাচ্ছে। এতে কৃষকেরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

তারা আরো বলেন, গত বছরেও একই ঘটনা ঘটানোর ফলে আমরা ধানের ফলন কম পেয়েছি। বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী ইশারত আলী, সাইদুল ইসলাম, আতোউর রহমান, কাজী উজ্জল, জুয়েল, শহীদুল, গনেশ চন্দ্র, সুরুজ, সোহেলসহ প্রায় শতাধিক কৃষক জানায় বিঘা প্রতি ৮ থেকে ৯ হাজার টাকা ব্যয় করে এবারো যদি আশানুরূপ ফলন না পাওয়া যায় তাহলে আমাদেরকে পথে বসতে হবে। এ বিষয়ে গত ১৫ এপ্রিল বরেন্দ বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ও বদলগাছী উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন ভূক্তভোগী শতাধিক কৃষক। এ বিষয়ে অপারেটর রাজিয়া সুলতানার সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমি এখন ব্যস্ত আছি পরে আপনার সাথে কথা বলা হবে। সাব-এ্যাসিস্টেন্ট প্রকৌশলী আতোয়ার রহমান বলেন, উল্লেখিত বিষয়ে তদন্ত করে দেখা যায় আসলে ১৫-২০ দিন যাবত ডীপ টিউবওয়েল চালু না রাখা এবং বোরো ধানে পানি না দেয়ায় ধান ক্ষেত মারাত্মকভাবে ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে পড়েছে।

বদলগাছী বরেন্দ্র উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি এবং আমার সাব-এ্যাসিস্টেন্ট প্রকৌশলী আতোয়ার রহমান ও ফিরোজ হোসেনকে সরেজমিনে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি। তারা সরেজমিনে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এ বিষয়ে বদলগাছী উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা অলি আহমেদ রুমী চৌধূরী বলেন, বরেন্দ্র অফিসের নিয়মনীতি বহির্ভূত ও মনগড়া লোকজন দ্বারা ডীপ টিউবওয়েল পরিচালনা করার জন্য এ ধরনের অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটছে এবং কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এর একটি প্রতিকার হওয়া উচিত।