Pages

Categories

Search

আজ- রবিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

পাঁচবিবিতে মহীপুর কলেজের কর্মচারী থেকে কোটি পতি বাবুল আখতার

ডিসেম্বর ৫, ২০১৬
অনিয়ম, অপরাধ, জয়পুরহাট, দূনীতি
No Comment

05-12-2016
আহসান হাবিব, পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) সংবাদদাতা: জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে মহীপুর হাজী মহসীন সরকারি কলেজের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী থেকে কোটি পতি হয়েছেন বাবুল আখতার। পাঁচবিবি শহরের প্রাণ কেন্দ্রে কোটি টাকার আলিশান বাড়িতে থাকেন। সাড়ে ৩ লাখ টাকার মোটর সাইকেল হাকিয়ে বেড়ান। কাদের পাড়ায় একটি টিন শেডের বাড়ি ভাড়া দিয়েছেন। বগুড়া শহরে ৫০ লাখ টাকা দিয়ে ৫ শতাংশ জমি কিনেছেন। এছাড়া কয়েকটি ব্যাংকে এফডিআর রয়েছে। ১৯৯৭ সালে মহীপুর সরকারি কলেজে ইলেক্ট্রিশিয়ান পদে চাকরীতে যোগদান করেন বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার পশ্চিম তেকানি গ্রামের জিল্লুর রহমানের ছেলে বাবুল আখতার। অনুসন্ধানে জানা গেছে, কলেজের ক্যাশিয়ারের দায়িত্ব পালন করার সুবাদে ভাগ্য বদলে যায় বাবুলের। উচ্চমাধ্যমিক, ডিগ্রি ও সম্মান শ্রেণির প্রায় ৪ হাজার ছাত্রের ফরম পূরণসহ আনুষাঙ্গীক খাতের কোটি কোটি টাকা লেনদেন করেন। ভর্তি বাণিজ্যের মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। ভুয়া বিল ভাওচার ও নানান কাজে ছাত্রদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করেন। অধ্যক্ষ হিসাবে যারা আসেন তারা বাবুলের কথামতো চলেন। এর ব্যাতিক্রম হলে ছাত্র নেতাদের লেলিয়ে দিয়ে আপমান অপদস্ত করেন। কলেজের নামে ৩৫ থেকে ৪০টি এ্যাকাউন্টের চেকবই তার কাছেই থাকে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কলেজের একজন শিক্ষক বলেন, বাবুল আখতার সব অধ্যক্ষকে ভেঙ্গে খায়। নারী লোভী বাবুল বিভিন্ন সময়ে ছাত্রীদের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন। একাধিক বার আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ে টাকা দিয়ে পার পেয়ে যান। স্ত্রী সন্তান থাকার পরও ২ বছর পূর্বে দমদমা গ্রামের এক ছাত্রীকে বিয়ে করে পরে ডিভোর্স দিয়েছেন। সুলতানপুর গ্রামে একটি ধর্ষণ মামলায় ২০০৮ সালের ২২ আগষ্ট জেলে যান। গতকাল রবিবার জুয়া খেলার অপরাধে বাবুল আখতারকে ভ্রাম্যনাম আদালতে ১ মাসের কারাদন্ড দিলে পাঁচবিবি থানা পুলিশ জেল হাজতে পাঠান। অধ্যক্ষ বরজাহান আলী বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।