Pages

Categories

Search

আজ- রবিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নওগাঁয় দাবীকৃত চাঁদা না পেয়ে মাছ লুট বাড়িতে অগ্নিসংযোগ আহত-৪

Naogaon_photo[1]
শহিদুল ইসলাম, নওগাঁ থেকে বিশেষ প্রতিনিধি: নওগাঁর রানীনগর উপজেলার কালিগ্রাম ইউনিয়নের আবাদপুকুর গ্রামের গোলাম কাদের খাজা নামে এক ব্যাক্তির কসবাপাড়া গ্রামে লিজকৃত পুকুর থেকে রাতের অন্ধকারে প্রায় ৫ লাখ টাকার মাছ লুটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় হামলা চালিয়ে ওই পুকুরের পাহারাদারের বাড়িতে অগ্নি সংযোগ ও ৪ জনকে কুপিয়ে জখম করা হয়। বৃহস্পতিবার দিবাগত গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে মাছ মারা জাল ও একটি চার্জার ভ্যান জব্দ করেছে।
পুকুরের মালিক গোলাম কাদের খাজা জানান, গত বাংলা ১৪২২ সালে উপজেলা ভূমি অফিস থেকে ১ একর ৬২ শতাংশ পরিমাপের ওই পুকুরটি বাৎসরিক ৪৬ হাজার টাকায় ৩ বছরের জন্য লিজ নিয়ে মৎস্য চাষ করে আসছেন। এর পর থেকেই উপজেলার একই ইউনিয়নের তমিজ দপ্তরীর ছেলে কুদ্দস দপ্তরী ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। কিন্তু শুরু থেকেই সেই টাকা দিতে খাজা অস্বীকৃতি জানালে তাকে নানা রকম ভায়ভীতি দেখায়। এরই এক পর্যায়ে বৃহস্পতিবার দিবাগত গভীর রাতে কুদ্দুস দপ্তরী ও আলী আজমসহ ২০ থেকে ২৫ জন স্বদলবলে পুকুরে জাল দিয়ে মাছ মারা শুরু করে। এ সময় পুকুরের পাহারাদার জাহের আলী শেখ ও তার স্ত্রী সন্তান বাধা দিতে গেলে তাদের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে এবং কুপিয়ে জখম করে। কিছু পরে জাহের কৌশলে মোবাইল ফোনে খাজাকে ঘটনাটি জানায়। এরপর পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছালে উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায় তারা। আর পাহারাদার জাহের আলীসহ আরও ৩ জনকে মারাত্বক আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।
এ বিষয়ে পুকুর পাহারাদার জাহের আলী বলেন, প্রতি দিনেরমত রাতে স্ত্রী সন্তান নিয়ে ঘুমাচ্ছিলেন তিনি। হঠাত রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে খান চৌধুরী আলী আজমসহ প্রায় ২০ জনের এক দল লোক পুকুরে মাছ মারা শুরু করে। এ সময় তাদের সাথে মাছ মারা জাল, বাঁস ও মাছ পরিবহনের জন্য প্রায় ১৪টি চার্জার ভ্যান ছিল। জাহের বলেন, তাদেরকে মাছ মারতে নিশেধ করলে তার স্ত্রী রেশমা, মেয়ে জেমি ও তার ছেলে আব্দুল আজিজকে মারপিট শুরু করে আজমের লোকজন। এক পর্যায়ে তাদের বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। কিছু পরে জাহের আলী কৌশলে পালিয়ে পুকুর মালিক খাজাকে খবর দেয়।
তবে খান চৌধুরী আলী আজম জানান, আমি মাছ মারা, হামলা ও বাড়িতে অগ্নি সংযোগ এর কোনটির সঙ্গে সম্পৃক্ত নয়। তবে পৈত্রিক সূত্রে পুকুরটির মালিক আমরা। পুকুরটির মালিকানা নিয়ে আদালতে মামলা চলছে।
রাতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত পুলিশ কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, বাড়ি ঘরে হামলা ও মাছ মারা হচ্ছে এমন খবর পাওয়ার কিছু পরেই সঙ্গিয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে রওনা দেন তিনি। হামলাকারীরা তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। তবে ঘটনাস্থল থেকে মাছ মারা জাল, দড়ি, বাঁশ ও একটি চার্জার ভ্যান জব্দ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলেই মামলা নিয়ে যথাযথ ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও জানান তিনি।