Pages

Categories

Search

আজ- মঙ্গলবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নওগাঁয় প্রতিপক্ষের মারপিটে হাসপাতালে অর্ধশতাধিক পরিবহন শ্রমিক আটক ১

জুন ২৫, ২০১৮
নওগাঁ
No Comment


নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁ জেলা ট্রাক, ট্যাংকলড়ী ও কাভার্ডভ্যান পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের (রেজি নং-২৬৫০) পোরশা থানা শাখা ও অপর ইউনিয়নের শাখার মধ্যে দ্ব›েদ্বর জের ধরে থানায় মিথ্যা তথ্য দিয়ে মামলা ও পরে মারপিট করার ঘটনা ঘটেছে। মামলার আসামীগন আদালতে হাজিরা দেওয়ার পর ধাওয়া করে মারপিট করে তাদের কাছ থেকে প্রায় লক্ষাধিক টাকা ছিনিয়ে নিয়ে প্রাননাশের হুমকি প্রদান করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মহাদেবপুর থানায় শনিবার রাতে (২৩জুন) সাদেকুল ইসলাম বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার প্রেক্ষিতে রোববার সকালে (২৪জুন) দেলোয়ার হোসের নামে একজনকে আটক করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। মারপিটে ২৬৫০ ইউনিয়নের আহত শ্রমিকরা বর্তমানে নওগাঁ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ১৭জুন জেলার পোরশা উপজেলার সরাইগাছী মোড়ে আম বোঝাই ট্রাক স্থানীয় শ্রমিকরা আটক করলে দুই গ্রæপের মধ্যে বাকবিতন্ডার সৃষ্টি হয়। পরে পোরশা থানার সহযোগিতায় ট্রাক ছেড়ে দেওয়া হয়। এর রেশ ধরে মিথ্যা তথ্য দিয়ে রেজিঃ নং-২৩৮ ও ২৬৫৮ সমিতির শ্রমিকরা পরদিন পোরশা থানায় ৩৮জনকে আসামী করে মামলা করেন। মামলার প্রেক্ষিতে গত ২১জুন তারিখে মামলার আসামী পোরশা উপজেলার শেখপাড়া গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে সাদেকুল ইসলামসহ ৩৭জন আসামী আদালতে হাজির হয়ে জামিন নিতে আসে। এ সময় প্রতিপক্ষ ইউনিয়নের শ্রমিক পোরশা উপজেলার দশপাইক গ্রামের মৃত-জবেদ আলীর ছেলে ওমর ফারুকসহ ৫০-৫৫জন শ্রমিকরা সকালে আদালত প্রাঙ্গনে এসে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে। এমতাবস্থায় সাদেকুল ইসলাম ২৬৫০ শ্রমিক ইউনিয়নে খরব দিলে সেই ইউনিয়নের নেতারা এলে তাদের সামনেও তাদেরকে বিভিন্ন রকমের প্রাণনাশের হুমকি প্রদান অব্যাহত রাখে। পরে জামিন নেয়ার পর সাদেকুল ও অন্য শ্রমিকরা বিকেলে আদালত প্রাঙ্গনের বাহিরে এলে উক্ত শ্রমিকরা আবারও তাদের ধাওয়া করে। পরে নওগাঁ সদর থানা পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে তাদেরকে নওগাঁ সদর থানার শেষ সীমানা হাপানিয়া পর্যন্ত পৌঁছে দিলে সেসব প্রতিপক্ষ শ্রমিকরা ট্রাক ও মটরসাইকেল নিয়ে রাস্তায় বেরিকেট দিয়ে পথরোধ করে তাদেরকে রড, হাসুয়া, লাঠিসহ দেশিয় অস্ত্র দিয়ে মারপিট করতে থাকে। এ সময় আজিজার রহমান ধলু সাদেকুলের পকেট থেকে ৩২হাজার টাকা, আব্দুর রহমান আম ব্যবসায়ী মাহবুবের পকেট থেকে আম চালানের ১লাখ ৩০হাজার টাকা, আইজুল বয়েনের পকেট থেকে ১৮হাজার টাকা মূল্যের একটি মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়। এ সময় পুলিশকে খবর দিলে নওগাঁ সদর ও মহাদেবপুর থানার নওহাটা পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। বর্তমানে ২৬৫০ ইউনিয়নের সকল গুরুত্বর আহত শ্রমিকরা নওগাঁ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এই ঘটনায় সাদেকুল ইসলাম বাদী হয়ে মহাদেবপুর থানায় গত ২৩জুন রাতে মামলা দায়ের করেছেন।
এ বিষয়ে মামলার বাদী সাদেকুল ইসলাম বলেন, তারা মিথ্যা অযুহাতে আমাদের গাড়ী আটক করে হয়রানী করার জন্য থানায় মামলা দায়ের করেছে। এরপরে আমরা আদালতে জামিন নিতে আসলে তাদের রোষানল থেকে আমরা রক্ষা পাইনি। তারা আইনকে বৃদ্ধাঙ্গালী দেখিয়ে মারপিট করেছে। আমরা এর দৃষ্টান্তুমূলক শাস্তি চাই। এ বিষয়ে নওগাঁ জেলা ট্রাক, ট্যাংকলড়ী ও কাভার্ডভ্যান (রেজিঃ নং-২৬৫০) পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের প্রতিপক্ষ ইউনিয়নের শ্রমিকরা দীর্ঘদিন যাবত কারনে-অকারনে আমাদেরকে হয়রানী করে আসছে। অন্যায়ভাবে প্রতিপক্ষরা আমার ইউনিয়নের শ্রমিকদেরকে মারপিট করেছে। তারা বর্তমানে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। অচিরেই মামলার প্রেক্ষিতে মারপিটকারীদের আটক করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি এবং তারা যেন ভবিষ্যতে এ রকম কর্মকান্ড করতে না পারে তাই তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। মহাদেবপুর থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, থানায় অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে একজনকে আটক করে নওগাঁ জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। আর বাকীদের আটক করার চেষ্টা চলছে।