Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নওগাঁয় রেখা বানু নামে এক নারীর বিরুদ্ধে যত অভিযোগ

এপ্রিল ১২, ২০১৭
অনিয়ম, অপরাধ, আইন- আদালত, নওগাঁ
No Comment


মোঃ এমদাদুল হক দুলু , বদলগাছী (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার হলুদবিহার গ্রামের রেখা বানু (৪৮) নামে এক নারী চুন থেকে পান খসলেই তাঁর গ্রামে একের পর এক লোকজনের নামে নানান অভিযোগ তুলে তাঁদের বিরুদ্ধে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন ও থানায় লিখিত অভিযোগ দিচ্ছেন। আবার কারও বিরুদ্ধে আদালতে মামলাও করছেন। এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে গ্রামের নিরীহ লোকজন হয়রানির শিকার হচ্ছেন।
গত ইউপি নির্বাচনে সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে পরাজিত হওয়ার পর তিনি গ্রামের লোকজনদের নিয়ে এই হয়রানির খেলা শুরু করেছেন। রেখা বানুর এসব কর্মকান্ডে অতিষ্ট হয়ে গ্রামবাসীরা তাঁকে ‘রেখা ভাইরাস’ বলে উপাধি দিয়েছেন। মিথ্যা মামলা ও অভিযোগ দিয়ে গ্রামের লোকজনদের অযাথা হয়রানি করায় হলুদবিহার গ্রামবাসীর ব্যানারে তাঁর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা করা হয়েছে। গত সোমবার বিকেলে শিবপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এই বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। গ্রামবাসী ও ভূক্তভোগী ব্যক্তিরা ওই বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভায় অংশ নেন।
ওই প্রতিবাদ সভায় গ্রামবাসী ও ভূক্তভোগীরা ব্যক্তিরা অভিযোগ করে বলেন, স্বামী পরিত্যক্তা রেখা বানুকে তাঁরা সহজ-সরল ভাবছিলেন। বিগত ইউপি নির্বাচনে বিলাশবাড়ি ইউনিয়নের পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত সদস্য পদে প্রার্থী হয়ে পরাজিত হন। এরপর থেকেই চুন থেকে পান খসলেই তিনি গ্রামের একের পর এক নিরীহ লোকজনদের নামে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন, থানায় তাঁদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে যাচ্ছেন। আবার কারও বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন। তিনি এ পর্যন্ত গ্রামের প্রায় ২০-২৫ জন ব্যক্তির বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছেন। এসব কারণে গ্রামের নিরীহ লোকজন অযাথা হয়রানির শিকার হচ্ছেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে জেলা ও উপজেলা ও থানায় দৌড়া দৌড়ি করতে গিয়ে নিরীহ লোকজন আর্থিক ও মানসিক যন্ত্রণার শিকার হচ্ছেন। মিথ্যা অভিযোগ ও মামলার ভয়ে গ্রামের লোকজন রেখা বানুকে ভাইরাস বলে উপাধি দিয়েছেন। মিথ্যা অভিযোগ ও মামলার ভয়ে এখন গ্রামের কেউই তাঁর সঙ্গে কথা বলতে চায় না।
আবুল কালাম আজাদ বলেন, রেখা বানুকে আমার ভাবী তিনটি শাড়ি দিয়ে তাঁকে কাঁথা বানাতে দিয়েছিলেন। তিনটি শাড়ি অনুযায়ী কাঁথা ছোট হওয়ার কথা বলায় তিনি আমার ভাবীর বিরুদ্ধে আদালতে নালিশি মামলা করেছিলেন। এরকম চুন থেকে পান খসলেই তিনি মিথ্যা অভিযোগ ও মামলা দিচ্ছেন।
মজু ইসলাম বলেন, রেখা বানু বিগত ইউপি নির্বাচনে বিলাশবাড়ি ইউপির সংরক্ষিত সদস্য পদে প্রার্থী হয়ে পরাজিত হয়েছিলেন। এরপর তিনি গ্রামের একের পর এক লোকজনের নামে মিথ্যা অভিযোগ ও মামলা দিচ্ছেন। গ্রামের বিদ্যুৎ দিয়েছে সরকার অথচ রেখা বানু নিজে কৃতিত্বের দাবি করছেন। গ্রামের এমদাদুল হক দুলু বলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মোঃ ছলিম উদ্দীন তরফদার সেলিম হলুদবিহার গ্রামে প্রতিটি পরিবারে বিদ্যুৎ দেওয়ার ঘোষনা করে এবং সে অনুযায়ী নওগাঁ পল­ীবিদ্যৎ সমিতি থেকে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানে গ্রামে মাফযোগ করতে আসলে রেখা বানু এমপির দুই কর্মির বিরুদ্ধে বদলগাছী থানায় অভিযোগ করে। রেখার দাবী সে হলুদবিহার গ্রামে বিদ্যুৎ বরাদ্দ দিয়েছে।
রেখা বানু তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে গত বুধবার দুপুরে মুঠোফোনে এ প্রতিবদককে বলেন, আমি এখন আদালতে আছি। আমি কারও বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ বা মামলা করিনি। তাহলে গ্রামবাসীরা আমার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদসভা করল কেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, ওরা আমার ক্ষতি চায় তাই আমার বিরুদ্ধে এসব করেছে।