Pages

Categories

Search

আজ- বৃহস্পতিবার ১৮ অক্টোবর ২০১৮

টঙ্গীতে প্রেমিকাকে ধর্ষনের পর হত্যা

অগাষ্ট ৯, ২০১৫
গাজীপুর মহানগর, হত্যা
No Comment

Gazipur-_09_August_2015-Murder

গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট: গাজীপুরের টঙ্গীতে প্রেমিকাকে ধর্ষনের পর হত্যা করেছে তার প্রেমিক। নিহতের নাম শান্তা (১৯)। সে নেত্রকোনার নাগরা এলাকার ইসলাম উদ্দিনের মেয়ে। পুলিশ এঘটনায় প্রেমিক রোকন মিয়াকে (২৩) গ্রেফতার করেছে।

টঙ্গী থানার কর্তব্যরত কর্মকর্তা সহকারী উপ-পরিদর্শক মোস্তফা কামাল জানান, গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গীর একটি টেক্সস্টাইল মিলে কাজ করতো শান্তা। গত প্রায় সাত মাস ধরে তার সঙ্গে একই কারখানার রোকন নামে এক কর্মীর প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। রোকন মিয়া (২৩) রাজশাহী জেলার বাঘা উপজেলার চকবাজার রাজাপুর গ্রামের সাঈদ মৃধার ছেলে। শনিবার সকালে রোকন তার প্রেমিকা শান্তাকে নিয়ে তার বন্ধু মিন্টু মিয়ার বাসায় যায়। মিন্টু টঙ্গীর পাগাড় ঝিনু মার্কেট এলাকার বাবুলের বাসার ভাড়াটিয়া। মিন্টু স্থানীয় একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক। মিন্টু তার কর্মস্থলে চলে গেলে রোকন তার প্রেমিকা শান্তাকে ধর্ষন করে। এসময় রোকন ও শান্তার মাঝে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয় একপর্যায়ে রোকন গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে প্রেমিকা শান্তাকে হত্যা করে। পরে সে নিহতের লাশ খাটের নিচে লুকিয়ে রাখে। মিন্টু রাতে তার কর্মস্থল থেকে ফিরে এলে রোকন তাকে ঘরের চাবি বুঝিয়ে দিয়ে চলে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় রোকনের আচরণ সন্দেহ হলে মিন্টু তাকে এলাকাবাসীর সহায়তায় ঘরে আটকে রাখে। পরে এলাকাবাসী এসে ধর্ষন ও হত্যার আলামত পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ এসে শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে রোকনকে গ্রেফতার ও নিহত প্রেমিকা শান্তার লাশ উদ্ধার করে। রোকন পুলিশের কাছে শান্তাকে ধর্ষন ও হত্যার কথা শ্বীকার করেছে।

পুলিশ জানায়, এ ব্যাপারে নিহতের পিতা বাদি হয়ে হত্যা ও ধর্ষনের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করেছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল তিনটার মধ্যে যে কোনো সময় এ ঘটনা ঘটে। ঘাতক প্রেমিককে রবিবার আদালতে পাঠানো হয়েছে।