Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

চলতি বছরের শেষের দিকে শ্রীপুর পৌরসভা নির্বাচন

জুন ৩০, ২০১৫
নির্বাচন, শ্রীপুর
No Comment

গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট: গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠানে আইনগত কোনো বাধা নেই। মেয়াদোর্ত্তীণ হয়েছে অনেক আগে এবং সীমানা নির্ধারনের জটিলতা কেটে গেছে বলে জানিয়েছেন গাজীপুর জেলা নির্বাচন অফিসার মো: হাসানুজ্জামান।
আয়তনের দিক থেকে  দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম পৌরসভা শ্রীপুর। ২০০৭ সালে প্রথম ভোটার তালিকা প্রনোয়ন পাইলট প্রকল্পসহ নানা কারণেই শ্রীপুর পৌরসভা দেশব্যাপী ব্যপক পরিচিত। দুই বছর আগে মেয়াদোর্ত্তীণ এই স্থানিয় সরকার প্রতিষ্ঠানটির নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য তফসীল ঘোষণা করা হয়েছিল। তখন স্থানিয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ আরো কিছু এলাকা (মাওনা ও তেলিহাটি ইউনিয়নের কিছু অংশ) পৌরসভায় অর্ন্তভুক্ত করে সীমানা পূর্ণনির্ধারণের আবেদন জানান। তখন স্থানিয় সরকার মন্ত্রণালয় নির্বাচন স্থগিত করে নতুন কিছু এলাকা পৌরসভায় অর্ন্তভুক্ত করে সীমানা পূর্ণনির্ধারণের যৌক্তিকতা যাচাই করে গাজীপুরের জেলা প্রশাসকের কাছে প্রতিবেদন চায়। জেলা প্রশাসন সরেজমিন তদন্ত করে কৃষি জমি নষ্টের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে নতুন এলাকা অর্ন্তভুক্তিতে দ্বিমত পোষণ করে এবং পূর্বের সীমানা বহাল রাখার পক্ষে মত দিয়ে মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন দেয়। সেই মোতাবেক স্থানিয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে নির্বাচন কমিশনকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে শ্রীপুর পৌর সভায় নতুন এলাকা অর্ন্তভুক্তির কোনো সুযোগ নেই। এতে করে মেয়াদোর্ত্তীণ এই পৌর সভার নির্বাচন অনুষ্ঠানে আর কোনো বাধা নাই।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০০৮ সালের ৪ আগষ্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচীত পৌর পরিষদের প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয় ১১ সেপ্টেম্ভর ২০০৮। প্রথম সভার হিসাবে মেয়াদোর্ত্তীণ হয়েছে ২০১৩ সালের ১০ সেপ্টেম্ভর। সময় মতো নির্বাচন অনুষ্ঠানে জেলা নির্বাচন অফিস তফসিল ঘোষণা করলেও  আইনী জটিলতার কারণে নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়। নির্বাচন অনুষ্ঠানে ভোটারদের চাহিদার কথা জানিয়ে সম্প্রতি উপজেলা ও জেলা নির্বাচন অফিস নির্বাচন কমিশনে সুপারিশসহ পত্র পাঠিয়েছেন। নির্বাচন কমিশনের বরাত দিয়ে জেলা নির্বাচন অফিসার মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান গাজীপুর দর্পণকে জানান, চলতি বছরের শেষের দিকে মেয়াদোর্ত্তীণ পৌরসভাগুলোর ভোট অনুষ্ঠানের সম্ভাবনা রয়েছে।