Pages

Categories

Search

আজ- শুক্রবার ১৬ নভেম্বর ২০১৮

নওগাঁর রাণীনগরে ভূমিহীনের মাটির বাড়ী সর্ম্পন গুড়িয়ে দিয়েছে প্রভাবশালীরা : মারপিট,ভাঙ্গচুর ও লুটপটে

জুন ২৩, ২০১৫
অপরাধ, নওগাঁ
No Comment

23-6-2015(pic)[1]
নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর রাণীনগরে এক ভূমিহীন পরিবারের মাথা গোজার একমাত্র ঠাঁই মাটির দুটি ঘড় সম্পূর্ন ভেঙ্গে গুড়িয়ে মাটির সাথে মিশে দিয়েছে প্রভাবশালী আলম বাহিনী। বুধবার ওই ভূুমিহীনের খড়ের পালায় আগুন দেয়ার ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ করার পর পুলিশি কোন প্রতিকার না মিললেও সব শেষ মাথা গোঁজার ঠাই টুকু হারাতে হলো তাকে।
স্থানীয় সুত্রে জানাগেছে, উপজেলার ভাটকৈ গ্রামের মৃত বাবর আলীর ছেলে বাস্তহারা হামিদুল ইসলাম বাহাদুর গত ৮/১০ বছর আগে ভাটকৈ পৌঁওতা মৌজায় ১ নং খাস খতিয়ান ভুক্ত পুকুর পারে মাত্র পাঁচ শতক  জায়গার উপর মাটিদ্বারা দুটি কক্ষ নির্মান করে টিনের ছাউনি দিয়ে কোন রকমে স্ত্রী সন্তান নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। এমতবস্থায়  গত দেড় বছর আগে হামিদুল ইসলাম বাহাদুর ওই জায়গা পত্তনের জন্য রাণীনগর ভূমি অফিসে আবেদন করে। আবেদনের প্রেক্ষিতে সার্ভেয়ার তদন্তও হয়েছে। এরই মধ্যে একই গ্রামের মছির উদ্দেিনর ছেলে আলম হোসেন ওই জায়গার মালিকানা দাবি করে বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করতে থাকে। এক পর্যায়ে গত মঙ্গলবার রাতে ভূমিহীন হামিদুলের একটি খড়ের পালায় আগুন দেয়ার ঘটনায় বুধবার আলম সহ কয়েকজনকে জরিয়ে রাণীনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে বাহাদুর। অভিযোগের ৭ দিন   অতিবাহিত হলেও পুলিশের রহস্যজনক ভূমিকার মধ্যে দিয়ে গতকাল মঙ্গলবার সকাল অনুমান সাড়ে ৬ টায় আলম তার দলবল নিয়ে হামিদুলের বাড়িতে হামলা চালিয়ে মারপিট করে মাটির দুটি কক্ষ সম্পূর্ন ভেঙ্গে মাটির সাথে মিশে দিয়েছে।
এব্যাপারে ভূমিহীন হামিদুল ইসলাম বাহাদুর জানান, থানায় অভিযোগ দায়ের করার কারণে আমার প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে গতকাল মঙ্গলবার সকালে হামলা চালিয়ে মারপিট করে বাড়ী ঘর সম্পূর্ন ভেঙ্গে দিয়েছে। বর্তমানে স্ত্রী সন্তান নিয়ে খোলা আকাশের নিচে অবস্থান ছাড়া মাথাগোঁজার ঠাই নাই বলে জানান তিনি।
এব্যাপারে আলম হোসেন জানান, আমি ওই জায়গা অন্য একজনের  কাছ থেকে কিনে স্ট্যাম্পের উপর লিখে নিয়েছি। আমার জায়গা প্রায় ৫/৬ বছর ধরে বেদখল থাকায় লোকজন নিয়ে ভেঙ্গে দিয়েছি।
রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল-মাসউদ চৌধুরী জানান, ঘটনা শোনার পর পরই সেখানে অফিসার পাঠানো হয়েছে।
এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ঘটনাস্থলে অবস্থানরত তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মহসিন আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মোবাইল ফোনে জানান, বাড়ীটি সম্পূর্ণ  ভেঙ্গে ফেলেছে । দায়ীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।