Pages

Categories

Search

আজ- শুক্রবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

পেট্রোল বোমায় নিহতের একবছর পর কবর থেকে মা ছেলের লাশ উত্তোলন

palash[1]

নূরে-আলম রনী, পলাশ সংবাদদাতাঃ নরসিংদীর পলাশ উপজেলার বালুচর পাড়া এলাকার মৃত আরমান মিয়ার বড় মেয়ে আসমা বেগম ও নাতি শান্ত কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে পেট্রোল বোমায় নিহতের ঘটনার একবছর পর কবর থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করেছে স্থানাীয় প্রশাসন। কুমিল্লার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুনতাসির আহমেদ এর নির্দেশে আজ মঙ্গলবার সকালে পলাশ উপজেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রশান্ত কুমার দাসের উপস্থিতিতে এই লাশ উত্তোলন করা হয়।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই ইব্রাহিম জানান, ২০১৫ সালে ৩ ফেব্রুয়ারি রাতে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের ঢাকা- চট্রোগ্রাম মহাসড়কে একদল দুবৃত্ত যাত্রীবাহি আইকন পরিবহনে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করলে এতে ৮ জন যাত্রী নিহত ও ২১ জন যাত্রী অগ্নিদগ্ধ হয়। ঘটনারপর একজনের লাশ ময়নাতদন্ত করা হয় এবং বাকি ৭ জনের লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মামলার সুষ্ঠ তদন্ত ও ন্যায় বিচারের জন্য আদালত বাকি ৭ জনের লাশ কবর থেকে উত্তোলনের নিদের্শ দিলে নির্বাহী ম্যাজিট্রেটের সহযোগীতায় পলাশ থেকে ২ জনের লাশ উত্তোলন করা হয়। লাশগুলো ময়না তদন্ত শেষে পূনরায় দাফন করা হবে।
উল্লেখ্য যে, ঐদিন  আছমা বেগম কক্সবাজারে তার মামা শ্বশুরের বাড়ি থেকে ২ সন্তান শান্ত ও মুন্নাকে সাথে নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। এতে ছেলে মুন্না বেঁচে গেলেও আছমা বেগম ও শান্ত আগুনে পুড়ে মারা যায়।