Pages

Categories

Search

আজ- সোমবার ২৭ মে ২০১৯

কালিয়াকৈরে মামা’কে কুপিয়ে হত্যা

নভেম্বর ১০, ২০১৩
কালিয়াকৈর
No Comment

গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট ঃ
গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার রশিদপুর দক্ষিনপাড়া এলাকায় শনিবার সন্ধ্যায় মামাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে ভাগিনা। ঘটনার পর ভাগিনা পালিয়ে গেছে। নেশাগ্রস্থ ভাগনেকে বুঝিয়ে নেশামুক্ত করতে এসে লাশ হয়ে ফিরলেন মামা।
নিহত হলেন- টঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার দেওহাটা বহুরিয়া গ্রামের বছির উদ্দিনের ছেলে মো. আফাজ উদ্দিন(৪৮)।
এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার রশিদপুর দক্ষিনপাড়া রাহাজ উদ্দিনের ছেলে সোহেল রানা(২০) রাজ মিস্ত্রীর কাজ করতো। তিন ভাইয়ের মধ্যে সোহেল মাজারো। দীর্ঘ দিন ধরে সে নেশাগ্রস্থ্য হয়ে পড়ে। নেশাগ্রস্থ্য হয়ে গ্রামে প্রায় নানা অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটনায়। গত সাত দিন আগে বোন ছালেহা বেগমের বাড়িতে আফাজ উদ্দিন বেড়াতে আসে। বেড়াতে এসে ভাগিনা সোহেলের নেশাগ্রস্থ্য হয়ে পড়ার বিষয়টি জেনে তাকে বিভিন্ন সময় বুঝিয়ে আসছেন। শনিবার সন্ধ্যা পৌনে ৫ টার দিকে আফাজ উদ্দিন পাশের শহীদ মিয়ার বাড়ির বারান্দায় বসে ছিলেন। এমন সময় মামা তার ভাগনে সোহেলকে নেশার খারাপ দিকগুলো বুঝাচ্ছিলেন। কিন্তু ভাগনে এতে ক্ষিপ্ত হয় ও তাদের মধ্যে বাকবিতন্ডার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে নেশাগ্রস্থ্য সোহেল ক্ষিপ্ত হয়ে পাশে থাকা একটি দা দিয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে ও জাবাই করে হত্যা করে। এসময়ে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে সোহেল দৌড়ে পালিয়ে যায়। এর তিন আগেও সোহেল নেশাগস্থ হয়ে কোটবাড়ি(হোসেন মার্কেট) এলাকায় একটি ব্রীজ থেকে লুৎফর নামের এক ব্যক্তিকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এতে লুৎফর গুরুতর আহত হন। পরে এলাকাবাসী শালিসে বসে তাকে ৪৫হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এতেও সোহেল শোধরায়নি। এর মধ্যেই আবার আপন মামাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে গাজীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।
এব্যাপারে ১নং রশিদপুর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. সেলিম সরকার জানান, সোহেল নেশাগস্থ হয়ে গ্রামে নানা অপকর্ম করে বেড়াচ্ছে। এ নিয়ে প্রায়ই বিচার-শালিস করতে হয়েছে। আফাজ উদ্দিন তার ভাগনেকে বুঝিয়ে ভাল করার জন্য এখানে এসে লাশ হলেন। এ ঘটনার পর থেকে সোহেলসহ বাড়ির সকলেই পলাতক রয়েছেন।
কালিয়াকৈর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মনোয়ার হোসেন জানান, নেশাগ্রস্থ ভাগিনার সঙ্গে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে মামাকে দা দিয়ে কুপায় এতে তার শ্বাসনালী কেটে গেলে তার মৃত্যু হয়। ভাগিনাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।