Pages

Categories

Search

আজ- সোমবার ১৯ নভেম্বর ২০১৮

গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ভাংচুর


গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট : গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভাংচুর করেছে চিকিৎসা শিক্ষার্থীরা। সোমবার দুপুরে এক ছাত্র এক্সরে কক্ষে মায়ের এক্সরে করাতে গিয়ে কথাকাটাকাটি হয়। এর কিছুক্ষণ পর ছাত্ররা গিয়ে এক্স-রে কক্ষ ও হাসপাতালের আসবাবপত্র ভাংচুর এবং আউট সোসিং কর্মচারীদের মারধর করে। পরে ছাত্ররা হাসপাতালের অনিয়ম অব্যবস্থার প্রতিবাদ জানায় ও আউট সোসিং ঠিকাদারের বিরুদ্ধে শ্লোগান দেয়। হাসপাতাল ক্যাম্পাসে পুলিশের উপস্থিতিতে ছাত্ররা শান্ত হয়।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসা শিক্ষার্থীরা হাসপাতালের অনিয়ম অব্যবস্থাপনায় দীর্ঘদিন যাবৎ ক্ষুব্ধ। দুপুরে এক ছাত্র তাঁর মাকে নিয়ে এক্সরে করাতে যান। সাদা কাগজের শ্লিপে চিকিৎসকের স্বাক্ষর না থাকায় টেকনিশিয়ান অপারগতা জানান। এত ক্ষিপ্ত হয়ে ওই ছাত্র ফিরে আসে। পরে ছাত্ররা জোট বেধে গিয়ে এক্সরে কক্ষে ভাংচুর করে। এসময় উপস্থিত আউটসোসিং কর্মচারী শাহীন প্রতিরোধের চেষ্টা করে। এতে চিকিৎসা শিক্ষার্থী এবং আউটসোসিং কর্মচারীদের মধ্যে মারামারি শুরু হয়। এঘটনায় কয়েকজন আহত হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধীক ছাত্র জানান, আউটসোসিং কর্মচারীদের র্দূব্যবহারে আমরা অতিষ্ঠ। ক্ষিপ্ত ছাত্ররা নানা অনিয়মের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছে।
এক্সরে টেকনিশিয়ান মোফাজ্জল হোসেন জানান, একজন ছাত্র চিকিৎসকের স্বাক্ষর ছাড়া সাদা কাগজের একটি শ্লিপ নিয়ে এসে এক্সরে করতে বলে। চিকিৎসকের স্বাক্ষর নিয়ে পরদিন আসতে বললে ওই ছাত্র চলে যায়। ঘন্টা খানেক পর ছাত্ররা দল বেধে এসে ভাংচুর শুরু করে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছাত্ররা ভাংচুর ও মিছিল শুরু করলে হাসপাতালে আসা রোগী নারী-পুরুষ এবং শিশুরা ছুটাছুটি করে পালাতে থাকে। পরে পুলিশ আসলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। সুত্র আরো জানান, ছাত্রদের বিক্ষোভের পর আইটসোসিং কর্মচারীরা হাসপাতাল ছেড়ে চলে যায়।
জয়দেবপুর থানার উপ পুলিশ পরিদর্শক মো: আব্দুল মালেক জানান, খবর পেয়ে ফোর্স নিয়ে হাসপাতালে আসার পরই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যায়। হাসপাতাল ক্যাম্পাসে আমরা অবস্থান করছি।
গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা: সৈয়দ মো: হাবিবউল্লাহ বলেন, বিষয়টি ভুল বোঝাবুঝি থেকে হযেছে। আগামী কাল মিটিং ডেকেছি- এবিষয়ে সিদ্ধান্ত নিব।