Pages

Categories

Search

আজ- সোমবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

পৌরসভা নির্বাচনে বগুড়ায় সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি

ডিসেম্বর ১৯, ২০১৫
নির্বাচন, বগুড়া
No Comment

2015_12_06_08_30_01_ZjSEXjq7tZcIu0Fx4IAPJsNCV0u1kR_originalঅাবু ইউসুফ, বগুড়া প্রতিনিধি:
পৌরসভা নির্বাচনে বগুড়ায় সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানিয়েছেন বিএনপি দলীয় প্রার্থী। আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনের প্রচারণায় সরকারদলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্গন, প্রচারণায় বাধাপ্রদান ও নির্বাচনী কর্মীদের মারপিটের অভিযোগ এনে নির্বাচনের দিন বগুড়া পৌরসভার ১৫নং ওয়ার্ডের ৭টি ভোট কেন্দ্রে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি করেছেন ওই ওয়ার্ডের বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী (বর্তমান কাউন্সিলর) কারারুদ্ধ মাসুদ রানার স্ত্রী রেহেনা বেগম। শনিবার দুপুরে বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি এ দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে কাউন্সিলর প্রার্থী মাসুদ রানার স্ত্রী অভিযোগ করেন, নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে গিয়ে বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী মাসুদ রানার কর্মীরা প্রতিনিয়ত বাধার সম্মুখীন হচ্ছেন।
সরকারদলীয় কাউন্সিলর প্রার্থী আমিনুল ইসলামের লোকজন মাসুদ রানার পোস্টার ছিঁড়ে আগুন দিয়েছে। ১৭ ডিসেম্বর বিকেলে মাসুদ রানার পাঞ্জাবি প্রতীকের প্রচারণাকালে মাইক ভাংচুর এবং রিকশা চালককে মারপিট করা হয়। ১৮ ডিসেম্বর প্রচারণাকালে মাসুদ রানার মহিলা কর্মীদের মারপিট করে শ্লীলতাহানী করে সরকারদলীয়
প্রার্থীর কর্মীরা। তিনি আরও অভিযোগ করেন, নির্বাচনী আচরণবিধি অনুযায়ী কাউন্সিলরদের প্রতি ওয়ার্ডে একটি করে নির্বাচনী অফিস করার বিধান থাকলেও আমিনুল ইসলাম ৮টি নির্বাচনী অফিস করেছেন। এসব অফিসে প্রতিদিন ভিসিডি প্লেয়ার বাজানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, সরকারদলীয় প্রার্থীর লোকজন মোবাইল ফোনে বিএনপি প্রার্থীর কর্মীদের হুমকি দিচ্ছে। এমনকি মাসুদ রানার পরিবারের সদস্যদেরও প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হচ্ছে। মাসুদ রানার পরিবারের পক্ষ থেকে
এলাকার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও রিটার্নিং অফিসারের হস্তক্ষেপ কামনা করে নির্বাচনের দিন ১৫ নং ওয়ার্ডের ৭টি ভোটকেন্দ্রে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে কাউন্সিলর প্রার্থী মাসুদ রানার একমাত্র ছেলে রিমন হোসেন ছনিসহ এলাকার বেশ ক’জন নির্বাচনী কর্মী উপস্থিত ছিলেন।