Pages

Categories

Search

আজ- বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮

নারায়ণগঞ্জে আলোচিত ৭ খুন: নারাজির রিভিশন খারিজ

নভেম্বর ৯, ২০১৫
আইন- আদালত, জাতীয়, রাজনীতি, হত্যা
No Comment

গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট:ffhh_86003_7403
নারায়ণগঞ্জের চাঞ্চল্যকর সাত খুনের মামলায় গ্রেফতারকৃত ২২ আসামী আদালতে হাজিরা দিয়েছেন। সোমবার সকালে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আশিক ঈমামের আদালতে তাদের হাজির করে পুলিশ। র‌্যাব-১১ এর সাবেক অধিনায়ক চাকরিচ্যুত লে. কর্নেল তারেক সাঈদের জামিনের আবেদন করেন তার আইনজীবী। আদালত শুনানী শেষে তারেক সাঈদের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করেন। ঢাকা আদালত থেকে আগত এড. সারোয়ার তারেক সাঈদের পক্ষে আদালতে জামিন প্রার্থনা করেন।

অপর মামলার বাদী নিহত প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামের স্ত্রী নাসিক কাউন্সিলর সেলিনা ইসলাম বিউটির নারাজি খারিজের বিরুদ্ধে রিভিশন খারিজ করে দিয়েছে আদালত। সোমবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেনের আদালত রিভিশন খারিজের এ আদেশ দেন।

নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক হাবিবুর রহমান জানান, নির্ধারিত তারিখ থাকায় সোমবার সকালে সাত খুনের মামলার চার্জশীটভুক্ত ২২ আসামীকে কঠোর প্রহরায় নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আশিক ঈমাম এর আদালতে হাজির করানো হয়। আগামী ৩০ নভেম্বর পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য্য করেছেন আদালত।

মামলার বাদী সেলিনা ইসলাম বিউটির আইনজীবী এড. সাখাওয়াত হোসেন খান জানান, আদালতে তারেক সাঈদের পক্ষে জামিনের আবেদন করা হয়েছিল। আদালত তা নামঞ্জুর করেছেন। সাত খুনের ঘটনায় এড. চন্দন সরকারের জামাতা বিজয় পাল ও নিহত কাউন্সিলর নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি পৃথকভাবে দু’টি মামলা করেন। শুনানির পর বিজয় পালের মামলাটি জজ কোর্টে পাঠানোর আদেশ দেয়া হয়েছে।

মামলার বাদী সেলিনা ইসলাম বিউটি সাংবাদিকদের বলেন, আমরা এ ব্যাপারে উচ্চ আদালতে আপিল করবো। আমাদের আশাবাদ উচ্চ আদালত আমাদের আর্জি গ্রহণ করবেন।

উল্লেখ্য, ২০১৪ ইং সালের ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, তার বন্ধু মনিরুজ্জামান স্বপন, তাজুল ইসলাম, লিটন, গাড়িচালক জাহাঙ্গীর আলম, আইনজীবী চন্দন কুমার সরকার ও তার গাড়িচালক ইব্রাহীম অপহৃত হন। পরে শীতলক্ষ্যা নদী থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহত নজরুল ইসলামের স্ত্রী কাউন্সিলর সেলিনা ইসলাম বিউটি ও নিহত আইনজীবী চন্দন সরকারের জামাতা ডা. বিজয় কুমার পাল বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় পৃথক দু’টি মামলা দায়ের করেন।