Pages

Categories

Search

আজ- বৃহস্পতিবার ২২ নভেম্বর ২০১৮

কালিয়াকৈরে পুকুর থেকে স্কুল ছাত্রের লাশ উদ্ধার


আলমগীর হোসেন, কালিয়াকৈর : গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার আনসার একাডেমি তিন নাম্বার গেট এলাকার একটি পুকুর থেকে নাহিদুল ইসলাম (১৪) নামের এক স্কুল ছাত্রের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতের পরিবারের অভিযোগ তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।
এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কেয়ার টেকার হালিম (৬৫) ও তার নাতি রতনকে (২০) আটক করেছে পুলিশ।
রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশ কালিয়াকৈর উপজেলার একাডেমী তিন নাম্বার গেট এলাকার ডঃ সামসুদ্দিনের পুকুর থেকে ওই স্কুল ছাত্রের লাশ উদ্ধার করে।
নিহত নাহিদুল ইসলাম (রিহাদ) উপজেলার গাছবাড়ী এলাকার নাছির উদ্দিনের ছেলে এবং আনসার একাডেমি তিন নাম্বার গেট এলাকার আজহার হাজীর বাড়িতে মা-বাবার সাথে ভাড়া থাকতেন এবং স্থানীয় জেনিথ পি.এল কেজি এন্ড হাইস্কুলের ৮ম শ্রেণীর ছাত্র ছিলেন।
নিহতের পিতা মো. নাছির উদ্দিন জানায়, সে এবং তার স্ত্রী স্থানীয় চান্দরা ড্রেসম্যান কারখানায় চাকুরী করেন এবং তার ছেলে জেনিট পিএল কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের ৮ম শ্রেণীতে লেখাপড়া করতো। শরিবার সকালে তার ছেলে রিহাদকে বাড়িতে রেখে কারখানায় চলে যায়। এর পর থেকে রিহাদকে আর খুজে পাওয়া যায়নি। পরে রবিবার সকালে স্থানীয়রা বাড়ির পাশের পুকুরে একটি মরদেহ ভাসতে দেখে। পরে খবর পেয়ে নিহতে নানা চাঁন মিয়া মরদেহ পাড়ে এনে রিহাদের মরদেহ দেখতে পায়।
রিহাদের নানা চাঁন মিয়া বলেন, কেয়ার টেকার হালিম আমার নাতীকে খুন করেছে। আমার নাতী শনিবার দুপুরে বাড়ির পাশের ওই পুকুরে গোসল করতে যায় এর পর থেকে তাকে আর খুজে পওয়া যায়নি। পরের দিন সকালে ওই পুকুরে নাতীর লাশ পওয়া যায়। তিনি আরও বলেন, ওই কেয়ার টেকার হালিম ওই পুকুরে ছোট ছোট ছেলে মেয়েরা গোসল করতে নামলেই তাদেরকে ইট পাটকেল মারে এবং মারধর করে। আমার নাতী ওই পুকুরে গোসল করতে নামায় আমার নাতীকে হালিম পিটিয়ে হত্যা করে পুকুরে ফেলে দিয়েছে।
কালিয়াকৈর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল হামিক জানান, মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহম্মেদ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।
প্রথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে তাকে হত্যা করা হয়েছে। নিহতের গলায় ও চোখে মুখে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে এবং নাক মুখ ও কান দিয়ে রক্ত পড়ছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।