Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কিশোর বয়সে অপহরণ-হত্যা, দুইজনের ১০ বছর কারাদণ্ড

নভেম্বর ৯, ২০১৫
আইন- আদালত, বিচার, সাজা
No Comment

গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট:karadondo

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানিতে আট বছরের শিশু মাহফুজকে অপহরণ ও হত্যার দায়ে দুই তরুণকে ১০ বছরের সাজার আদেশ দিয়েছে ঢাকার একটি আদালত। ঢাকার চার নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবদুর রহমান সরদার আজ সোমবার এই রায় দেন। আসামিপক্ষের আইনজীবী ফরিদ হোসেন জানান, ২০১২ সালে ঘটনার সময় আসামি মেহেদী হাসান ও মোহাম্মদ সাদ্দাম হোসেনের বয়স ছিল যথাক্রমে ১৬ ও ১৫। এখন তাদের দুই জনেরই বয়স ১৮ বা তার বেশি। এ কারণে দুজনকে বিচারক কারাগারে পাঠাতে বলেছেন।

রায়ের পর্বেক্ষণে বলা হয়, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৭ ধারায় এ ধরনের অভিযোগের শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড অথবা কমপক্ষে ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড। কিন্তু এ আসামিরা যেহেতু অপরাধের সময় কিশোর বয়সী ছিল, সে কারণে জুভেনাইল এটি মামলা হিসেবে বিচার করা হয়েছে। নাবালক হিসেবে বিচারের মুখোমুখি হলেও তাদের অপরাধ ছোট করে দেখা বা অনুকম্পার সুযোগ নেই বলেও রায়ের পর্যবেক্ষণে উল্লেখ করা হয়।

ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মাহফুজুর রহমান লিখন জানান, ২০১২ সালের ৫ জুলাই শবেবরাতের সন্ধ্যায় কাশিয়ানির বরাত্তর গ্রামে নামাজ পড়ার জন্য বাড়ি থেকে বেরিয়ে অপহৃত হয় ইতালিপ্রবাসী রেজাউল ইসলামের ছেলে মাহফুজ। পরদিন মাহফুজের পরিবারকে ফোন করে ৭০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। ওইদিনই মাহফুজের মা স্বপ্না বেগম একটি মামলা করেন।

তদন্তে নেমে পুলিশ মেহেদী ও সাদ্দামকে আটক করে আদালতে হাজির করলে তারা পারিবারিক শত্রুতার জেরে মাহফুজকে অপহরণ ও হত্যার কথা স্বীকার করে। গলায় ফাঁস দিয়ে তারা মাহফুজকে হত্যা করে বলে তদন্তে বেরিয়ে আসে। একই ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ১৭ জন প্রাপ্তবয়স্কের বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা বিচারাধীন ছিল। মামলাটির কার্যক্রম বর্তমানে হাই কোর্টের আদেশে স্থগিত রয়েছে বলে আইনজীবী মাহফুজুর রহমান লিখন জানান।