Pages

Categories

Search

আজ- সোমবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

পানছড়ির চেঙ্গী নদীতে রাবার ড্যাম কৃষকদের উন্নয়নের দ্বার উমোচন

জানুয়ারি, ২৯, ২০১৪
কৃষি, চট্রগ্রাম
No Comment

PANCHARI_29.01.014[1]

আল-মামুন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি :
খাগড়াছড়ির পানছড়ি উপজেলার চেঙ্গী নদীর পাশ্ববর্তী কৃষকদের কৃষি কাজে উৎসাহ এবং কৃষি ফসল উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য দীর্ঘ প্রতিক্ষিত রাবার ড্যামের মাধ্যমে এলাকার উন্নয়নের দ্বার উমোচন হয়েছে বলে মনে করছে কৃষক সমাজ। জানাযায়, আদিকাল থেকে চেঙ্গী নদীর অববাহিকার আশপাশ এলাকার হাজার হাজার একর জমি অনাবাদি অবস্থায় পড়ে ছিল। যার কারণে উৎপাদন চরম ভাবে ব্যাহত হতো।
ফলে অর্থনৈতিক ভাবে এলাকার মানুষ ছিল দূর্ভল। তাই অধিক ফসল ফলিয়ে অর্থ উর্পজন করতে এবং মাছ চাষ করে  মানব শরীরে পুষ্টি ও আমিষ পূর্ণতা করার ল¶ে পরিকল্পনা মোতাবেক সরকারের কৃষি মন্ত্রনালয়ের প্রস্তাব অনুযায়ী এলজিইডি‘র’ পূর্ণ সহযোগীতায় ৯কোট ৮৩লাখ ৮৭হাজার ৩শত ৮৫পয়সা বরাদ্ধের অনুকোলে খাগড়াছড়ি‘র’ নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ ছোহরাব আলী এবং পানছড়ি উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ আনোয়ার হোসেনের তত্ববধানে প্রায় দু-বছর কাজ করার পর খাগড়াছড়ি ফারিসা ট্রেস সিষ্টেম লিঃ সম্পর্ণ  করেছে প্রকল্পটির কাজ।
অনুসন্ধানে জানাযায়, ভারতের ত্রিপুরা থেকে নেমে আসা চেঙ্গী নদীর উপর দঃ শান্তিপুর এলাকায় স্থাপিত পূর্ব পাশ থেকে পঞ্চিম পাশ পর্যন্ত ৮০মিটার রাবার বসিয়ে দেওয়া হয়েছে পানির উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য। ফলে রাবার ড্যামের উজানে প্রায় ৮কিলোমিটার এলাকা জুড়ে চেঙ্গী নদীতে অথই পানি খেলা করছে।
অপর দিকে ড্যাম এলাকায় ১৫ফুট পানির সমাহার ঘঠেছে। বর্তমানে ঠিকাদারী প্রতিষ্টান যে কোন সময় চেঙ্গী নদী রাবার ড্যাম পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতির নিকট হস্থান্তর করবে। যাহাতে সঠিক ও সুস্থ ভাবে কৃষকদের পানি বিতরন করতে পারে। পানছড়ি উপজেলা আ’লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আবু তাহের বলেন, আমি ঠিকাদার প্রতিষ্টানটির প্রতিনিধি হিসাবে ছিলাম। অনেক প্রতিকূল অবস্থার মোকাবেলা করতে হয়েছে। তবে প্রকল্পটি সম্পর্ণ হয়েছে, এলাকার উন্নয়ন হবে, কৃষি কাজে কৃষকদের আগ্রহ বাড়বে এবং পানছড়িবাসী নদী থেকে মাছ আহরণ করতে পারবে, জন উন্নয়ন মূলক এরকম প্রকল্পের কারণে জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং আওয়ামীলীগের প্রতি জনগনের সু-দৃষ্ঠি বৃদ্ধি পাবে।
এব্যাপারে  ঠিকাদারী প্রতিষ্টান মালিক ও খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র মোঃ রফিকুল আলম বলেন, আমি ঠিকাদার, আমি কাজ কারার জন্য কাজ নিয়েছি, কাজ করেছি। উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ আনোয়র হোসেন বলেন, চীন থেকে ২৭টন উজনের ২টি রাবার নদীতে স্থাপন করা হয়েছে। ড্যাম স্থাপন করতে গিয়ে চমর প্রতিকূল অবস্থায় পড়তে হয়েছে। ঠিকাধারী প্রতিস্ঠানের বিচক্ষনতা, আইন শৃংখলা বাহিনীর সহযোগী করার কারনে এত বড় প্রকল্পটির খুব তাড়াতাড়ি করা সম্ভব হয়েছে। পানছড়ি সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আলাউদ্দিন বলেন, রাবার ড্যাম হওয়ার কারনে অতিরিক্ত ৮হেক্টর বাগান, ১০৫হেক্টর সবজি এবং ৭৭ হেক্টর বোর আবাদ বাড়বে। এছাড়া পূর্ণ হিসাব পেতে আমাদের আরো কিছু সময় নিতে হবে।