Pages

Categories

Search

আজ- সোমবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

পাঁচবিবিতে বাঁশখুর মাদ্রাসায় পছন্দের প্রার্থীকে উপাধ্যক্ষ পদে নিয়োগের অভিযোগ

আহসান হাবিব, পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) সংবাদদাতা : জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে বাঁশখুর ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসায় অধ্যক্ষের পছন্দের প্রার্থীকে উপাধ্যক্ষ পদে নিয়োগের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় নিয়োগ বোর্ডের সদস্য সাইফুল ইসলাম নির্বাচনী বোর্ড থেকে বেরিয়ে আসেন। তিনি জানান অধ্যক্ষ আজহারুল ইসলাম অর্থনৈতিক সুবিধা নিয়ে আগে থেকেই সোলায়মান আলীকে উপাধ্যক্ষ হিসাবে পছন্দের তালিকায় রাখেন। গত ২১ জুলাই নিয়োগ বোর্ড নামক নাটকের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয়েছে। প্রভাষক সোলাইমান আলী তার মনোনীত ৪ জনকে প্রক্সি পরীক্ষার্থী হিসাবে ঠিক করেন। তারা হলেন মহব্বতপুর ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসার প্রভাষক মীর শহিদ মন্ডল, প্রভাষক নুরুজ্জামান, শিরট্টি মাদ্রাসার প্রভাষক ওয়াহিদুল ইসলাম ও আক্কেলপুর ফাজিল মাদ্রাসার প্রভাষক মাসুম রব্বানী। প্রবেশ পত্র গুলো প্রভাষক সোলাইমান আলী নিজেই বিলি করেছেন। সোলায়মান আলীকে উপাধ্যক্ষ পদে নিয়োগ দেওয়া হবে মর্মে গত ২০ জুলাই পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হয়। পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হলে মহব্বতপুর ফাযিল ডিগ্রি মাদ্রাসার প্রভাষক মীর শহিদ মন্ডল ও প্রভাষক নুরুজ্জামান প্রক্সি পরীক্ষার্থী হিসাবে গত ২১ জুলাই নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেননি। নির্বাচনী বোর্ডে সোলায়মান আলী ১৬ নম্বর, মাসুম রব্বানী ১৫.৫ নম্বর, সোহরাব আলী ১৫ নম্বর, মোতালেব ১০ নম্বর ও ওয়াহিদুল ইসলামের ৭.৫ নম্বর দেখানো হয়। ম্যানেজিং কমিটির সদস্য জুয়েল হোসেন বলেন, উপাধ্যক্ষ পদে মনোনিত প্রার্থী সোলাইমান আলী নিজেও আমাকে ম্যানেজ করার জন্য এসেছিলেন। তিনি আরো বলেন, নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে অধ্যক্ষ ও সভাপতি একক ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন। বাঁশখুর ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আজাহারুল ইসলামকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, নীতিমালা অনুযায়ী সবকিছু হচ্ছে। উল্লেখ্য সোলায়মান আলী জামায়াত ইসলামীর একজন নেতা। তিনি মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের ওয়ার্ড সভাপতি।