Pages

Categories

Search

আজ- শুক্রবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

গোবিন্দগঞ্জে ধর্মা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নিয়োগে আদালতের নিষেধাজ্ঞা

জানুয়ারি, ১৬, ২০১৭
অনিয়ম, গাইবান্ধা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান
No Comment

images-21

শাহ আলম সরকার সাজু, গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা ) প্রতিনিধি: গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ ধর্মা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়টিয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের যোগসাজসে পকেট কমিটি গঠন ও গোপনে প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ, আদালতে মামলা হওয়ায় তরিঘরি করে যোগদান করাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এলাকার লোকজন সুষ্ট তদন্ত সাপেক্ষে সভাপতি ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের বিচার চায়।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ধর্মা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক নূরুল আমিন গত ২৯ সেপ্টেম্বর/১৬ ইং তারিখে বিদ্যুৎ পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হওয়ার পর ম্যানেজিং কমিটির সভায় সরকারী বিধি মোতাবেক সহকারী প্রধান শিক্ষক মোছাঃ মোনোয়ারা বেগমকে গত ২রা অক্টোম্বর/১৬ তারিখে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নিয়োগ করেন। ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব থাকা অবস্থায় গত ১৫ অক্টোম্বর ইং তারিখে ধর্মা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির মেয়াদ শেষ হইলে বিধি মোতাবেক মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড নালিশী বিদ্যালয়ে গত ১৮ অক্টোম্বর/১৬ ইং তারিখে এ্যাডহক কমিটির অনুমতি প্রদান করেন। সেই মতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অভিভাবক সদস্য টিপু সুলতানকে মোনোনয়ন দিলে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের যোগ সাজসে পূর্বের সভাপতি আর্থিক বিনিময়ে তৎকালীন প্রধান শিক্ষকের নির্বাচিত কমিটির সদস্যকে বাদ দিয়ে নতুন সদস্যর নাম অর্ন্তভূক্ত করিয়া বিধি পরিপন্থি ভাবে দীর্ঘ দিন পর অন্তবর্তী কালীন সময়ে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করিয়া আর্থিক বিনিময়ে যোগসাজসী কমিটি গঠন করেন। অতপর ১২ নভেম্বর/১৬ ইং তারিখে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করিলে সভাপতি ও উপজেলা শিক্ষা অফিসারের তালবাহানা শুরু হয়। ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোছাঃ মোনোয়ারা বেগমকে না জানিয়ে নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করিয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কোন সভা আহবান না করতেই কাউকে দায়িত্ব প্রদান না করতেই পরিপত্র পরিপন্থি ভাবে জুনিয়র শিক্ষক জাহিদাকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক দেখিয়ে জেলা শিক্ষা অফিসে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্রাদি প্রেরন না করিয়াই আর্থিক বিনিময়ে ডিজি প্রতিনিধি নিয়োগ করিয়া গত ৫ জানুয়ারী/১৭ ইং তারিখে গোঃ বাঃ উচ্চ বিদ্যালয়ে কোন পরীক্ষা না দেখিয়া সম্পুর্ন অনিয়মের মাধ্যমে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে অনিয়মকে নিয়মে পরিনত করিয়া কৃষি শিক্ষক খাইরুল বারীকে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেয়। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ নিয়ে গোবিন্দগঞ্জ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে বিজ্ঞাপনী অন্য ৬/১৭ মোকদ্দমা বিচারাধীন আছে। অত্র মামলার নিষেধাজ্ঞার আদেশ জারী করা আছে। এলাকার লোকজন সুষ্ট তদন্ত সাপেক্ষে সভাপতি ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের বিচার চায়।