Pages

Categories

Search

আজ- মঙ্গলবার ১৩ নভেম্বর ২০১৮

নওগাঁর তালতলী হতে পারে পর্যটনের উজ্জ্বল সম্ভাবনাময় স্থান

Naogaon_Taltoli_Pic.1[1]

আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর তালতলি ঘাট এখন নওগাঁ জেলা সহ পাশের জেলার মানুষদের কাছে একটি সু-পরিচিত পর্যটনকেন্দ্রের নাম। এটি নওগাঁ সদর হতে মাত্র ০৩ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত। রাস্তার দুপাশ দিয়ে সবুজে ঘেরা গাছ আর বিলের পানি সব মিলিয়ে এযেন কোন এক সমুদ্র সৈকত। তালতলি পাখির কোলাহলে মুখরিত এক নৈসর্গিক প্রাকৃতিক অপরূপ সৃষ্টি।

স্থানীয়রা জানান, সরকারি ভাবে যদি বর্তমান এলাকার সম্প্রসারণ করে এখানে আধুনিক মান সম্মত বিভিন্ন অবকাঠামোর কাজ করা হয় ও ব্যাপক নিরাপত্তার ব্যবস্থা করে পর্যটন এলাকা হিসেবে গড়ে তোলা হয় তবে সরকার প্রতি বছর এখান থেকে অনেক অর্থ রাজস্ব হিসেবে আয় করতে পারবেন বলে স্থানীয়দের আশা। বর্ষা মৌসুমের কয়েক মাস এখানকার অনেক বেকার মানুষ খুজে পায় তাদের কর্মসংস্থানের পথ।

বর্ষা মৌসুমে এখানে বিলের অথৈ জলরাশি মন কেড়ে নেয় এখান আসা অতিথিদের মন। যান্ত্রিক জীবনের বেড়া জাল থেকে একটু বিনোদন পেতে প্রকৃতি প্রেমী ভ্রমণ পিপাসু মানুষরা এখানে ছুটে আসেন স্বপরিবারে। থই থই পানিতে ঘেরা বিশাল বিল তার পাশেই ঐতিহ্যবাহী দুবলহাটি রাজবাড়ী সবমিলিয়ে এই তালতলি হতে পারে পর্যটনের জন্য এক উজ্জ্বল সম্ভাবনাময় স্থান। এযেন একের ভিতর দুই।

তালতলী হতে দুবলহাটি রাজবাড়ী পর্যন্ত পাকা সড়কের দু’পার্শ্বে ছায়াঘেরা অরণ্য আর চারদিকে বিলের থইথই পানি সহজেই নজর কারে ভ্রমন পিপাসুদের। প্রতিদিন বিকেল হতে সন্ধ্যা অবধি দুর দুরান্ত থেকে হাজারো মানুষ সেখানে আসেন বিনোদনের জন্য। ভ্রমনের জন্য আছে ছোট-বড় নৌকা, স্থানীয় প্রশাসনের উদ্যোগে বসার জন্য রাস্তার পাশদিয়ে বানানো হয়েছে ইটের তৈরী অনেক বেঞ্চ। খাবারের জন্য চটপটি, ফুচকা সহ সাজানো হয় হরেক রকম দোকানের পশরা। কিন্তু পর্যাপ্ত অবকাঠামো না থাকা ও নিরাপত্তার কারনে কিছুটা অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন এখানে আসা পর্যটকরা।

জেলার বদলগাছী উপজেলা থেকে আসা ভ্রমণকারী মো: জাহাঙ্গির হোসেন জানান, আমি অনেকদিন যাবত এই তালতলির নাম শুনে এসেছি কিন্তু কখনো এখানে আসা হয়নি। তাই এই বর্ষা মৌসুমে স্ব পরিবারে এখানে এসেছি। স্থানটি আমার কাছে অত্যন্ত ভালো লেগেছে। এযেন প্রকৃতির ছাঁয়া ঘেরা আপন মহিমায় সজ্জিত এক মনোরম পরিবেশ। তবে এখানে নিরাপত্তা ব্যবস্থার অনেক ঘাটতি রয়েছে। তবে যদি সরকারি ভাবে এই স্থানটিকে আধুনিক দর্শনীয় স্থান হিসেবে গড়ে তোলা যায় তবে এটি পর্যটন শিল্পের একটি অংশে পরিণত হবে নি:সন্দেহে।

জেলার আত্রাই উপজেলা থেকে ভ্রমণ করতে আসা মো: আসাদুল ইসলাম জানান, এখানে আমি অনেকবার এসেছি। স্থানটি আমার কাছে অত্যন্ত প্রিয়। প্রিয়জন সহ নৌকায় অনেকবার ভ্রমণ করেছি। স্থানটিকে যদি সরকারি ভাবে আরো সম্প্রসারণ করে আধুনিকতা ছোঁয়ায় সাজানো যায় তবে এখানে বর্ষা মৌসুমে প্রতিনিয়ত ভ্রমণকারীরা আসবেন এবং এখানকার অনেক বেকার মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও হবে।

সকলের দাবী কর্তৃপক্ষ যদি এই দর্শনীয় স্থানটিকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণ ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করে তাহলে এই তালতলী হতে পারে বিরাট সম্ভাবনাময় পর্যটন পট। খুলে যেতে পারে নওগাঁ জেলায় আরেকটি পর্যটনের দুয়ার।