Pages

Categories

Search

আজ- সোমবার ১২ নভেম্বর ২০১৮

ঝালকাঠির ৩টি ইউনিয়নে ভূমি অফিস না থাকায় জনসাধারণের চরম দুর্ভোগ

এপ্রিল ৫, ২০১৭
জনদুর্ভোগ, ঝালকাঠি
No Comment


মোঃ আমিনুল ইসলাম, ঝালকাঠি সংবাদদাতাঃ ঝালকাঠি জেলার ৪ উপজেলার ৩২ টি ইউনিয়নের ৩ টি ইউনিয়নে ভূমি অফিস নেই। এ তিন ইউনিয়নের জনসাধারনকে ভূমি সংক্রান্ত সেবা নিতে বহু দূর পথ অতিক্রম করতে হচ্ছে। একারণে তিন ইউনিয়নবাসীতে ভূমি কর প্রদান, ভূমি উন্নয়ন ব্যবস্থাসহ ভূমি বিষয়ক যাবতীয় সেবা পেতে পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ। জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে জানাগেছে, ঝালকাঠি জেলায় ইউনিয়ন সংখ্যা ৩২, ইউনিয়ন ভূমি অফিস রয়েছে ২৯ টি। ৩ টি ইউনিয়নে ভূমি অফিস নেই। তা হলো নলছিটি উপজেলার ভৈরবপাশা, মোল্লারহাট ও নাচনমহল ইউনিয়নে। ১৯৮৪ সালে ইউনিয়ন ভিত্তিক ভূমি অফিস নির্মাণ প্রবর্তন করা হয়। যে অফিস থেকে জমি রেকর্ড, খাজনা আদায়, মিউটিশন, পর্চা প্রদানসহ বিভিন্ন কাজ সম্পাদন করা হয়।
ভৈরবপাশা ইউপি চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন আহমেদ জানান, আমাদের ইউনিয়নে ভূমি অফিস নেই। ভূমি সংক্রান্ত যাবতীয় সমস্যার জন্য যেতে হচ্ছে সেবা নিতে পার্শ্ববর্তী মগড় ইউনিয়নের রায়াপুর কাছারীবাড়ি ভূমি অফিসে। যা আমাদের ইউনিয়ন থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।
মোল্লারহাট ইউপি চেয়ারম্যান কবির হোসেন জানান, আমাদের ইউনিয়নে কোন ভূমি অফিস নেই। আছে শুধু একটি কর আদায় ক্যাম্প। এ ইউনিয়নের ভূমি সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় কাজ হয় পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন সুবিদপুরে। যা মোল্লারহাট ইউনিয়ন থেকে ৭ কিলোমিটার দূরে। এতে জনসাধারনের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।
নাচনমহল ইউপি চেয়ারম্যান ও প্রবীণ ব্যক্তিত্ব মোঃ সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমাদের ইউনিয়নের ভূমি অফিসের যাবতীয় কাজ হয় পার্শ্ববর্তী কুলকাঠি ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষে। যা আমাদের ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ৩ কিলোমিটারেরও বেশি দূরে অবস্থিত। প্রত্যন্ত অঞ্চল হিসেবে দুর্গম পথ পাড়ি দিয়ে জনসাধারনকে ভূমি সংক্রান্ত যাবতীয় প্রয়োজনে সেখানে যেতে হচ্ছে। যা সীমাহীন দূর্ভোগ।
ঝালকাঠি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ জাকির হোসেন জানান, ভূমি কর আদায় ও ভূমি উন্নয়ন ব্যবস্থাসহ যাবতীয় ভূমি সংক্রান্ত সেবা নিশ্চিত করণের জন্য ভূমি মন্ত্রণালয়ে ইতি পূর্বে আবেদন করা হয়েছে। সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে যে সব ইউনিয়নে ভূমি অফিস নেই সেসব ইউনিয়নে ভূমি অফিস স্থাপন করা। সেই সাথে যে সব ইউনিয়নের এলাকা বড় সেসব ইউনিয়নে একাধিক ভূমি খাজনা আদায় অফিস স্থাপন করা।