Pages

Categories

Search

আজ- শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নওগাঁর সাপাহারে নির্বাচনী নীতিমালা মানছেন না স্বতন্ত্র প্রার্থী

মে ২, ২০১৬
অনিয়ম, নওগাঁ, নির্বাচন
No Comment

Elecation_sapahar-2[1]
আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি: আগামী ৭ মে চতুর্থ দফায় জেলার সাপাহার উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নির্বাচনের নীতিমালা ভঙ্গের অভিযোগ উঠেছে স্বতন্ত্র প্রার্থী নার্গিস সরকারের বিরুদ্ধে। নার্গিস সরকার বিশিষ্ট শিল্পপতি হওয়ায় মানছেন না কোনই নির্বাচনী নিয়মনীতি। তবে নার্গিস সরকার বলছেন ভোট যুদ্ধে পেছনে থাকতে রাজি নয় তিনি।

জেলার সাপাহার উপজেলার সদর ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন ৩ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী। আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী আকবর আলী, বিএনপি মনোনিত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম চৌধুরী (বেনু) ও স্বতন্ত্র থেকে নির্বাচন করছেন নার্গিস সরকার।

উপজেলা আওয়ামীলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নার্গিস সরকার দলের মনোনয়ন না পাওয়ায় স্বতন্ত্র থেকে নির্বাচন করছেন। আর তাই দলের সিদ্ধান্তের বাইরে এসে নির্বাচন করায় দল থেকে বহিস্কার হন এই বিদ্রোহী প্রার্থী।

নার্গিস সরকার বাংলাদেশ ব্যাংক (আইএমএসএমই) এর একজন সক্রিয় সদস্য, সাপাহারে অবস্থিত এনএন সরকার এগ্রো লিমিটেড কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক, সরকার মাষ্টার ওয়েল মিলের পরিচালক ও নারী উদ্যোক্তা।

আর এসব কিছুকে কাজে লাগিয়ে নির্বাচনী কোন নীতিমালা না মেনেই দাপটের সঙ্গে চালাচ্ছেন নির্বাচনী প্রচারনা। অভিযোগ রয়েছে, তার প্রচারনা মাইক চলে সূর্য ওঠা থেকে রাত্রী ১২টা পর্যন্ত, নির্বাচনী ক্যাম্পিংয়ে থাকে কয়েক’শ পালিত কর্মী। তাদেরকে নিয়ে আসা হয় প্রার্থীর ভাড়া করা নছিমন-করিমন দ্বারা। শো-ডাউনে থাকে ৩-৪’শ মোটরসাইকেল তাদেরকে দেয়া হয় প্রার্থীর স্বাক্ষরিত চিরকুট। এই চিরকুটের মাধ্যমেই তারা পান মটরসাইকেলের তেল, খাবার ও দিন শেষে পারিশ্রমিক। আর সভা সমাবেশ তো রয়েছেই মহল্লায় মহল্লায়। আর এসব সভা সমাবেশে থাকে ভুরি ভোজের ব্যবস্থা।

স্থানীয় সাংবাদিক নয়ন বাবু জানান, নার্গিস সরকার শিল্পপতি হওয়ায় প্রচুর অর্থ ব্যয় করছেন ভোটের মাঠে। তাই তার প্রচার প্রচারনা সকলের চেয়ে বেশি। এ ইউনিয়নে সেই এবার নির্বাচিত হতে পারে।

আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থী আকবর আলী জানান, আমি আইনকে শ্রদ্ধা ও সম্মান করি। আর তাই দলের মনোনয়ন পাওয়ার পরও নীতিমালার মধ্যে থেকেই চালাচ্ছি প্রচার প্রচারনা। কিন্তু এখানকার বিদ্রোহী প্রার্থী নার্গিস সরকার তার ক্ষমতার দাপটের কারণে মানছেন না কোন নীতিমালা।

নার্গিস সরকার জানান, শিক্ষা জীবন থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে আওয়ামীলীগের সাথে জড়িয়ে পড়েন। এবার নির্বাচনে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন চেয়েছিলেন। কিন্তু দল আমাকে মননোয়ন না দিয়ে বহিস্কার করেছে। তবে আমি থেমে নেই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করছি। নীতিমালা লক্সঘনের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন কে কি বলছে তা আমার দেখার বিষয় নয়। আমি ভোট যুদ্ধে নেমেছি তাই যুদ্ধে একটুও পেছনে থাকতে রাজি নই।
উপজেলা নির্বাচন অফিসার তোজাম্মেল হক জানান, আমি এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ পাই নাই। অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।