Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৪ নভেম্বর ২০১৮

টঙ্গীতে ভুল চিকিৎসায় মৃত্যু : ডাক্তার নার্সদের পলায়ন

সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৪
গাজীপুর সদর, স্বাস্থ্য
No Comment

টঙ্গী  প্রতিনিধি ঃ রাজধানীর মহাখালীতে ইনস্টিটিউট অব হেল্থ টেকনোলজি (আইএইচ টি) এর অধ্যক্ষ ও আওয়ামীলীগ সমর্থিত চিকিৎসকদের সংগঠন শ্বাচিব নেতা ডা. জালাল আহমেদ এর মালিকানাধীন টঙ্গী স্টেশন রোডের সেবা শুশ্রুষা হাসপাতালে গত রোববার রাতে ভুল চিকিৎসায় আয়েশা (২২) নামের এক রোগিনীর মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। পুলিশ রাতেই লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। এঘটনায় বিক্ষুব্ধ স্থানীয় জনতা হাসপাতালটি রাতে ঘেরা করলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এনিয়ে গত ৬ মাসে হাসপাতালটিতে ভুল চিকিৎসায় ৪ জনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় হাসপাতালটি একাধিকবার ভাংচুরের শিকারও হয়েছে।
নিহত আয়েশার ¯^জনেরা জানান, আয়েশার গলার টিউমার অপারেশনের জন্য গত তিন দিন আগে তাকে সেবা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার শরীরে রক্ত ভরে অপারেশনের পূর্ব প্রস্তুতি চলছিল। রোববার রাত সাড়ে ৭টার দিকে তার শরীরে হঠাৎ রক্ত সঞ্চালন বন্ধ হয়ে যায় এবং পেটে ব্যথা শুর“ হয়। এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে দুটি বড়ি খেতে দেন। বড়ি দুটি খাওয়ার প্রায় ১০ মিনিট পর অসহ্য যন্ত্রনায় ছটফট করার এক পর্যায়ে তিনি মারা যান। এঘটনার পর হাসপাতালে কর্তব্যরত সব ডাক্তার, নার্স ও স্টাফ পালিয়ে যান। এমনকি নিয়মিত যেসব ডাক্তার বাহির থেকে এসে রোগী দেখেন তারাও ভয়ে চেম্ভার বন্ধ করে চলে যান। খবর পেয়ে নিহতের আত্মীয় শ্বজন ও এলাকাবাসী হাসপাতালের সামনে জড়ো এসে হতে থাকেন। একপর্যায়ে সেখানে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে পুলিশ মোতায়েন  করা হয়। পরিস্থিতি শান্ত করার জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পুলিশের সহযোগিতায় নিহত আয়েশার শ্বামী জসিমকে হাসপাতালের একটি কক্ষে নিয়ে প্রায় দুই ঘণ্টা রুদ্ধদ্বার বৈঠক করে। পরে বৈঠক থেকে বেরিয়ে নিহতের শ্বামী জসিম বলেন ‘আমার কোন অভিযোগ নাই’। পরে এব্যাপারে মামলা না দিয়েই ময়না তদন্ত ছাড়াই থানা থেকে নিহতের লাশ ফেরত নেয়া হয়। নিহত আয়েশার শ্বামী জসিম বাস হেলপার। হাসপাতালের পাশেই একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন তারা। তাদের ৬ বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। জসিমের বাড়ি ভোলা জেলার লালমোহন থানার চর যমুনা গ্রামে এবং নিহত আয়েশার বাড়ি একই জেলার চরফ্যাশন থানার নিল কামাল গ্রামে বলে জানা গেছে।
হাসপাতালটির মালিক ডা. জালাল আহমেদ ভুল চিকিৎসায় রোগিনীর মৃত্যুর অভিযোগ শ্বীকার করে বলেন, ওষধ প্রয়োগের আগে রোগিনীকে আরো পর্যবেক্ষণে রাখার উচিত ছিল।  মৃত্যুর আগে ডিউটি ডাক্তার মালিথা ওই রোগিনীকে ব্যাথা নাশক এলজিন ও প্যারাসিটামল ট্যাবলেট খাইয়েছেন বলেও  তিনি জানান। গত ৬ মাসে তার হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় ৪ জনের মৃত্যুর ব্যাপারে তিনি বলেন, এটি শ্বাভাবিক ঘটনা। একটি হাসপাতালে ৬ মাসে ৪ জন কেন আরো বেশি মারা যেতে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন।