Pages

Categories

Search

আজ- সোমবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নরসিংদীতে বঙ্গবন্ধুর ৯৭তম জন্মদিবস ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপিত

মার্চ ১৭, ২০১৬
দিবস, নরসিংদী
No Comment

Captureমো. ইসমাইল হোসাইন খান, নরসিংদী থেকে:

‘শিশু গড়বে নতুন দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে নরসিংদীতে আজ যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপিত হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৭তম জন্মদিবস ও জাতীয় শিশু দিবস ২০১৬।

দিবসটি উদযাপনে নরসিংদী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে নরসিংদী জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে জেলা প্রশাসক আবু হেনা মোরশেদ জামানের নেতৃত্বে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে গিয়ে আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করে।

র‌্যালিতে নরসিংদীর পুলিশ সুপার আমেনা বেগম (বিপিএম), নরসিংদীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. কামাল হোসেন (উপ-সচিব), নরসিংদীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) খন্দকার নুরুল হক, নরসিংদী জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সিদ্দিকুর রহমান, নরসিংদীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. জসীম উদ্দিন হায়দার, নরসিংদীর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ রেহান উদ্দিন, নরসিংদী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নার্গিস সাজেদা সুলতানা, নরসিংদী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোতাকাব্বীর আহমেদ, নরসিংদী জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল মোতালিব পাঠান, মুক্তিযোদ্ধা আরমান মিয়া, নরসিংদী সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাম্মদ আলী, প্রফেসর সূর্য্যকান্ত দাস, প্রফেসর গোলাম মোস্তফা মিয়া সহ সরকারি বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তা, মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীগণ, সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গ ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ অংশগ্রহণ করেন।

র‌্যালি শেষে শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আলোচনা সভায় বিয়াম জিলা স্কুলের ছাত্র মেহেদী হাসানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নরসিংদীর জেলা প্রশাসক আবু হেনা মোরশেদ জামান। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নরসিংদীর পুলিশ সুপার আমেনা বেগম (বিপিএম), নরসিংদী জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সিদ্দিকুর রহমান, নরসিংদী জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল মোতালিব পাঠান, নরসিংদী সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর গোলাম মোস্তফা মিয়া, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৭তম জন্মদিবস ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন কমিটির আহবায়ক নরসিংদীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) খন্দকার নুরুল হক।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আবু হেনা মোরশেদ জামান বলেন, মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জনকারী বাঙালি জাতিকে কেউ দাবিয়ে রাখতে পারবে না। সবসময় মনে রাখতে হবে, মুক্তিযুদ্ধে আমরা বিজয় অর্জনকারী জাতি এবং বঙ্গবন্ধু যেটা বলেছেন, কেউ দাবায়ে রাখতে পারবা না।

অর্থাৎ এই বাঙালি জাতিকে কেউ দাবায়ে রাখতে পারবে না। কাজেই আমাদের সেই আত্মবিশ্বাস থাকবে যে, আমরা যুদ্ধে বিজয়ী জাতি। বিজয়ী জাতি সব সময় মাথা উঁচু করে চলে। এই আত্মবিশ্বাসটা নিয়ে আমাদের ছেলেমেয়েদের এখন থেকে নিজেদের গড়ে তুলতে হবে।

তিনি আরো বলেন, আজকের শিশুরা আগামীদিনে এই দেশ জাতির কর্ণধার হবে। তাই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে সবাইকে অনুপ্রাণিত হয়ে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হতে হবে। কারণ মেধাবীদের দিকে তাকিয়ে আছে দেশ। আজকের শিশুদের মেধার বিকাশ ঘটিয়ে এমন ভাবে তৈরি করতে হবে যাতে করে দেশবিনির্মাণে এদের অপরিসীম গুরত্ব থাকে। আমাদের অনুপ্রেরণাই আগামীদিনের পথচলার পাথেয় হয়ে থাকবে শিশুদের জন্য। পড়ালেখার পাশাপাশি একজন শিক্ষার্থীকে সংস্কৃতি, ক্রীড়ায়ও অন্যন্য ভূমিকা রাখতে হবে। তাই প্রতিটি শিশুর প্রতি অভিভাবকদের যত্নশীল হতে হবে এবং সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলাই হবে আজকের শিশু দিবসের অঙ্গীকার।

আলোচনা শেষে জেলা প্রশাসকের উপস্থিতিতে শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে শিশুদের দিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৭তম জন্মদিবসের কেক কাটা হয়। শিল্পকলা একাডেমির মিলনায়তন শিশু কিশোরদের ভীড়ে কানায় কানায় পূর্ণ ছিল । পরে শিশু কিশোর সহ সকলের মাঝে কেক বিতরণ করা হয়। শিশু দিবসকে সার্থক ও সফলভাবে মহামান্বিত করতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ছিল জেলা প্রশাসকের নির্দেশে সমাজের ছিন্নমূল হতদরিদ্র শিশুদের মাঝে কেক বিতরণ করা।

এছাড়াও নরসিংদী জেলার প্রতিটি উপজেলায় বিশিষ্ট ব্যক্তিদের নিয়ে শিশুদের উদ্দেশ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জাতির জনকের জীবন আলেখ্যের উপর চলচ্চিত্র প্রদর্শন ও প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন, রচনা প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ইত্যাদি ছিল উল্লেখযোগ্য।

জেলার প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।