Pages

Categories

Search

আজ- শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বদলগাছীতে অবৈধ ইটভাটায় জনস্বাস্থ্য হুমকীর মুখে

ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১৮
অনিয়ম, নওগাঁ, পরিবেশ
No Comment

মোঃ এমদাদুল হক দুলু ,  বদলগাছী (নওগাঁ) প্রতিনিধি:  নওগাঁর বদলগাছীতে সেনপাড়া বদলগাছী-আক্কেলপুর সংযোগ সড়কের কোল ঘেষে বসতবাড়ীর পার্শ্বে অবৈধভাবে গড়ে উঠা খান ব্রিক্স নামে ইটভাটায় জ্বালানী হিসাবে পোড়ানো হচ্ছে কয়লার পরিবর্তে সোয়াবিনের গাদ। এর গন্ধে জনস্বাস্থ্য হুমকীর মূখে পড়েছে। অতিষ্ট হয়ে পড়েছে এলাকাবাসী। এছাড়া সড়কের পার্শ্বে বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের রোপনকৃত উর্তি বয়সের তালগাছ গুলি উপড়ে ফেলেছে। সড়কের পার্শ্বে মাটি ঢেলে রাখতে বেপরোয়া মাটি বহনকারী ট্রাকের ধাক্কায় তালগাছগুলি উপড়ে পড়েছে বলে এলাকাবাসীর মধ্যে অভিযোগ উঠেছে। বসতবাড়ী সংলগ্ন খান ইটভাটার মালিক আধাইপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান সামসুল আলম খান পরিবেশ সংরক্ষণ ও ইটভাটা নিতিমালা অনুসারে লোকালয়ে বা সড়কের পার্শ্বে কোন ইটভাটা নির্মান করা যাবে না। ৩ ফসলি কৃষি জমি নষ্ট করে অবৈধ ভাবে গড়ে উঠা এই ইটভাটার কোন কাগজপত্র নেই। ইটভাটা নির্মানে পরিবেশগত ছাড়পত্র, লাইসেন্স বৈধ কোন কাগজপত্র আছে কি না তা জানতে চাইলে ইটভাটার মালিক সামসুল আলম খান জানান পরিবেশগত ছাড়পত্র আছে লাইসেন্স নেই। সরকারী সড়কের সীমানা কেটে চিমনী তৈরী করা হয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন তার সীমানা সড়কের ধার পর্যন্ত। এলাকাবাসীর অভিযোগ পরিবেশগত অধিদপ্তরই পরিবেশ গিলছে। জন্যই নিয়মনিতি উপক্ষো করে কৃষি জমির উপর বসতবাড়ীর পার্শ্বে সড়কের কোলঘেষে গড়ে উঠছে এই ইটভাটা। ইটভাটায় জ্বালানী হিসাবে পোড়ানো হচ্ছে বৃক্ষ নিধন করে কাঠ। বর্তমানে পোড়ানো হচ্ছে কয়লার পরিবর্তে সোয়াবিনের গাদ। যার দূর্গন্ধে পথচারী সহ এলাকাবাসী অতিষ্ট হয়ে পড়েছে। হুমকীর মূখে পড়েছে জনস্বাস্থ্য। ফসলের ক্ষতি হচ্ছে। আম কাঁঠাল সহ বিভিন্ন ফলদ গাছের পাতা কুকড়ে যাচ্ছে। ইটভাটার ধুলোবালিতে আক্রান্ত পরিবারগুলি ঘরের জানালা খুলতে পারছেন না। সেনপাড়া গ্রামের গৃহবধু অনিকা রানী, গিতিকা রানী, ববিতা বলেন ইটভাটার গন্ধে বাড়ীতে থাকা যায় না। ধুলো বালি বাড়ীতে পড়ে। ঘরের জানালা খোলা যায় না। বাড়ী ঘরের টিনের ছাউনি নষ্ট হচ্ছে ধুলোবালি পড়ে। চিমনীর কালি বাতাসে উড়ে এসে পড়ে নষ্ট হচ্ছে গাছ গাছড়া। আরতী দেব্যা বলেন দূর্গন্ধে ও খাওয়া যায় না। শ্বাস নিতে ও কষ্ট হয়। পথচারীসহ সেনপাড়া গ্রামের অর্জুন কুমার জানান ভাটার বেপোয়ারা কাজ কর্মে ও সড়কের ধারে মাটি কাটার কারনে চলাচল যেমন ব্যাহত হচ্ছে তেমনি হুমকীর মুখে পড়েছে সড়ক। দূর্গন্ধে দম বন্ধ হয়ে আসে। এতে আশেপাশের লোকজন অসুস্থ হয়ে পড়ছে। এবিষয়ে ভাটার মালিক সামসুল আলম সোয়াবিনের গাদ পুড়ানোর কথা স্বীকার করে বলেন বর্তমানে তা পোড়ানো বন্ধ করা হয়েছে। সড়কের পার্শ্বে বরেন্দ্রের কয়েকটি তালগাছ উপড়ে ফেলার কারনে কি পদক্ষেপ নেওয়া হলো জানতে চাইলে বদলগাছী বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সহকারী প্রকৌশলী মোঃ হারুন অর রশিদ (বিএমডিএ) জানান এ বিষয়ে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুম আলী বেগ এর সংগে মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি জানান বিষয়টি আমি দেখব। রাজশাহী বিভাগীয় পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মোঃ আশরাফুজ্জান এর সংগে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান খান ইটভাটায় পরিবেশগত ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে কিনা তা দেখতে হবে। তবে কোন ইটভাটা কি অবস্থায় চলছে তা জানতে চেয়ে জেলা প্রশাসক বরাবরে চিঠি দেওয়া হয়েছে। নওগাঁ জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান এর সংগে মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি জানান বিষয়টি গুরুত্বের সংগে দেখবেন।