Pages

Categories

Search

আজ- রবিবার ২৬ মে ২০১৯

গাজীপুরে মুক্তিযুদ্ধের ১ম সশস্ত্র প্রতিরোধ যোদ্ধাদের মানববন্ধন

গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট : মুক্তিযুদ্ধে গাজীপুরবাসীর বীরত্বের ইতিহাসে ‘প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ’এর ৪৮তম বার্ষিকী, ঐতিহাসিক ১৯ মার্চ যথাযথ মর্যাদায় পলিত হয়েছে। বীরত্বগাঁথাময় এ দিবসটি উদ্যাপনে গাজীপুর জেলা প্রশাসন দিনব্যাপী কর্মসূচী গ্রহণ করেন।
মহান মুক্তিযুদ্ধের ১ম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধ অনুষ্ঠিত হয়েছিল গাজীপুরে। ১৯৭১ সালে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে বীর জনতা প্রতিরোধ যুদ্ধ শুরু করে। একই দিন মুক্তিযুদ্ধের ১ম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধের যোদ্ধারা মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতির দাবীতে জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেছেন।
দিবসটি পালন উপলক্ষে গাজীপুর জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীরের নের্তৃত্বে সার্কিট হাউজে স্থাপিত মুক্তিযুদ্ধের ১ম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধের অনুপ্রেরণা ১৯ ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা ১৯ মার্চের বীর শহীদ হুরমত, শহীদ নেয়ামত ও শহীদ মনু খলিফার কবর জিয়ারত করেন।


মঙ্গলবার ১৯৭১ সালের ১৯ মার্চ ১ম সশস্ত্র প্রতিরোধের সাহসী যোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ দিবসটির রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি ও ১ম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধের যোদ্ধাদের মুক্তিযোদ্ধা ঘোষণার দাবীতে জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেন। ১৯মার্চ ১৯৭১ সালের সাহসী যোদ্ধা সমন্বয় পরিষদের সভাপতি মো: অলিউল্লাহ হাওলাদারের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, গাজীপুর জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক মীর দেলওয়ার হোসেন, মো: সিরাজ উদ্দিন ভুঁইয়া, মতিউর রহমান খান, আব্দুল মান্নান শেখ, আব্দুল গনি মিয়া, মোসলেহ উদ্দিন ও শাহ্ আলম ভুঁইয়া। পরে জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি দেন। পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধ সংগ্রামে অংশ নেয়া তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান অর্ডন্যান্স ফ্যাক্টরী, মেশিন টুলস্ ফ্যাক্টরী, ডিজেল প্ল্যান্ট শ্রমিক ও কর্মচারীসহ স্থানিয় মুক্তিকামী হাজারো জনতা প্রতিবাদে ফুঁসে উঠা সাহসী যোদ্ধাদেরকে মুক্তিযুদ্ধা হিসেবে স্বকৃতির দাবী জানান। জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর ১ম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধের যোদ্ধাদের সরকারের আন্তরিকতার বিষয়টি তুলে ধরেন এবং মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পাবেন বলে আশ্বস্ত করেন।
সন্ধ্যায় ভাওয়াল রাজবাড়ি মাঠে মুক্তিযুদ্ধের ১ম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধের যোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
উল্লেখ্য বর্তমান জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীরের উদ্যোগে গাজীপুর সার্কিট হাউজের সামনে মুক্তিযুদ্ধের ১ম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধের অনুপ্রেরণা ১৯ ভাস্কর্য স্থাপন করা হয়।