Pages

Categories

Search

আজ- শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ বন্ধ ঘোষণা

গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট : গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা শিক্ষার্থীদের ভাংচুর ও কর্মচারীদের মারধরের ঘটনায় মেডিকেল কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। হাসপাতালের নার্স ও কর্মচারীদের বিক্ষোভ – কর্মবিরতির মুখে মঙ্গলবার দুপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয় এবং একই সাথে আজ সন্ধ্যা ছয়টার মধ্যে ছাত্রাবাস ও ছাত্রীনিবাস ত্যাগের নির্দ্দেশ দেয়া হয়।
একাধিক সুত্রে জানাযায়, সোমবার দুপুরে এক ছাত্রের এক্সরে বিভাগের কর্মচারীদের সাথে কথাকাটাকাটির সুত্রধরে ছাত্ররা এক্স-রে কক্ষ ও হাসপাতালের আসবাবপত্র ভাংচুর এবং আউট সোসিং কর্মচারীদের মারধর করে এবং শ্লোগান দেয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসা শিক্ষার্থীদের হাসপাতাল ভাংচুর ও কর্মচারীদের মারধরের ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার সকাল থেকেই হাসপাতাল চত্তরে বিক্ষোভ মিছিল ও কর্মবিরতি শুরু করে এবং বিচার দাবী করে শ্লোগান দেয়। এসময় ছাত্ররাও বিক্ষোভ করলে হাসপাতালে বিপুল পরিমান পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে গাজীপুরের পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ পিপিএম বোর), অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোলায়মান মিয়া, অতি: পুলিশ সুপার গোলাম সবুর, জয়দেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম সহ পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা: সৈয়দ মো: হাবিবউল্লাহ ও শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা: মো: আসাদ হোসেনের সাথে বৈঠক করেন। পরে মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ একাডেমিক কাউন্সিলের জরুরী বৈঠকে সিদ্ধান্ত নিয়ে কলেজের সকল ক্লাসসমূহ অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে বিজ্ঞপ্তি জারি করেন।


উল্লেখ্য সোমবার দুপুরে একজন ছাত্র সাদা কাগজের শ্লিপে চিকিৎসকের স্বাক্ষর ছাড়া একজন রোগীর এক্সরে করাতে গেলে টেকনিশিয়ান অপারগতা জানান। এত ক্ষিপ্ত হয়ে ওই ছাত্র ফিরে আসে। পরে ছাত্ররা জোট বেধে গিয়ে এক্সরে কক্ষে ভাংচুর করে। পুলিশ জানায় ছাত্রদের প্রহারে দুইদিনে চার কর্মচারী আহত হয়।
গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা: সৈয়দ মো: হাবিবউল্লাহ জানান, হাসাপাতালের চিকিৎসা সেবা স্বাভাবিক আছে।
মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা: মো: আসাদ হোসেন সাংবাদিকদের জানান, অফিস খোলা থাকবে, নতুন ছাত্রদের ভর্তি ও পুরাতন ছাত্রদের ফরম পুরনের কাজ চলবে।