Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৪ নভেম্বর ২০১৮

তাড়াশে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য-বিয়ে থেকে রক্ষা পেল সুমাইয়া : চাচার ৭ দিনের করাদন্ড

এ এম জাহিদ হাসান, চলনবিল ব্যুরো চীফ: সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য-বিয়ে থেকে রক্ষা পেল ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী সুমাইয়া খাতুন (১২)। বাল্য বিয়ের আয়োজন করার অপরাধে মেয়ের চাচা মোজ্জাফর আলীকে ৭দিনের করাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। এ সময় স্থানীয় ই্উপি সদস্য ইসাহাক আলী বাল্য বিয়ে হচ্ছেনা বলে  মিথ্যা তথ্য দিয়ে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাকে বিভ্রান্তি করায় তাকে তিরস্কার করা হয়।
পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, বুধবার বিকালে উপজেলার তালম ইউনিয়নের গোন্তা গ্রামের মজিবর রহমানের মেয়ে পাড়িল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেনীর ছাত্রী সুমাইয়া খাতুনের সাথে পার্শ্ববর্তী সিংড়া উপজেলার ইতালি ইউনিয়নের পাকুরিয়া গ্রামে  বিয়ের আয়োজন চলছিল। বিষয়টি জানার পর মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা স্থানীয় ইউপি সদস্যকে অবগত করলে সে বাল্য বিয়ে হচ্ছেনা বলে  মিথ্যা তথ্য দিয়ে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাকে  বিভ্রান্তি করে।
পরে সংবাদকর্মীরা বাল্য বিয়ের সত্যতা নিশ্চিত করলে উপজেলা নিবার্হী অফিসার জিল্লুর রহমান খান পুলিশ নিয়ে  বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হন। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বর পক্ষ ও মেয়ের বাবা-মাসহ সকলে পালিয়ে যায়। পরে মেয়ের চাচা মোজ্জাফর আলীকে গ্রেফতার করে ভ্রাম্যমান আদালতে ৭ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন।