Pages

Categories

Search

আজ- শুক্রবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নান্দাইলে রাতের আধাঁরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২ ট্রাক বই পাচাঁর

নভেম্বর ১০, ২০১৬
অনিয়ম, ময়মনসিংহ
No Comment

14962797_
এবি সিদ্দিক খসরু, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় রাতের আধাঁরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২ ট্রাক বই রাতের আধাঁরে বুধবার ৯ই নভেম্বর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গুদাম থেকে পাঁচার হয়েছে বলে জানা যায়।
রাতের আধারে বই পাচাঁরের বিষয়টি এলাকার জনমনে সন্দেহ ও চাঞ্চল্যকর অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। নান্দাইল সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (এডিপিইও) মো. শফিকুল ইসলাম ও সহকারী মনিটরিং কর্মকর্তা মো. ইলিয়াছ উদ্দিনকে রাত ৮টার দিকে নান্দাইল শিক্ষা কর্মকর্তা আনারকলি নাজনীন পুরনো বই তুলে দিচ্ছেন। সেখানে মো. ইলিয়াছ উদ্দিন নামে এক সহকারী মনিটরিং কর্মকর্তা নিজেকে সদ্য অবসর নিয়েছেন উল্লেখ করে বলেন, তিনি বই বিক্রি তদরকি করতে এসেছেন। স্থানীয় ১০/১২জন শ্রমিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উদৃত্ত বইগুলো ট্রাকে তুলে দিচ্ছেন বলে ছাইদুর রহমান (৩০) নামক শ্রমিক জানায়। তাছাড়া উপস্থিত প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, হাজার হাজার টাকার নতুন বই নিলামে কেজি দরে বিক্রি করায় এটাই প্রমাণ হয় চাহিদার তুলনায় বেশি বই আনায় উদৃত্ত রয়ে গেছে এবং সেই বই রাতের আধাঁরের বিক্রী করার বিষয়টি অন্যরকম হয়ে দাড়ায়। ঘটনাটি জানাজানি হলে সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক চৌধুরী স্বপন ও ইউএনও শাহানুর আলম ঘটনাটি অবহিত হয়ে খোঁজ খবর নেন। তবে তাঁরা কেউই বই নেওয়ার বিষয়টি পূর্ব থেকে অবহিত ছিলেন না বলে জানান। নান্দাইল শিক্ষা কর্মকর্তা আনারকলি নাজনীন জানান,‘ জেলায় টেন্ডারের মাধ্যমে উদ্ধৃত এক হাজার ২০০শ কেজি বই বিক্রি হয়েছে।’ কিন্তু অফিসিয়াল চালানে দেখা যায়, ৪শ ১৫ কেজি বই বিক্রির উল্লেখ রয়েছে। নান্দাইল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ ক’টি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জানান, তাঁরা শিক্ষা বর্ষ শুরু হওয়ার আগেই মোট শিক্ষার্থী চাহিদা দিয়ে থাকেন। কোন উদ্ধৃত বই বিদ্যালয়ে থাকে না। তাঁরা আরো জানান, বছরের অর্ধেক সময়ে যদি কিছু বইয়ের প্রয়োজন পড়ে তবে শিক্ষা অফিসে চেয়েও পাওয়া যায় না। এখন এতো বই উদৃত্ত থাকার পিছনে কারণ কী? নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহানুর আলম জানান, উদ্ধৃত বা নষ্ট বই টেন্ডারের মাধ্যমে বিক্রির বিষয় তাঁর কার্যালয় অবগত নয়। তারপরও যদি নিয়মের মধ্যে টেন্ডারে কেউ বই কেনার দায়িত্ব পান তবে রাতে কেন? এ বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।