Pages

Categories

Search

আজ- শনিবার ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

নির্বাচনে মহাপরাজয়ের পর বিএনপি দিশেহারা হয়ে পড়েছে- ওবায়দুল কাদের


গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট : সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জাতীয় নির্বাচনে মহাপরাজয়ের পর বিএনপির অবস্থা এখন মহাবিপর্যয়ে পড়ার মতো। তারা আসলে রাজনীতির মহাদুর্যোগে পতিত হয়েছে এবং তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। পথিক যেমন পথ হারিয়ে দিশেহারা হয়ে যায়, নির্বাচনে পরাজয়ের পর বিএনপির অবস্থাও সে রকম। তারা আজকে দিশেহারা পথিকের মতো পথ হারিয়ে তালগোল পাকিয়ে ফেলছে। কি করবে, কি করবে না, কিংকর্তব্যবিমুঢ় হয়ে পড়েছে। নির্বাচনে আসা, না আসা এটা তাদের সিদ্ধান্তের ব্যাপার। তবে একটা দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করা, এটার যে পরিণতি সেটা তাদেরকে অচিরেই ভোগ করতে হবে। কারণ এতে তারা আরো নতুন নতুন সংকটে পতিত হবে।

মন্ত্রী শুক্রবার সকালে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কোণাবাড়ি এলাকায় ফ্লাইওভারের কাজ পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ সব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, এদেশে মুসলিম লীগও একটা বড় দল ছিল। সংকুচিত হয়ে তাদের অতিত্বটা প্রায় বিরল প্রজাতির প্রাণীর মতো বিলুপ্ত হতে যাচ্ছে। বিএনপিও মুসলিম লীগের পরিণতির দিকে যাচ্ছে কি না ? নির্বাচন বয়কটের মধ্য দিয়ে তারাতো নিজেদেরকে আরও সংকুচিত করার সর্বনাশা পথ, আত্মঘাতি পথ বেছে নিয়েছে এটাই মনে হয়। তাদের অনুরোধ করব নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য। সামনে উপজেলা, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচন ও কিশোরগঞ্জে একটি উপ-নির্বাচন আছে। আমি উপ-নির্বাচন, সিটি করপোরেশন, উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য বিএনপিসহ সকল নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলকে আহবান জানাচ্ছি এবং তাদের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য ্অনুরোধ করছি।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সবচেয়ে দীর্ঘ এই কোণাবাড়ি ফ্লাইওভার। এটি ১৬৪৫ মিটারের মতো দৈর্ঘ্য। এর কাজও প্রায় শেষ। কোণাবাড়ি ও চন্দ্রার কাজ এপ্রিলের মধ্যে সমাপ্ত হবে। ইতোমধ্যে লতিফপুর রেলওভারপাস এবং দেরুয়া রেলওভার পাসের কাজ শেষ হয়েছে। আমরা আশা করছি, রোজার আগেই কোণবাড়ি ও চন্দ্রা ফ্লাইওভার এবং লতিফপুর ও দেরুয়া রেলওভারপাস যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দিতে পারব। ফলে যানজট নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা এখান থেকে পাওয়া যাবে। আমি আশা করি আগামী রমজানের ঈদের আগেই জয়দেবপুর থেকে এলেঙ্গা পর্যন্ত রাস্তায় আর কোন সমস্যা থাকবে না। যান চলাচল স্বাভাবিক হবে।

তিনি জানান, ইতোমধ্যে এলেঙ্গা থেকে রংপুর পর্যন্ত ফোর লেন বাস্তার চুক্তি হয়েছে। এ ফোর লেনের জন্য ১২ হাজার কোটি টাকার মতো বরাদ্দ হয়েছে। এটা সাসেক টু প্রজেক্ট। এর পরে আমাদের সাসেক থ্রি তে আসবে পঞ্চগড় এবং বুড়িমারি পর্যন্ত। এতে গোটা উত্তরাঞ্চল গাজীপুর থেকে ফোর লেনের আওতায় চলে আসবে।

এ সময় মন্ত্রীর সাথে সড়ক ও জনপথ বিভাগের ঢাকা বিভাগীয় প্রকৌশলী সুবজ উদ্দিন খান, গাজীপুর সওজ’র নির্বাহী প্রকৌশলী মো: সাইফউদ্দিনসহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।