Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বকেয়া বেতনের দাবীতে শ্রীপুরে ইউনিয়ন গার্মেন্টসের মালিক অবরোদ্ধ

অক্টোবর ২৫, ২০১৭
পোষাক অর্থনীতি, শ্রীপুর
No Comment

বশির আহমেদ কাজল, শ্রীপুর : গাজীপুরের শ্রীপুরে বকেয়া বেতনের দাবীতে ইউনিয়ন গার্মেন্টসের মালিক আব্দুর রহিমকে প্রায় ৮ ঘন্টা কারখানার ভিতর অবরোদ্ধ করে রাখে শ্রমিকরা। ২৫ অক্টোবর বুধবার সকালে উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের মুলাইদ এলাকার ইউনিয়ন গার্মেন্টস লি: কারখানায় এ ঘটনা ঘটে। শ্রমিকদের আন্দোলনের মুখে কারখানার মালিক সকাল ১১টা থেকে বিকাল ৭টা সংবাদ লেখা পর্যন্ত প্রায় ৮ ঘন্টা কারখানার ভিতরে অবরোদ্ধ আছে।
খবর পেয়ে গাজীপুর শিল্প পুলিশ দাঙ্গা পুলিশ ও শ্রীপুর মডেল থানার পুলিশ কারখানার সামনে অবস্থান নেয়। জানা যায়, ইউনিয়ন গার্মেন্টেসে প্রায় ১৪’শ শ্রমিক বিভিন্ন শিফটে কাজ করে। কারখানার শ্রমিকরা গত ২ মাস যাবত ও অন্যান্য স্টাফদের ৩ মাস যাবত বেতন বকেয়া রয়েছে। কারখানা কর্তৃপক্ষ বারবার তারিখ দিয়েও শ্রমিকদের ও স্টাফদের বেতন ভাতা প্রদান না করায় শ্রমিকরা ক্ষুব্ধ হয়ে পড়ে। বুধবার সকাল থেকে কারখানার সামনে শ্রমিকরা বকেয়া বেতনের দাবীতে জড়ো হতে থাকে। পরে সকাল ১১টার দিকে কারখানার মালিক আব্দুর রহিম কারখানায় প্রবেশ করার সাথে সাথেই বিক্ষোব্ধ শ্রমিকরা প্রধান ফটকে তালা লাগিয়ে দেয়।
এসময় তারা বেতন আদায় না হওয়া পর্যন্ত তালা না খোলার ঘোষনা দিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে। কারখানার শ্রমিক জোনাকী আক্তার জানান, প্রতি মাসেই বেতনের টাকার জন্য আমাদেরকে আন্দোলন করতে হয়। গত দুই মাস আগেও বেতন না পেয়ে আন্দোলন করলে কারখানার মালিক পুলিশ দিয়ে আমাদেরকে হয়রানি করেছে।
কারখানার শ্রমিক সুইং অপারেটর আসমা জানান গত জানুয়ারী থেকে এপর্যন্ত ৫ বার আমরা বকেয়া বেতনের জন্য শান্তি পূর্ণভাবে আন্দোলন করছি ইতিপূর্বে বেতন না দিয়ে পুলিশ দিয়ে লাঠিপেটা করেছে পুলিশের ছোরা গ্যাসে শ্রমিক সহ পাশের মাদ্রাসা অনেক ছাত্রও সেদিন আহত হয়েছিল। সুইং হেলপার শিউলি জানায় ইউনিয়ন কারখানার শ্রমিকদের দোকানদার বাকিতে কোন সদায় দিতে চায় না। নাম প্রকাশে না করে শ্রমিকরা জানান এডমিন বজলু স্যার বকেয়া বেতনের বার বার তারিখ দিয়েও ১০ তারিখের বেতন ২৮/২৯ তারিখে দেয় তার উপর দিয়ে কোন কথা বলা যায় না সে স্থানীয় ছেলে এই বলে ক্ষমতার দাপট দেখায়।
ইউনিয়ন গার্মেন্টেসের এডমিন অফিসার বজলুর রহমান জানান, কর্তৃপক্ষের কথামত শ্রমিকদের বেতনের তারিখ দেয়া হয় পরে ওই তারিখে বেতন না পেলে শ্রমিকরা আমার উপর ক্ষোভ প্রকাশ করে আমি কারো সাথে খারাপ আচরন করিনি যদি কেহ বলে থাকে সঠিক বলেনি। তিনি আরো জানান ব্যাংকের এলসি বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণে শ্রমিকদের নির্ধারিত সময়ে বেতন দিতে বিলম্ব হচ্ছে। এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের সাথে আলোচনা করছেন, অতিদ্রæত সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে। শ্রমিকদের বকেয়া বেতনের দাবির ব্যাপারে কারখানার মালিক আব্দুর রহিমের সাথে যোগাযোগ করা যায়নি কারন তখন সে অবরোদ্ধ ছিল।
গাজীপুর শিল্প পুলিশের গিভেন্সী ক্যামপের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক সেলিম রেজ জানান অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কারখানার সামনে পুলিশ অবস্থান করছে। বিক্ষোব্ধ শ্রমিকরা কারখানার মূল গেইটে তালা লাগানোর কারণে সাংবাদিক পুলিশ কেহই ভিতরে প্রবেশ করতে পারছেনা এমনকি ভিতর থেকে কেউ বাইরেও আসতে পারছে না পুলিশের পক্ষথেকে চেস্টা চলছে সমস্যা সমধান করার জন্য।