Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৪ নভেম্বর ২০১৮

নওগাঁ থেকে অপহরনের ৪ দিন পর শিশু সাগরকে উদ্ধার, ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৬
অপরাধ, অপহরণ, আইন- আদালত, নওগাঁ
No Comment

naogaon-pic-11
জি এম মিঠন, উত্তরাঞ্চল প্রতিনিধি: অপহরণের ৪ দিন পর নওগাঁর রাছিব ওরফে সাগর (৯) নামে এক শিশুকে বগুড়া জেলার ধুনট থানার শহরাবাড়ী হাট এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় সাথে জড়িত ৩ অপহরণকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জ উপজেলার ছুড়িপাড়া গ্রামের মেজবাউল ইসলামের ছেলে সুজন মিয়া (৩০), তার কথিত স্ত্রী রাবেয়া বিবি (২০) এবং অপর কথিত স্ত্রী রহিমা বিবি (২৬)। সাগর নওগাঁ সদর উপজেলার চকরামচন্দ্র সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণীর ছাত্র ও চকপাথুরিয়া গ্রামের পিন্টু রহমানের।
নওগাঁ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ তরিকুল ইসলাম জানান, সুজন মিয়া এবং রহিমা বিবি স্বামী স্ত্রীর পরিচয় দিয়ে ১২ দিন আগে তার নিজ বাড়ি চকপাথুরিয়া গ্রামের একটা ঘর ভাড়া নেন। সেখানে ৫/৭ দিন থাকার পর তারা গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে যায়। আবার ঈদের দু’দিন আগে ভাড়া বাড়িতে আসে। পরদিন গত ১২ সেপ্টেম্বর তাদের বাড়িতে না থাকার সুযোগে ছেলে রাসিফকে চিপস কিনে দেয়ার কথা বলে আর ফিরে আসেনি। এরপর ৪/৫ ঘণ্টা পর সুজন মিয়া এবং রহিমা বিবি আমার (পিন্টু রহমান) মোবাইলে ফোন দিয়ে ছেলে রাসিফকে অপহরণ করা হয়েছে বলে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। এ ঘটনায় প্রথমে নওগাঁ সদর মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়। তিনি আরও জানান, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সোহেল রানা ঘটনার পর বাদির বাড়ি থেকে রহিমা বিবিকে আটক করলেও সুজন মিয়াকে আটক করতে পারেনি। সুজন মিয়া মোবাইল ফোনে পিন্টু রহমানের কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে টাকা নেয়ার জন্যে বারবার চাপ দিতে থাকে। তখন কৌশলে কিছু টাকা বিকাশ ও ফ্ল্যাক্সিলোড দিয়ে কথোপকথনের মধ্যে সুজন মিয়ার অবস্থান নিশ্চিত করার জন্যে চেষ্টা করা হচ্ছিল। কিন্তু মোবাইল ফোনে কথা শেষ হতেই মোবাইল ফোন বন্ধ করে অবস্থান পরিবর্তন করছিলেন তিনি।
সুজন কখনও রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, নাটোর, জয়পুরহাট এবং বগুড়া জেলার বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করা হয়। অবশেষে শুক্রবার বিকেলে বগুড়া জেলার ধুনট উপজেলার শহরাবাড়ী হাট হতে মাদারগঞ্জ যাওয়ার পথে শিশু রাসিফকে উদ্ধারসহ সুজন ও তার অপর কথিত স্ত্রী রাবেয়াকে আটক করা হয়। এরপর তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাত ৮ টায় নওগাঁ সদর থানায় শিশু রাসিফকে নিয়ে এসে তার অভিভাবকদের হাতে তুলে দেয়া সম্ভব হয়েছে।
ওসি আরও বলেন, অপহরণকারীদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এদের সাথে যারা জড়িত তাদেরও আটকের চেষ্টা অব্যাহত আছে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে।