Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ২১ নভেম্বর ২০১৮

গাজীপুরে কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে নিহত ৯ আহত ৫০


গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট : গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কাশিমপুরের নয়াপাড়া এলাকায় সোমবার রাতে মাল্টি ফ্যাবস লিমিটেড নামের একটি পোশাক কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণের ঘটনায় ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে কমপক্ষে ৫০ জন আহত হয়েছে। হতাহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে ধারণা করছেন উদ্ধারকর্মীরা। নিহতদের মধ্যে দুইজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তাদের একজনের নাম আল আমিন (৩০) ও অন্য জন হলেন সোলাইমান(৩০)। বাকী হতাহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

গাজীপুরের ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারি পরিচালক মো. আখতারুজ্জামান জানান, খবর পেয়ে
ফায়ার সার্ভিসের জয়দেবপুর, সাভারে ইপিজেড, কালিয়াকৈর ও টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা সন্ধ্যা পৌণে আটটার দিকে ঘটনাস্থলে পৌছে উদ্ধার কাজ শুরু করে।
তিনি আরো জানান, সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে ওই কারখানায় বিকট শব্দে বয়লার বিস্ফোরণ ঘটে। এতে কারখানার চার তলা ভবনের দুতলা পর্যন্ত একপাশের অংশ ধসে পড়ে।
বিষ্ফোরনের পর স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করে। তারা আহতদে উদ্ধার করে কোনাবাড়ি, কাশিমপুর, গাজীপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, সাভারসহ বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে পাঠানো হয়।


স্থানীয়রা জানায়, ঈদের ছুটির পর কারখানাটি মঙ্গলবার খোলার কথা ছিল। তবে সোমবার ডাইং ইউনিটের বয়লার সেকশনটি চালু ছিল। নিচতলায় ২৫-৩০ জন শ্রমিক কাজ করছিল। সন্ধ্যা সোয়া সাতটার দিকে হটাৎ করে বিকট শব্দে বয়লারটি বিষ্ফোরণ ঘটলে চার তলার ভবনের নীচতলা ও দোতলার দুই পাশের দেয়াল, দরজা-জানালা ও মেশিনপত্র উড়ে যায় এবং বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা গেছে। এসময় কারখানার সামনের রাস্তা দিয়ে যাতায়াতকারী বেশকিছু সাধারণ মানুষ আহত হয়। বিষ্ফোরেণের ফলে আশপাশের কারখানার ভবনগুলো কেঁপে উঠে এবং দরজা-জানালার কাঁচ ভেঙ্গে লন্ডভন্ড হয়ে যায়। এতে আশপাশের শ্রমিক এবং সাধারণ মানুষের মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার পরপরই ওই এলাকায় বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।
গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক প্রণয় ভূষন দাশ জানান, বিষ্ফোরণের ঘটনায় রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত ৬ জনের মরদেহ এবং গুরুত্বর আহতাবস্থায় রোকন মিয়া (২৫) নামে এক শ্রমিককে হাসপাতালে আনা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরো জানান, নিহতদের মধ্যে একজনের পরিচয় সনাক্ত হয়েছে তার নাম আল আমিন (৩০) তার বাড়ি কাশিমপুর নয়াপাড়ায়।
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বাচ্ছু মিয়া জানান, চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোলাইমান নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে।
গাজীপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গুরুতর আহত শরিফুল ইসলামের স্ত্রী সুমা আক্তার জানান, আমরা দুই জনই এই এই ফ্যাক্টরীতে কাজ চাকরী করি। বিকালে শরিফুল ডিউটিতে ছিল। বিকট শব্দ শুনে ঘটনাস্থলে যাই। হতাহতের সংখ্যা অনেক।
গাজীপুরের জেলা প্রশাসন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ রাহেনুল ইসলামকে প্রধান করে ৬ সদস্যের তদন্ত কমিটি করেছে।
ঘটনার খবর পেয়ে গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ রাহেনুল ইসলাম, পুলিশ ও র‌্যাবের উর্র্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।