Pages

Categories

Search

আজ- সোমবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

গাজীপুর সিটিতে উৎসবমুখর পরিবেশে অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন দেখতে চায় অ্যামেরিকা

মঞ্জুর হোসেন মিলন : একটি উৎসবমুখর, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন প্রত্যাশা করে অ্যামিরিকা যুক্তরাষ্ট্র। ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক কাউন্সিলর বিল মোলার এর নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল গাজীপুর সিটি নির্বাচন প্রচারনা পর্যবেক্ষনে এসে ২০ দলীয় জোট মেয়র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকার ও ১৪ দলীয় জোট মেয়রপ্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের সাথে সাক্ষাতকালে এ মন্তব্য করেন।
বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে প্রতিনিধি দলটি টঙ্গী থানা বিএনপি কার্যালয়ে আসেন। সেখানে ২০ দলীয় জোট মেয়রপ্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার ছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক ফজলুল হক মিলন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব কাজী সাইয়েদুল আলম বাবুল, জেলা বিএনপির সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক সাবেক কাশিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান শওকত হোসেন সরকার, কাপাসিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, টঙ্গী থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম শুক্কুর, জেলা যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি প্রভাষক বসির উদ্দিন সহ বিএনপি নেতারা। প্রতিনিধি দলটি প্রায় ঘণ্টাব্যাপী হাসান সরকারের সাথে কথা বলেন।

বিএনপির নির্বাচনী মিডিয়া সেলের প্রধান ডা. মাজহারুল আলম জানান, যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের প্রতিনিধিরা গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন পর্যবেক্ষণের অংশ হিসেবে হাসান উদ্দিন সরকারের সাথে দেখা করেছেন। এসময় হাসান সরকারের কাছে তারা নির্বাচনী সার্বিক পরিস্থিতির খোঁজ খবর জানতে চান। প্রতিনিধি দলের প্রধান বিল মোলার বলেন, অ্যামেরিকা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক অংশিদার। তারা কোন রাজনৈতিক দলকে সাপোর্ট করেন না। তবে বাংলাদেশে চলে আসা গণতন্ত্রের ধারাবাহিক চর্চা অক্ষুন্ন এবং অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ন নির্বাচন দেখতে চান তারা। নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় বিএনপিকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রতিনিধি দলের প্রধান বিল মোলার বলেন, উৎসবমুখর পরিবেশে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন আমরা প্রত্যাশা করি। তারা মানবাধিকার পরিস্থিতি বিশ^দরবারে গুরুত্ব সহকারে তুলে ধরেন বলেও জানান।
হাসান সরকার প্রতিনিধিদলকে জানান, গাজীপুর একটি শ্রমিক অধ্যুষিত এলাকা। তিনি তরুণ বয়স থেকেই শ্রমিকদের অধিকার নিয়ে কাজ করেন। তিনি টঙ্গী শিল্প এলাকায় একসময় শ্রমিক রাজনীতির নেতৃত্ব দিতেন। শ্রমিকদের অধিকার আদায়ে সর্বোচ্চ ভূমিকা রেখেছেন তিনি। তিনি টঙ্গী পৌরসভা, জেলা পরিষদ ও সংসদ সদস্যের দায়িত্বে থাকাকালে এলাকায় অনেক উন্নয়ন কর্মকান্ডে ভূমিকা রেখেছেন। বিশেষ করে শ্রমিকদের সন্তানেরা যাতে শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত না হয় সেজন্য তিনি বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করেছেন। এমনকি বৃহৎ শিল্প কারখানাগুলোতেও আলাদা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করে দিয়েছেন। এবার নির্বাচিত হলে তিনি শ্রমিকদের চিকিৎসার জন্য আধুনিক মানের উন্নত একটি হাসপাতাল করতে চান। শ্রমিকদের জীবন মান উন্নত করতে যান। তিনি প্রতিনিধি দলকে জানান, উচ্চ ভিত্তরা অসুস্থ হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে চলে যান। কিন্তু শ্রমিক শ্রেণীর মানুষের সেই সামর্থ নেই। তাই আমি শ্রমিকদের জন্য সব ধরণের উন্নত চিকিৎসার সুবিধা সম্পন্ন সর্বাধুনিক একটি হাসপাতাল করতে চাই। যেখানে নিন্ম আয়ের নাগরিকরা স্বল্প ব্যয়ে উন্নত চিকিৎসার সুবিধা পাবেন। এব্যাপারে তিনি তাদের সহযোগিতা চান। জল ও যানজট নিরসনে রাস্তা ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা প্রশস্ত করার পরিকল্পনার কথাও জানান তিনি। হাসান সরকারের উন্নত চিন্তা চেতনাকে সম্মান জানিয়ে এসময় প্রতিনিধি দলটি জানায়, তারা শ্রমিকদের বিষয়টি বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখেন।
এর পর সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ছয়দানা এলাকায় আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের বাস ভবনে নির্বাচনী পরিবেশ নিয়ে কথা বলতে যান মার্কিন প্রতিনিধি দল। এসময় প্রতিনিধি দলটি গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের বিদ্যমান পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অবাধ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমি মার্কিন প্রতিনিধি দলকে বলেছি, সাধারণ ভোটার, প্রার্থী, বিরোধী দলসহ সকলের সাথে আমাদের সুসম্পর্ক রয়েছে। আমি সকলকে নিয়ে এখানে গণতন্ত্র চর্চা করতে চাই। আগামী ১৫ মে ভোট উৎসবমুখর পরিবেশে নিরপেক্ষ, স্বচ্ছ এবং জবাবদিহিতামূলক করতে চাই। নির্বাচনে কোন মারামারি, কাদা ছোড়াছোড়ি বা বিশৃংখল পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে না। আমরা গরিব দেশ, অর্থনৈতিকভাবে স্বনির্ভর হবার জন্য আমি সিটি কর্পোরেশনে গার্মেন্টস শিল্প আরো আধুনিকীকরণ ও পরিবেশ, ড্রেনেজ ব্যবস্থা, যোগাযোগসহ সকল বিষয়ে মাস্টার প্ল্যান করেছি। তা বাস্তবায়নের লক্ষে আমি তাদের সহযোগিতা চেয়েছি যাতে এর মাধ্যমে সকলে মিলে একটি আধুনিক রাষ্ট্র এবং এই গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনকে একটি আধুনিক শহর করতে চাই। সেই জন্য আমি তাদের সহযোগিতা চেয়েছি। লোকাল সকলের মতামত, সহযোগিতা এবং ভোট চাই। সেই হিসাবে সকলকে আমি দাওয়াত দিচ্ছি।
কাউন্সেলর মোলার বলেন, আমি গাজীপুরে আসতে পেরে আনন্দিত। বাংলাদেশে ঢাকার বাহিরে গাজীপুর একটি গুরত্বপূর্ণ নগর। আমি এখানে নির্বাচনী পরিবেশ পর্যবেক্ষণ করতে এসেছি। খুবই গুরুত্বপূর্ণ এই নির্বাচন। এখানে সব দলের প্রার্থীদের কথা শুনেছি। সব প্রার্থীই নির্বাচনী পরিবেশ নিয়ে সুন্দর মন্তব্য করেছেন। বাংলাদেশের গণতন্ত্রের জন্য যা আশাব্যঞ্জক। আমি দেখতে পেয়েছি গাজীপুরে বৃহৎ আকারে সব রাজনৈতিক দলই নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছে। এটা খুবই ভাল বাংলােেদশের জন্য। যা বাংলাদেশের গণতন্ত্রের জন্য ভাল হবে। আমাদের প্রধান বার্তা হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে সাপোর্ট করে। আমরা প্রত্যাশা করি এখানে মুক্তভাবে, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে মানুষ ভোটাধিকার প্রয়োগ করবে।

২০ দলীয় জোট মেয়র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকারের প্রচারণা
গাজীপুর সিটি নির্বাচনে ২০ দলীয় জোট মেয়র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকার সকালে অ্যামেরিকার নির্বাচনী পরিবেশ পর্যবেক্ষণ দলের সাথে সাক্ষ্য শেষে জাগপার নেতা কর্মীদের সাথে মতবিনিময় করেন।পরে ২০ দলীয় জোট মেয়র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকারের প্রচারণা নেতা, কর্মী-সমর্থকদের সাথে নিয়ে টঙ্গী শহরের আউচপাড়া থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন। এসময় সাথে ছিলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক ফজলুল হক মিলন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব কাজী সাইয়েদুল আলম বাবুল, জেলা বিএনপির সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক সাবেক কাশিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান শওকত হোসেন সরকার, কাপাসিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, টঙ্গী থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম শুক্কুর, জেলা যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি প্রভাষক বসির উদ্দিন সহ বিএনপি নেতারা। মেয়র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকার রাত ব্যাপী শহরে প্রচারণা চালান।

এডভোকেট আজমত উল্লা খান ও জাহাঙ্গীর আলমের সরব নির্বাচনী প্রচারণা
গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে এডভোকেট আজমত উল্লা খান ও আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম একই প্ল্যাটফর্ম থেকে সরব প্রচারণা চালিয়েছে।
এতে হাজার হাজার উৎফুল্ল নেতাকর্মী বিভিন্ন ¯েøাগান দিতে থাকেন। দুই নেতাকে একসঙ্গে প্রচারণায় দেখতে পেয়ে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মাঝে চরম উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা গেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টার সময় গাসিক ৩৮নং ওয়ার্ডের কুনিয়া বড়বাড়ি এলাকার জয়বাংলা সড়ক এলাকা থেকে প্রচারণার শুরু হয়।
বড়বাড়ি এলাকায় এক পথসভায় বক্তৃতাকালে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট আজমত উল্লা খান বলেন, আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করতে সকল নেতাকর্মী ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রচারণা চালাচ্ছি।
তিনি বলেন, আমাদের এই বিশাল মিছিলই বলে দেয় আগামী ১৫ মে জননেত্রী শেখ হাসিনার নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত।
তিনি আরও বলেন, নৌকা তথা এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমকে বিজয়ী করতে আমরা সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করতে রাজি আছি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী ইলিয়াস আহমেদ, মহিউদ্দিন মহিসহ অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীরা।
এদিকে দক্ষিণ খাইলকুর বাহার মার্কেটের সামনে দ্বিতীয় পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় আজমত উল্লা খান ও জাহাঙ্গীর আলম এই দুই নেতাকে কাছে পেয়ে জনসাধারণের মধ্যে ব্যাপক উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়। পরে ওই দুই নেতা গাসিক ৩২ এবং ৩৩ নং ওয়ার্ডে একযোগে প্রচারণা চালান।