Pages

Categories

Search

আজ- সোমবার ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮

পুলিশের গাজীপুর মেট্টোপলিটনের কার্যক্রম শুরু

মঞ্জুর হোসেন মিলন : ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গাজীপুর ও রংপুর মেট্টোপলিটন পুলিশের নতুন দুইটি ইউনিটের কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৬ সেপ্টেম্বর রোববার গণভবন থেকে গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) এবং রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ ইউনিটের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হলো। সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। রোববার গাজীপুর পুলিশ লাইন্সের মাঠে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর সাথে যুক্ত হন। ১ হাজার ১৫২ জনবল নিয়ে জিএমপি কার্যক্রম আজ থেকে শুরু হচ্ছে। এ উপলক্ষে গাজীপুর জেলা পুলিশ লাইনস ময়দানে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উদ্বেধনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে গাজীপুরে আয়োজন করা হয় বর্ণাঢ়্য অনুষ্ঠানের। গাজীপুরের পুলিশ লাইনস্ মাঠে আয়োজিত অনুষ্ঠান থেকে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার কয়েক হাজার মানুষ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যর মধ্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাভোকেট আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক, মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, গাজীপুর সিটি মেয়র মো: জাহাঙ্গীর আলম, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান, গাজীপুরের পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের যুক্ত হয়ে কথা বলেন গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান ও লিপি আক্তার নামে একজন পোশাক কর্মী।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে বের হয় একটি বর্ণাঢ়্য আনন্দ শোভাযাত্রা। শোভাযাত্রাটি পুলিশ লাইনস থেকে বের হয়ে ঢাকা-গাজীপুর সড়ক প্রদক্ষিণ করে। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ উদ্বোধন উপলক্ষে গাজীপুর চান্দনা চৌরাস্তা জাগ্রত চৌরঙ্গী মোড় ও সড়ক দীপগুলো ডিজিটাল ব্যানার দিয়ে বর্ণাঢ্য সাজে সজ্জিত করা হয়েছে। ব্যানারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইজিপি’র ছবি এবং পুলিশের নানা সেবার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। সিটি করপোরেশনের নলজানি এলাকাস্থ জিএমপির প্রধান কার্যালয়টিতে করা হয়েছে আলোক সজ্জা।
এ ছাড়া সন্ধ্যায় পুলিশ লাইনস মাঠে আয়োজন করা হয়েছে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। অনুষ্ঠানে দেশের খ্যাতনামা শিল্পীরা সঙ্গীত পরিবেশন করবেন।
গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান জানিয়েছেন, সিটি করপোরেশনে আটটি থানা এলাকা এবং ১ হাজার ১৫২ জনের লোকবল নিয়ে যাত্রা শুরু করছে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ। থানাগুলো হলো- সদর থানা, বাসন থানা, কোনাবাড়ি থানা, কাশিপুর থানা, গাছা থানা, টঙ্গী পূর্ব থানা এবং টঙ্গী পশ্চিম থানা।
এ উপলক্ষে গাজীপুর চান্দনা চৌরাস্তা জাগ্রত চৌরঙ্গী মোড় ও সড়ক দীপগুলো ডিজিটাল ব্যানার দিয়ে বর্ণাঢ্য সাজে সজ্জিত করা হয়েছে। ব্যানারে জতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইজিপির ছবি এবং পুলিশের নানা সেবার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। জিএমপির প্রধান কার্যালয়টি আলোক সজ্জায় সজ্জিত করা হয়েছে। বহু কাঙক্ষিত গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের যাত্রা শুরু হচ্ছে জেনে নগরবাসীর মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ বিরাজ করছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার দুপুরে গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশের কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান তার কর্যালয়ের কনফারেন্স রুমে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে ১৬ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জিএমপির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করার কথা জানিয়ে ছিলেন। উদ্বোধন শেষে বেলালুর রহমান বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করা হবে। এখানে কোন প্রকার ছাড় দেয়া হবে না। এমনকি সে পুলিশ সদস্য হলেও পার পাবে না। পুলিশী হয়রানী বন্ধে গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশ বদ্ধপরিকর। সন্ত্রাস-জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান হবে অত্যন্ত সুদৃঢ়। এ ক্ষেত্রেও জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করা হবে।
কমিশনার বেলালুর রহমান গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশ পেশাদারিত্বের সাথে, দক্ষতার সাথে এবং নিরপেক্ষভাবে কাজ করবে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন। ৯টি থানার মাধ্যমে নাগরিকদের নিরাপত্তা ও আইনী সেবা দিবেন।